ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

খাবার কেনার টাকা ছিল না, শাহরুখের মত ‘হুবহু’র তার পাশে দাঁড়ান অন্য খান

প্রকাশিত: ১২:৫০, ১০ জুন ২০২৪; আপডেট: ১২:৫০, ১০ জুন ২০২৪

খাবার কেনার টাকা ছিল না, শাহরুখের মত ‘হুবহু’র তার পাশে দাঁড়ান অন্য খান

বিপদের সময় শাহরুখের প্রথম ‘হুবহু’ রিজওয়ান খানের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন সালমন খান।

মুখের গড়ন থেকে শুরু করে চুলের ঘনত্ব— সব কিছুই শাহরুখ খানের মতো। অথচ ছোটবেলায় নাকি বলিউডের ‘কিং খান’কে চিনতেনই না তিনি। একাধিক ছবিতে শাহরুখের ‘বডি ডাবল’ হিসাবে কাজ করেছেন। তবে বিপদের সময় শাহরুখের প্রথম ‘হুবহু’ রিজওয়ান খানের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন সালমন খান।মহারাষ্ট্রের কল্যাণে বাবা-মায়ের সঙ্গে থাকতেন রিজওয়ান। নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম তাঁর। ছোট থেকে স্বপ্ন ছিল অভিনেতা হওয়ার। কিন্তু অর্থাভাবই তাঁর সামনে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। এমনকি অভিনয় শুরু করার পরেও অভাবের দিন দেখেন রিজওয়ান। শেষ পর্যন্ত সালমন সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন তাঁর দিকে।মালাইকা অরোরা এবং আরবাজ় খানের পুত্র আরহান খান ইউটিউব চ্যানেলে একটি শোয়ের সঞ্চালনা করেন। সেই শোয়ে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রিজওয়ান। শাহরুখের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা থেকে শুরু করে খারাপ সময়ের কথাও সেই সাক্ষাৎকারে উল্লেখ করেন তিনি।রিজওয়ান জানান, ছোটবেলা থেকেই অভিনয়ের প্রতি আগ্রহ ছিল তাঁর। তিনি যেখানে থাকতেন, সেখানকার এক জন এক দিন রিজওয়ানকে দেখে বলেছিলেন, ‘‘তোর চুল শাহরুখের মতো। তোর সঙ্গে শাহরুখের মুখের কী অদ্ভুত মিল!’’ স্থানীয়দের মুখেই প্রথম বার শাহরুখের নাম শুনেছিলেন রিজওয়ান।সংসারের খরচ চালানোর জন্য স্কুলে পড়াকালীন শরবত বিক্রির দোকান চালাতেন রিজওয়ান। দোকানে দোকানে পার্সও বিক্রি করতেন তিনি।স্কুলের পড়াশোনা শেষ করার পর স্বপ্ন চাগাড় দিয়ে ওঠে রিজওয়ানের। অভিনয় করবেন বলে ১৯৯৭ সালে বাড়ি ছেড়ে মুম্বাই চলে যান তিনি। সেখানে বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে এক ছাদের তলায় কোনও রকমে দিনযাপন করতেন তিনি।ছোট পর্দায় অভিনয় করে কেরিয়ার শুরু করেন রিজওয়ান। ‘কহানি ঘর ঘর কি’, ‘কিঁউ কি সাস ভি কভি বহু থি’, ‘কসৌটি জিন্দেগি কে’, ‘কয়া হাদসা কয়া হকিকত’-এর মতো একাধিক জনপ্রিয় হিন্দি ধারাবাহিকে অভিনয়ের সুযোগ পান তিনি।হিন্দি ধারাবাহিকে অভিনয় ছাড়া একাধিক বিজ্ঞাপনেও অভিনয় করতে শুরু করেন রিজওয়ান। তিনি সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘‘ধারাবাহিক এবং বিজ্ঞাপনে অভিনয় করার সময় আমায় অনেকে বলেছিলেন যে আমি হুবহু শাহরুখের মতো দেখতে। এই সুযোগ হাতছাড়া না করার উপদেশও দিতেন তাঁরা।’’
শাহরুখের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ কী ভাবে পেয়েছিলেন? রিজওয়ান সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘‘এক দিন রাত দু’টোর সময় হঠাৎ আমার কাছে একটা ফোন এল। ফোন তোলার পর ওপার থেকে আমায় এক জন জানালেন যে, শাহরুখের সঙ্গে আমায় অভিনয় করতে হবে। প্রথমে শুনে আমি খুব ভয় পেয়েছিলাম। কিন্তু আনন্দও হচ্ছিল।’’রিজওয়ান জানান, শাহরুখের সঙ্গে বহু বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেছেন তিনি। এমনকি, বড় পর্দায় শাহরুখের একাধিক ছবিতেও কাজ করতে দেখা গিয়েছে রিজওয়ানকে। সেই তালিকায় রয়েছে ‘মহব্বতে’, ‘চক দে! ইন্ডিয়া’র মতো জনপ্রিয় ছবিও। নিজেকে শাহরুখের প্রথম ‘বডি ডাবল’ হিসাবে পরিচয় দেন রিজওয়ান।২০০০ সালে আদিত্য চোপড়ার পরিচালনায় মুক্তিপ্রাপ্ত ‘মহব্বতে’ ছবিতে বলিউডের দুই ‘ডন’ অমিতাভ বচ্চন এবং শাহরুখের অভিনয়ের যুগলবন্দি দেখা গিয়েছিল। এই ছবিতে শাহরুখের ‘বডি ডাবল’ হিসাবে অভিনয় করতে দেখা যায় রিজওয়ানকে। রিজওয়ানের দাবি, ‘মহব্বতে’ ছবিতে বেহালা বাজানোর দৃশ্যেও অভিনয় করেছিলেন তিনি।২০০৭ সালে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় ‘চক দে! ইন্ডিয়া’। শাহরুখের কেরিয়ারে এই ছবিটি সাফল্যের আরও একটি মাইলফলক তৈরি করে। এই ছবিতে শাহরুখের ‘বডি ডাবল’ হিসাবে কাজ করার পাশাপাশি মাঠে হকি খেলার মতো গুরুত্বপূর্ণ দৃশ্যে অভিনয় করেছেন রিজওয়ান।‘চক দে! ইন্ডিয়া’ ছবির শুটিং নিয়ে একটি মজার ঘটনারও উল্লেখ করেন রিজওয়ান। সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘‘মুম্বাইয়ের একটি স্পোর্টিং ক্লাবে শুটিং চলছিল ‘চক দে! ইন্ডিয়া’র। এক দিন আমি নির্ধারিত সময়ের আগে পৌঁছে গিয়েছিলাম। সে দিন রমজান ছিল। শাহরুখ স্যরের পৌঁছতে দেরি হচ্ছিল। সঙ্গে সঙ্গে আমায় নির্দেশ দেওয়া হল যে আমি যেন শুটিং ফ্লোর থেকে বেরিয়ে শাহরুখের অনুরাগীদের দেখা দিয়ে আসি। আমি যখনই বাইরে বেরোতে গিয়েছি, তখনই দেখি ঘটনার বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়ানোর জন্য আমায় নিরাপত্তারক্ষীরা ঘিরে ধরেছেন। এ ভাবে ‘নকল’ শাহরুখ সেজেই আমি বাইরে গিয়েছিলাম।’’

