ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় ঢল নেমেছে জনতার

সাজেদ রহমান, যশোর অফিস

প্রকাশিত: ১৮:৩৮, ২৪ নভেম্বর ২০২২

প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় ঢল নেমেছে জনতার

জনসভায় জনতার ঢল। ছবি: জনকণ্ঠ

হেমন্তের মিষ্টি রোদে দুপুরের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন যশোর স্টেডিয়ামে এসে পৌঁছান, তখন লাখো জনতা রংবেরঙের পোশাকে স্টেডিয়াম ছাড়িয়ে আশেপাশের রাস্তায় দাঁড়িয়ে গেছে। ঢোলসহ নানা বাদ্যযন্ত্র নিয়ে তারা সমাবেশস্থলে আসেন। দীর্ঘ পাঁচ বছর পর প্রধানমন্ত্রীকে এক নজর দেখার জন্য যে পথ দিয়ে তিনি স্টেডিয়ামে আসেন, তার দু’ধারে হাজার হাজার জনতা হাত নেড়ে তার সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

দৃশ্যত: জনসভাকে ঘিরে যশোর শহর বৃহস্পতিবার রুপ নিয়েছিল জনতার নগরীতে। রাস্তায় রাস্তায় ঢল নেমেছিল মানুষের। জনস্রোতে খাজুরা বাস ষ্ট্র্যান্ড, মনিহার মোড়, মুরড়ী, চাঁচড়া, পালবাড়ি, ধর্মতলা থেকে এসেছিল স্টেডিয়ামে। সব মানুষের গন্তব্য ছিল ঐতিহাসিক এই স্টেডিয়ামে। 

৫০ বছর আগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যশোরের যে স্থানে জনসমুদ্রে ভাষণ দিয়েছিলেন, সেখানেই জনসভায় ভাষণ দিলেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা। দলীয় নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, ১৯৭২ সালের ২৬ ডিসেম্বর যশোরের এই স্টেডিয়ামে ভাষণ দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ঐতিহাসিক সেই জনসভা জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছিল।

জনসভা উপলক্ষে ভোর হতেই মানুষ বিভিন্ন অঞ্চল থেকে যশোর শহরে আসতে শুরু করেন। সাতক্ষীরাসহ যশোরের শার্শা ঝিকরগাছা এলাকার যানবাহন গুলো চাঁচড়া বিএডিসি (সেচ), খুলনা, বাগেরহাটের যানবাহন মুড়লী রাজারহাট, নড়াইল এলাকার যানবাহন সিটি কলেজ মাঠ, মাগুরা জেলার যানবাহন উপশহর খেলার মাঠ, ঝিনাইদহ, চুড়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, কুস্টিয়া অঞ্চলের যানবাহন খয়েরতলা এলাকায় রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। 
সেই সব জায়গায় বাস থেকে নেমে মিছিল করে জনতা এগোতে থাকে যশোর স্টেডিয়ামের দিকে। বেলা ১১টার আগেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায় যশোর স্টেডিয়াম এবং ডা: আব্দুল রাজ্জাক কলেজ মাঠ। স্টেডিয়ামের মাঠে ঢুকতে না পেরে জনতা দাড়িয়ে যায় ঈদগাহ ময়দান, মুজিব সড়ক, মুন্সী মেহেরুল্লাহ সড়ক, চুয়াডাঙ্গা বাসষ্ট্রান্ডে, স্টেডিয়ামপাড়া, সরকারি মাইকেল মধুসূদন দত্ত মহাবিদ্যালয়ের মাঠ, কলেজের দক্ষিণ গেটসহ আশে পাশের অঞ্চলে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোর সিভিল কোর্ট মোড়ে দেখা যায় ঢাক-ঢোলের তালে তালে নেচে-গেয়ে জনসভায় যোগ দিচ্ছেন দূর-দূরান্ত থেকে আসা নারীরা। মহিলা নেতাকর্মীদের মিছিলে নারীরা লাল, সবুজ শাড়ি পরিধান করে বর্নিল সাজে ঢাক-ঢোল বাজিয়ে দল বেঁধে সমাবেশস্থল যশোর শামস্ উল হুদা স্টেডিয়ামে গিয়ে জড়ো হচ্ছেন। বাদ্য যন্ত্রের তালে তালে নানা অঙ্গভঙ্গিতে নেচে গেয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে সৃষ্টি করেছেন তারা। তাদের মিছিলের বহরে রয়েছে পুরুষ নেতাকর্মীরাও। মিছিলে শৃঙ্খলা রাখতে দায়িত্ব পালন করছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন সংস্থা।

প্রধানমন্ত্রীর যশোর আগমন এবং জনসমাবেশ ঘিরে এবার ব্যাপক নিশ্চিত নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছিল প্রশাসন। এমন কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা আগে দেখেনি যশোরবাসী। জনসভাস্থলে পাঁচ স্তর এবং শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছিল। 

গোটা যশোর জেলার ৮ উপজেলা গোয়েন্দা এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারিতে ছিল। বিভিন্ন স্তরের চৌকস অফিসার ও ফোর্স দায়িত্ব পালন করেছেন। শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে কয়েকশ’ চেকপোস্ট বসানো হয়েছিল। কয়েকটি ডগ স্কোয়াড টিমও কাজ করেছে। পাঁচ স্তরের বাইরেও গুগল ও স্যাটেলাইট সহায়তা নিয়েও নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণ করা হয়েছিল।

 

এসআর

সম্পর্কিত বিষয়:

monarchmart
monarchmart