ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০

সিডনিতে বারডিয়া বাংলা স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া ও সার্টিফিকেট প্রদান 

প্রকাশিত: ২২:৫৪, ১০ ডিসেম্বর ২০২৩

সিডনিতে বারডিয়া বাংলা স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া ও সার্টিফিকেট প্রদান 

সার্টিফিকেট হাতে শিক্ষার্থীরা।

অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে বারডিয়া বাংলা স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া ও সার্টিফিকেট প্রদান অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (১০ ডিসেম্বর) এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অভিভাবক, অতিথি, শিক্ষার্থী, শিক্ষক এবং বিদ্যালয়ের কার্যনির্বাহী সদস্যরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। 

শিক্ষার্থী আরিমার দেশের স্বীকৃতি পত্র পাঠের পর সবাই দাড়িয়ে অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে। রুমানা ইসলামের সঞ্চালনায় অধ্যক্ষ মিলি ইসলাম অনুষ্ঠানে সবাইকে স্বাগত জানিয়ে অভিভাবকদের ভূমিকার প্রশংসা করেন। 

স্কুলের সভাপতি রফিকুল ইসলাম অনুদান প্রাপ্তি, একটি পাঠ্যক্রমের উন্নয়ন, অ্যাসোসিয়েশন অফ কমিউনিটি ল্যাঙ্গুয়েজ স্কুলের সঙ্গে সম্পৃক্ততার পাশাপাশি বিভিন্ন পেশাগত উন্নয়ন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ সহ বিদ্যালয়ের অর্জনগুলি তুলে ধরে একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন।

শিক্ষক মিস হামিদা খানম পরিচালিত এবং সাঈদ ইমরান জুয়েল ও শরীয়া নূর মৌ-এর সহায়তায় শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতামূলক ও অংশগ্রহণমূলকভাবে ক্রীড়া কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে। এরপর সকল শিক্ষার্থীরা একটি বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক উপস্থাপনায় বেশ কয়েকটি বাংলা গান এবং মানহা একটি একক নৃত্য পরিবেশন করে। 

কাউন্সিলর মাসুদ চৌধুরী, অধিদপ্তরের শিক্ষা কর্মকর্তা মিস এনিয়া গ্যানন এবং কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব কায়সার আহমেদ সহ অভিভাবক সানজিদা খানম, রুমানা ইসলাম এবং সাঈদ ইমরান বক্তব্য রাখেন। মোহাম্মদ ফেরদৌস অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানান।

শিক্ষিকা হামিদা খানম, কোষাধ্যক্ষ তানভীর হাসান ও কার্যনির্বাহী সদস্য তানবীর আলম রিয়াদ শিক্ষার্থীদের খেলাধুলায় বিজয়ীদের পদক প্রদান করেন। শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক ইস্যুকৃত 'অংশগ্রহণ ২০২৩' এর সার্টিফিকেট তুলে দেন অধ্যক্ষ মিলি ইসলাম এবং শিক্ষক হামিদা খাতুন ও শারিয়া নূর। ছাত্র আরিব ইমরানকে তার সামগ্রিক উৎকর্ষতা এবং ভাষা শিক্ষার জন্য একটি মিনিস্ট্রিয়াল মেরিট অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

বাংলা ভাষার প্রতি তাদের অঙ্গীকার স্বরূপ সর্বাধিক অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের তিনজন অভিভাবকে ক্রেস্ট দিয়ে স্বীকৃতি ও পাশাপাশি অধ্যক্ষ ও সকল শিক্ষককে ফুলের তোড়া দিয়ে তাদের প্রচেষ্টা ও অবদানের জন্য স্বীকৃতি জানানো হয়। শিক্ষার্থীদের দেশাত্মবোধক গানের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

এম হাসান

×