রিজওয়ান জানান, তাঁর জীবন এমন এক পর্যায়ে পৌঁছেছিল যখন খাবার কেনার টাকাও ছিল না। ধীরে ধীরে বাড়ির সমস্ত আসবাবপত্র বিক্রি করতে শুরু করে দিয়েছিলেন তিনি। পরে সালমন তাঁর পাশে দাঁড়ান।

রিজওয়ান বলেন, ‘‘আমরা যাঁরা তারকাদের ‘হুবহু’, তাঁরা সকলেই একটি সংগঠনের সদস্য। অতিমারির সময় সালমন ওই সংগঠনের সকলকে আড়াই হাজার টাকা করে বছরে দু’বার পাঠাতেন।

বলি তারকাদের ‘বডি ডাবল’রা যেন চিন্তামুক্ত থাকতে পারেন সেই কারণে তাঁদের বাড়ি ভাড়াও দিয়ে দিতেন সালমন। বলিউডের ‘ভাইজান’ সালমনের কাছে তাই সারা জীবন কৃতজ্ঞ তিনি। এমনটাই জানিয়েছেন রিজওয়ান।

সাক্ষাৎকারে রিজওয়ান বলেন, ‘‘অতিমারির সময় খুব কঠিন গিয়েছে। হাতে তখন কোনও কাজ নেই। ঘরের বেশির ভাগ জিনিসপত্র বিক্রি করে দিয়েছিলাম। তার উপর স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা। খরচ কীভাবে চালাব বুঝতে পারছিলাম না। ভাগ্যিস সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন সালমন।’’

বর্তমানে স্ত্রী এবং সন্তান নিয়ে মুম্বইয়ে একটি দুই কামরার ফ্ল্যাটে থাকেন রিজওয়ান। শাহরুখের ‘বডি ডাবল’ হিসাবে দেশ জুড়ে নানা প্রান্তে পারফর্ম করেন তিনি।

তাসমিম

×