শুক্রবার ৩০ বৈশাখ ১৪২৮, ১৪ মে ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

দূরপাল্লার গণপরিবহন চালুর দাবিতে স্মারকলিপি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পূর্বঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে দূরপাল্লার গণপরিবহন চালু করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে ঢাকা জেলা বাস-মিনিবাস সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে তিন দফা দাবি সংবলিত লিখিত এ স্মারকলিপি দেন সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন-ঢাকা জেলা বাস-মিনিবাস সডক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সাদিকুর রহমান, কার্যকরী সভাপতি ওসমান আলী, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শহিদুল্লাহ, মহাখালী বাস টার্মিনাল মালিক সমিতির সভাপতি মোঃ আবুল কালাম। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশের সড়ক পরিবহন একটি গুরুত্বপূর্ণ খাত। দেশে প্রায় ৭৫ শতাংশ যাত্রী ও ৬৫ শতাংশ পণ্য সড়কপথে বাস ও ট্রাকের মাধ্যমে পরিবহন করা হয়ে থাকে। জাতীয় অর্থনীতিকে গতিশীল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে পরিবহন খাত। পরিবহন ব্যবস্থা অনেকটা শরীরে রক্তের প্রবাহের মতো। রক্ত প্রবাহ বন্ধ হয়ে গেলে শরীর যেমন অচল হয়ে যায় একইভাবে পরিবহন খাত সচল হলে দেশও সচল হতে বাধ্য। এতে বলা হয়, এই সড়ক পরিবহন খাতে ৫০ লাখ শ্রমিক কাজ করেন। করোনাকালে যেহেতু পরিবহন শ্রমিকদের গণমানুষের সংস্পর্শে থাকতে হয়, তাই পরিবহন শ্রমিকরা সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকেন। ঝুঁকিতে থাকেন যাত্রীও। বৈশ্বিক মহামারী করোনার সংক্রমণরোধে লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। সেই বিবেচনায় সরকারের গণপরিবহন বন্ধ করা যুক্তিসঙ্গত। তবে শ্রমিকদের জীবিকার নিশ্চয়তার বিষয়টিও ভাবা দরকার। জীবন বাঁচানোর প্রয়োজনে জীবিকা প্রয়োজন। দেখা যাচ্ছে, বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠান, শপিংমল, বাজার, অফিস ও আদালতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার শর্তসাপেক্ষে লকডাউন শিথিল করা হয়েছে। কিন্তু গণপরিবহন সে শর্তের আওতায় চালু করা হয়নি। যদিও যাত্রীরা ঠিকই সাধারণ রিক্সা, অটোরিক্সা, সিএনজিচালিত অটোরিক্সা, মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, মিনি-ট্রাকে চলাচল করছেন। অতিরিক্ত ভাড়া যেমন দিতে হচ্ছে তেমনই স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি বরং বেড়েছে। শুধু গণপরিবহন বন্ধ থাকায় শ্রমিক অসন্তোষও তীব্র হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীকে গণপরিবহন শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, পরিবহন শ্রমিকরা উপায়ন্তর না পেয়ে আপনার কাছে আবেদন জানাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে থোক বরাদ্দের অনুরোধ জানানো হয়। তিন দাবি হলো- স্বাস্থ্যবিধি মেনে মোট আসনের অর্ধেক যাত্রী নিয়ে দূরপাল্লার গণপরিবহন ও পণ্যপরিবহন চলাচলের ব্যবস্থা করা, সড়ক পরিবহন শ্রমিকদের আর্থিক অনুদান ও খাদ্য সহায়তা দেয়া ও সারাদেশে বাস ও ট্রাক টার্মিনালগুলোতে পরিবহন শ্রমিকদের জন্য ১০ টাকায় ওএমএস-এর চাল বিক্রির ব্যবস্থা করা।

শীর্ষ সংবাদ:
স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ উদযাপন করার আহবান প্রধানমন্ত্রীর         কাল পবিত্র ঈদ-উল ফিতর         দেশবাসীকে রাষ্ট্রপতির ঈদ শুভেচ্ছা         ঈদ জামাত কখন কোথায়         ২৩ মে পর্যন্ত বিধিনিষেধ বাড়ছে, ১৬ মে প্রজ্ঞাপন জারি : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় ৩১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১২৯০         হালকা বৃষ্টি থাকবে ঈদের দিন, তাপমাত্রাও হবে সহনীয়         পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক         ফেরিতে ৫ মৃত্যু ॥ এককোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে নোটিশ         সংকটে ব্লেম গেম থেকে বিরত থাকুন ॥ কাদের         ফাঁকা ঢাকা         চালুর পর বঙ্গবন্ধু সেতুতে টোল আদায়ের রেকর্ড         ঈদের দিনেও চলছে হামলা ॥ নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৯         আল-আকসায় ঈদ জামাতে মুসল্লিদের ঢল         ভারতে করোনা ভাইরাসে আরও ৪১২০ জনের মৃত্যু         সৌদিসহ মধ্যপ্রাচ্যে উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল ফিতর         রাত পোহালেই ঈদ ॥ শিমুলিয়ায় ঈদযাত্রার শেষ দিনে চলছে ১৬ ফেরী         গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৫         ইসরাইলের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বাহিনী তৈরি করতে চান এরদোগান