মঙ্গলবার ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ১১ আগস্ট ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

৩ বছরের শিশুকে বটি দিয়ে টুকরা টুকরা করে কেসমত

৩ বছরের শিশুকে বটি দিয়ে টুকরা টুকরা করে কেসমত

অনলাইন রিপোর্টার ॥ গ্রামে গ্রামে কাপড় বিক্রি করে ৬৫ বছর বয়সী কেসমত ফকির ওরফে দুলাল ফকির। কিন্তু মানুষ খুন করাই যেন তার নেশা। পর পর দুইটি খুন করেছে ওই বৃদ্ধ।

গত ১৭ মার্চ উপজেলা শহরের দরগাপাড়ার সবজি বিক্রেতা তোফাজ্জল হোসেন টুকু মিয়ার ৩ বছরের মেয়ে জান্নাতুন নিসাকে আদর করে বাড়িতে ডেকে নিয়ে বটি দিয়ে টুকরা টুকরা করে কেসমত ফকির। এর পর গত ২৪ মার্চ যশোরের অভয়নগর উপজেলার ধোপাদি এলাকার একটি বাড়িতে প্রকাশ্যে দা দিয়ে হত্যা করে সুহাসিনী (৬৫) নামের এক বৃদ্ধাকে।

পুলিশ সূত্র জানায়, জান্নাতুন নিসাকে নির্মমভাবে হত্যার পর থেকে পুলিশ কেসমত ফকিরকে গ্রেফতার করার জন্য অভিযান পরিচালনা করে আসছে। কিছুতেই নাগাল পাওয়া যাচ্ছিল না তার। পরে স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত একটি খুনের খবরের সূত্র ধরে তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে।

শুক্রবার বিকালে ঝিনাইদহের একটি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছে কেসমত ফকির। ওই জবানবন্দির বর্ণনায় উঠেছে এসেছে কোটচাঁদপুরের শিশু জান্নাতুন নিসার হত্যার আসল রহস্য।

এ বিষয়ে ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান জানান, কোটচাঁদপুর উপজেলা শহরের দরগাপাড়ার সবজি বিক্রেতা তোফাজ্জল হোসেন টুকু মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া ফেরিওয়ালা রাজবাড়ির কেসমত ফকির ওরফে দুলাল ফকির। চলতি বছরের ১৭ মার্চ বিকালে বাড়িতে একা ছিল মেয়ে জান্নাতুন নিসা। সে বাড়ির মালিকের ছোট মেয়ে।

১৬৪ ধারায় দেয়া জবানবন্দিতে কেসমত ফকির জানায়, অবুঝ শিশু জান্নাতুনকে প্রথমে আদর করে নিজের ঘরে ডেকে নিয়ে যায় সে। পরে ঠাণ্ডা মাথায় ধারালো বটি দিয়ে টুকরা টুকরা করে হত্যা করে।

সে জানায়, তোফাজ্জল হোসেন টুকু মিয়ার আরেক স্ত্রীর ছেলে ইউসুফ। ইউসুফের স্ত্রী সালমা বেগম। পাশাপাশি বাড়িতেই থাকে তারা। ছোট শাশুড়িকে শায়েস্তা করতে জান্নাতুনকে হত্যার পরিকল্পনা করে সে। কেসমত ফকিরকে মাত্র ২০ হাজার টাকায় কাজটি করতে রাজি হয়। এরপর সুযোগমতো নির্মমভাবে হত্যা করা হয় নিষ্পাপ জান্নাতুনকে।

পুলিশ জানায়, ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিল ঘাতক কেসমত ফকির। প্রকৃত নাম ঠিকানা কিংবা ছবি না থাকায় কিছুতেই তাকে ধরা সম্ভব হচ্ছিল না।

পুলিশ সুপার জানান, গত ২৪ মার্চ অভয়নগরের ধোপাদি এলাকার সুহাসিনী (৬৫) নামের এক বৃদ্ধার সঙ্গে কাপড় বিক্রির সময় কথা কাটাকাটির জেরে দা দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। পালিয়ে যাওয়ার সময় জনতা হাতে নাতে ফেরিওয়ালা বেশে থাকা কেসমত ফকির ওরফে দুলাল ফকিরকে ধরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। পরে আহত ওই নারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করে। অভয়নগর থানায় দস্যুতাসহ একটি খুনের মামলা দায়ের করা হয় ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

ফেরিওয়ালার বেশে মানুষ খুনের এ খবর স্থানীয় একটি পত্রিকায় ছাপানো হয়। ওই খবরের সূত্র ধরে অভয়নগর থানা পুলিশের কাছ থেকে কেসমত ফকির ওরফে দুলাল ফকিরের ছবি সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট কোটচাঁদপুর থানা পুলিশ। সেই ছবি দেখানো হয় নিহত জান্নাতুন নিসার বাবাকে দেখানো হলে তাকে শনাক্ত করেন তিনি। এরপর জান্নাতুন হত্যা মামলায় কেসমত ফকিরকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতের কাছে পুলিশ রিমান্ডের আবেদন জানান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোটচাঁদপুর থানার ওসি মো. মাহবুবুল আলম। আদালত দুইদিনের পুলিশ রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয়।

বৃহস্পতিবার তাকে যশোর সেন্ট্রাল জেল থেকে ঝিনাইদহে আনা হয়। শুক্রবার সে ১৬৪ ধারায় স্থানীয় আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেয় সে। তার বর্ণনা শুনে বিচারকসহ পুলিশ কর্মকর্তারা চমকে ওঠেন।

এদিকে পুলিশ জানায়, কেসমত ফকিরের দেয়া তথ্যর ভিত্তিতে কোটচাঁদপুর উপজেলা শহর থেকে সালমাকে আটক করা হয়েছে।

শীর্ষ সংবাদ:
মাথাপিছু আয় বেড়ে এখন ২০৬৪ ডলার         বাতিল হচ্ছে পিইসি-জেএসসি পরীক্ষা         গাজীপুরে পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভ, আড়াই ঘন্টা মহাসড়ক অবরোধ         ব্রাজিলে কমেছে সংক্রমণ, বেড়েছে সুস্থতা         বিতর্কিত নির্বাচনে উত্তাল বেলারুশ         করোনার ‘প্রকৃত তথ্য’ জানানোয় ইরানে পত্রিকা বন্ধ !         টিকটকে ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার প্রমাণ নেই ॥ সিআইএ         তাইওয়ানে যুক্তরাষ্ট্রের মন্ত্রীর সফরে নিয়ে ক্ষুব্ধ চীন         ব্রিটেনে মহাত্মা গান্ধীর চশমা নিলামে         বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার মৃত্যু, ২ লাখের বেশি শনাক্ত         করোনা কোনো মৌসুম মানে না : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা         ক্রমবর্ধমান চাপের মুখে লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ         ট্রাম্পের ব্রিফিংকালে হোয়াইট হাউসের বাইরে গোলাগুলি         বার্মিংহামে প্লাস্টিক ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ আগুন         হায় স্বাস্থ্যবিধি! অস্তিত্ব শুধু কাগজে কলমে         বন্যা দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে, সতর্ক থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর         সিনহা হত্যাকাণ্ডের নেপথ্য ঘটনা এখনও স্পষ্ট নয়         সরকারের পদক্ষেপে সিনহার মা বোনের সন্তোষ         ওসি প্রদীপসহ চার আসামিকে রিমান্ডে চায় র‌্যাব         বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা বিনামূল্যে ফসলের বীজ-চারা পাবেন        
//--BID Records