রবিবার ১০ কার্তিক ১৪২৭, ২৫ অক্টোবর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

পৃথক পতাকা ও সংবিধানের দাবি এনএসসিএন’র ॥ নয়া বিড়ম্বনা মোদি

পৃথক পতাকা ও সংবিধানের দাবি এনএসসিএন’র ॥ নয়া বিড়ম্বনা মোদি

অনলাইন ডেস্ক ॥ ভারতে বিচ্ছিন্নতাবাদী নাগা সংগঠন এনএসসিএন-আইএম পৃথক পতাকা ও সংবিধানের দাবি জানিয়েছে। পতাকা ও সংবিধানের দাবি পূরণ না হলে তারা কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে আর আলোচনায় রাজি নয় বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীটি কার্যত কড়া বার্তা দিল বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

সম্প্রতি এনএসসিএন-আইএমগোষ্ঠীর জয়েন্ট কাউন্সিলের বৈঠকে ‘নাগা সম্প্রদায়ের ঐতিহাসিক ও রাজনৈতিক অধিকার’ এবং ‘ইন্দো-নাগা রাজনৈতিক আলোচনা’ কত দূর এগিয়েছে তা পর্যালোচনা করা হয়। নাগাল্যান্ডের ডিমাপুরের কাছে হেব্রনে কেন্দ্রীয় সদর দফতরে ওই বৈঠক হয়।

পরে এনএসসিএন-আইএম এক বিবৃতিতে বলেছে,‘বৈঠকে সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে এনএসসিএন-আইএম পৃথক নাগা জাতীয় পতাকা এবং ইয়েঝাবু অর্থাৎ সংবিধান দাবি করছে। ইন্দো-নাগা রাজনৈতিক সমাধানের জন্য ও নাগা চুক্তির জন্য ওই দাবি মেনে নিতেই হবে।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে,২০১৫ সালের ৩ অগস্টের ঐতিহাসিক ফ্রেমওয়ার্ক চুক্তির ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে এনএসসিএন-আইএম একটি চূড়ান্ত চুক্তির দাবি রাখছে।

কেন্দ্রীয় সরকারের মতে,নাগাল্যান্ডের আর একটি সশস্ত্র সংগঠন নাগা ন্যাশনাল পলিটিক্যাল গ্রুপস বা এনএনপিজিএস জানিয়েছে,তারা কেন্দ্রের সঙ্গে শান্তি চুক্তিতে সই করতে রাজি। এ জন্য তাদের পৃথক পতাকা বা সংবিধানের প্রয়োজন নেই। এই পরিস্থিতিতে নিজের রাজ্যেই চাপে পড়ে গিয়েছে এনএসসিএন-আইএম। সেজন্য কেন্দ্রীয় সরকারের উপরে চাপ বাড়াতে ওই দাবি করছে তারা।

এনএসসিএন-আইএম নেতা থুইঙ্গালাং মুইভার দাবি,পাঁচ বছর আগে কেন্দ্রীয় সরকার তাদের পৃথক জাতীয় পতাকা ও সংবিধানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতি এখনও পালন করা হয়নি। ২০১৫ সালে শান্তি চুক্তির পরে বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনটি অস্ত্রবিরতি পালন করেছিল। এরপরেই উত্তর-পূর্ব ভারতে উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

নাগাল্যান্ড,মণিপুর,অরুণাচল প্রদেশ,মিজোরাম,অসমের বিস্তীর্ণ অঞ্চল নাগা স্বাধীনভূমি বা ‘নাগালিম’ হিসাবে গড়ে তুলতে চায় বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন এনএসসিএন। ওই সংগঠন দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে গেছে। এনএসসিএন-আইএমের সঙ্গে শান্তিচুক্তি করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। পৃথক পতাকা ও সংবিধানের দাবিতে সায় দিতে কোনওমতেই রাজি নয় কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু চীনের সঙ্গে চলমান সীমান্ত সংঘাতের মধ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদী সশস্ত্র গোষ্ঠী এনএসসিএন-আইএমের পৃথক পতাকা ও সংবিধানের দাবিতে কঠোর অবস্থান কেন্দ্রীয় সরকারের জন্য নয়া বিড়ম্বনা বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।#

শীর্ষ সংবাদ:
চালের মিল মালিক, পাইকার ও ফরিয়ারা অতিমুনাফার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত : কৃষিমন্ত্রী         ‘দুর্নীতির বীজ বপন করে গেছে ৭৫ পরবর্তী অবৈধ সরকারগুলো’         নোয়াখালীতে ধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনায় লজ্জিত ওবায়দুল কাদের         ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’         করোনা ভাইরাসে আরও ২৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৩০৮         পদ্মা সেতুর ৫ হাজার ১০০ মিটার দৃশ্যমান         ল্যাপটপ ও প্রিন্টার পাচ্ছেন এমপিরা         প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে নতুন সচিব         ঢাবি শিক্ষক জিয়ার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দুই মামলা         ছেলে হত্যার বিচার চেয়ে আমরণ অনশনে রায়হানের মা         বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির রোল মডেল ॥ আমু         করোনায় আক্রান্ত স্লোভেনিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী         করোনামুক্ত হয়ে আজ বাসায় ফিরছেন তথ্যমন্ত্রী         মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্টের চিফ অব স্টাফের করোনা শনাক্ত         সরকার বিশেষ শক্তিতে বলীয়ান ॥ ফখরুল         শিক্ষার্থীদের অটো প্রমোশনের আগে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেয়া দরকার ছিল ॥ নজরুল         ডেঙ্গুতে চিকিৎসকের মৃত্যু         দেশে ফিরছে নৌবাহিনীর যুদ্ধ জাহাজ ‘বিজয়’         হাউস ও সিনেট নির্বাচনেও উত্তাপ ছড়াচ্ছে         ভারতে করোনায় মৃত্যু আরও ৫৭৮, শনাক্ত ৫০ হাজার