ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ০২ মার্চ ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০

এডিএন টেলিকমের আইপিও অনুমোদন

প্রকাশিত: ০৯:০৯, ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

এডিএন টেলিকমের আইপিও অনুমোদন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) মাধ্যমে শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের অনুমোদন পেয়েছে এডিএন টেলিকম লিমিটেড। মঙ্গলবার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬৯৫তম সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক মোঃ সাইফুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে। এডিএন টেলিকম লিমিটেড শেয়ারবাজার থেকে ৫৭ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। এ লক্ষ্যে বুক বিল্ডিংয়ের মাধ্যমে যোগ্য বিনিয়োগকারীদের কাছে ১ কোটি ১৮ লাখ ৭৫ হাজার শেয়ার ৩০ টাকা করে বিক্রয় করে ৩৫ কোটি ৬২ লাখ ৫০ হাজার টাকা সংগ্রহ করা হয়। আর সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ৭৯ লাখ ১৬ হাজার ৬৬৬টি শেয়ার ২৭ টাকা করে বিক্রয় করা হবে। এই শেয়ার বিক্রয় থেকে ২১ কোটি ৩৭ লাখ ৪৯,৯৮২ টাকা সংগ্রহ করা হবে। এর আগে ২০১৮ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কোম্পানিটির বিডিং অনুমোদন দেয়। আইপিওর মাধ্যমে উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি ভৌত কাঠামো উন্নয়ন, ডাটা সেন্টার স্থাপন, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে। ৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পত্তি মূল্য দাঁড়িয়েছে ১৬.১৩ টাকা। শেয়ারপ্রতি বেসিক মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ২.৫২ টাকা ও শেয়ারপ্রতি সমন্বিত মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ২.৩৬ টাকা। আর ভারিত গড় হারে শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ১.৮১ টাকা। কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট। উল্লেখ্য, কোম্পানিটির ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত বছরের সর্বশেষ নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৮.৮০ টাকা এবং বেসিক শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ২.৬৭ টাকা। বিনিয়োগকারীদের ৭৮.২১ শতাংশ অভিযোগ নিষ্পত্তি ॥ গত অর্থবছরে (২০১৮-১৯) বাজার মধ্যস্থতাকারী (তালিকাভুক্ত কোম্পানি ছাড়া) প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বিনিয়োগকারীদের আনীত অভিযোগের ৭৮.২১ শতাংশ নিষ্পত্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। তবে নিষ্পত্তির জন্য এনফোর্সমেন্ট বিভাগে চলমান অভিযোগগুলোকে বিবেচনায় নিলে এ হার ৯২.০৭ শতাংশ। কমিশনের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ সংরক্ষণ করা বিএসইসির গুরুত্বপূর্ণ কাজ এবং তাদের অভিযোগ নিষ্পত্তিকে গুরুত্ব দিয়ে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় কমিশন ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের অভিযোগ দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য বিভিন্ন প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করে। যার ফলে ওই অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের অভিযোগ নিষ্পত্তির হার ৭৮.২১ শতাংশ। তবে নিষ্পত্তির জন্য এনফোর্সমেন্ট বিভাগে চলমান অভিযোগগুলোকে বিবেচনায় নিলে এ হার ৯২.০৭ শতাংশ। বিল্ড বাংলাদেশ ফান্ডের নিবন্ধন প্রদানের সিদ্ধান্ত ॥ শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) বিল্ড বাংলাদেশ স্যোসাল এন্টারপ্রিনিউয়ার্স ফান্ড নামক একটি ইমফ্যাক্ট ফান্ডের নিবন্ধন প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মঙ্গলবার বিএসইসির ৬৯৫তম কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। জানা গেছে, ফান্ডটির আকার হবে ৮৩ কোটি টাকা এবং এর মেয়াদ হবে ১০ বছর। ফান্ডটির উদ্যোক্তা জেসি ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি লিমিটেড, ফান্ড ম্যানেজার ইমপ্রেস ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং ট্রাস্টি গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। ফান্ডটি মূলত দেশের সামাজিক ও পরিবেশের উন্নয়নের উদ্দেশে কৃষি ও খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ, স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা, নবায়নযোগ্য ও বিশুদ্ধ জ্বালানি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, টেকসই উৎপাদনখাত, শিক্ষা, প্রকৌশল ও পর্যটন ইত্যাদিতে বিনিয়োগ করবে।
×