ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

বয়কট কোকা-কোলা!

এবার কোক স্টুডিও বাংলাদেশ বয়কটের ডাক!

প্রকাশিত: ১৬:৪৩, ১১ জুন ২০২৪

এবার কোক স্টুডিও বাংলাদেশ বয়কটের ডাক!

কোক স্টুডিও বাংলাদেশ

নির্যাতিত দেশ ফিলিস্তিনের গাজায় অব্যাহতভাবে ইসরায়েলের গণহত্যার প্রতিবাদে সারাবিশ্বজুড়েই চলছে কোমল পানীয় কোকাকোলা বয়কটের ডাক। বিশেষ করে মুসলিম দেশগুলোতে খুব জোরেশোরেই চলছে এই বয়কট। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশেও কয়েকমাস ধরে চলছিলো কোকাকোলা বয়কটের ট্রেন্ড। 

তবে সবাই যখন কোকাকোলা বয়কটের কথা ভুলতে বসেছিলো তখন এক বিশাল বড় ভুল করে ফেললো কোকাকোলা। একটি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে কোক ইসরায়েলের কোম্পানী না প্রচার করতে গিয়ে উলটো বাংলাদেশের কোটি মানুষের গায়ে নুনের ছিটার মতো এই বয়কটের আগুন আবার পুনরায় জ্বালিয়ে তুলেছে বিজ্ঞাপনটি। 

কোকাকোলার নতুন এই বিজ্ঞাপনটি প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই আবারও নতুনভাবে চলছে এই পানীয়টি বয়কটের ট্রেন্ড। এমনকি এই বিজ্ঞাপনের সাথে যারা জড়িত ছিলেন বিশেষ করে শিমুল শর্মা ও শারাফ আহমেদ জীবনকেও বয়কটের ডাক দিয়েছেন অনেকেই। 

এবার এই বয়কটের মাঝেই আওয়াজ উঠেছে কোক এর সাথে জড়িত সকল প্রতিষ্ঠানকে একসাথে বয়কটের। বিশেষ করে অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়াতে আওয়াজ তুলেছেন, তাহলে কি এবার কোক স্টুডিও বয়কট করা হবে না।

এ বিষয়ে মিউজিসিয়ান ফয়সাল আদনান একটি পোস্টে লিখেন, কোকাকোলা বয়কট করলে কোক স্টুডিও এর গান এবং শিল্পীদের বয়কট করা উচিৎ কি? সেক্ষেত্রে অর্ণব, বাপ্পা মজুমদার, ওয়ারফেইজ, মেঘদল, তাহসান, মমতাজ, ইমন চৌধুরী, পান্থ কানাই, নন্দিতা সহ সকল শিল্পী ও মিউজিশিয়ানদের বিষয়েও কি একই ব্যাপার প্রযোজ্য? এরা প্রায় সকলেই আমার প্রিয় শিল্পী বিধায় তাদের গান প্রায়ই শুনি, আমি নিজেও একজন গিটারিস্ট , যদিও কোক আমার তেমন পছন্দ না, আমি ফ্যানটা পছন্দ করি বেশি, এ বিষয়ে বিজ্ঞজনদের মতামত প্রত্যাশা করছি, আমি আসলেই কনফিউসড!!

নাইম হোসেন আব্দুল্লাহ নামের এক ফেসবুক ব্যবহারকারী কোক স্টুডিও বাংলার ইউটিউব চ্যানেল আনসাবস্ক্রাইব করে অন্যদেরও আনসাবস্ক্রাইব করতে উৎসাহ প্রদান করে লিখেন, Unsubscribe Coke Studio Bangla!
কোক স্টুডিও বাংলা আনসাবস্ক্রাইব করুন! জায়নবাদ এবং তাদের দোসরদের বাংলাদেশ থেকে হটাও!
(আমার টাইমলাইনে আজ অন্তত ১০০ জনকে দেখতে চাই যারা কোকস্টুডিও আনসাবক্রাইব করেছেন। জায়নবাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিলে কোকস্টুডিও আনসাবসক্রাইব করুন এখনি। পারলে তার একটা স্ক্রিনশট কমেন্টবক্সে যুক্ত করুন!)

মারজুক আহমেদ নামের এক ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেন, চলেন কোক স্টুডিও বয়কট করি। কোক স্টুডিও র সাথে জড়িত অর্নব, তাহসান এবং অন্য শিল্পী যারা কোক স্টুডিও র গানের সাথে জড়িত আমরা তাদের গান শুনবো না। আমি মনে করি, কোমল পানীয় হিসেবে কোক না কিনার যে ইকোনোমিক ইম্প্যাক্ট তার চেয়ে এই কালচারাল বয়কট অনেক বেশি ইম্প্যাক্টফুল। আমি নিজে বহুদিন ধরে কোক স্টুডিও র গান শুনি না। আচ্ছা তাহসান, অর্নব এদের কী একবারও কোক এর সাথে কাজ করতে গিয়ে ফিলিস্তিনের কথা মনে হয় নাই। তাদের হয় নাই বলে কী আমরা ভুলে যাব। আসুন কোক স্টুডিও বয়কট করি।

প্রসঙ্গত, ঈদের আগেই আসতে পারে কোক স্টুডিও বাংলার নতুন গান। এর আগে এ ধরণের মুভমেন্ট কতটা ইফেক্ট ফেলবে এটাই এখন দেখার বিষয়।

 

এবি

×