মঙ্গলবার ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ০৭ জুলাই ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

লকডাউন, হার্ড ইমিউনিটি ও বাংলাদেশ

লকডাউন, হার্ড ইমিউনিটি ও বাংলাদেশ

দেশের অনেক মানুষ লকডাউন খুলে দেবার পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন অনেকে বিপক্ষে। আসলে এই অচলাবস্থার অবসান আমরা সবাই চাই। কিন্তু কিভাবে? আসুন সহজভাবে জেনে নেই-

আসলে লকডাউন কি?

একটু সহজভাবে যদি চিন্তা করি; আমরা নিশ্চয়ই চিড়িয়াখানা দেখেছি। ওখানে কি হয়? ভয়ঙ্কর সব জন্তুদের খাঁচায় ভরে রেখে বাইরে থেকে তা আমরা দেখি। আবার চিন্তা করুন সাফারি পার্কগুলোর কথা। এখানে জন্তুরা বাইরে ঘুরে বেড়ায় আর আমরা গাড়ির খাঁচায় থেকে ঘুরে ঘুরে ওদের দেখি।

লকডাউন হলো সাফারি টেকনিক। করোনাভাইরাসকে বাইরে ছেড়ে দিয়ে আমরা এখন ঘরে আটকা।

লকডাউন খুলে দেয়ার কি কি পদ্ধতি থাকতে পারে?

পদ্ধতি-১

এখন যদি সাফারি থেকে চিড়িয়াখানা টেকনিকে আমাদের যেতে হয় বা লকডাউন খুলে দিতে হয় তবে করোনাভাইরাসকে খাঁচায় আটকাতে হবে। কিন্তু ভাইরাস তো দেখা যায় না, একে আটকাবেন কিভাবে? আসলে আটকে দিতে হবে এই ভাইরাস বহনকারীকে। এই বহনকারী চিহ্নিত করতে আমাদের প্রচুর টেস্ট করতে হবে। পজেটিভ সব রোগীকে এবং তাদের সংস্পর্শে যারা এসেছিলেন সবাইকে আলাদা করে ফেলতে হবে। যখন এই কাজটি সমাপ্ত হবে তখন আমার কিছু সময় নেব আর পর্যবেক্ষণ করব। এভাবেই একসময় সম্ভব লকডাউন খুলে দেয়া।

পদ্ধতি -২

এটি হাজার বছরের পুরনো পদ্ধতি। ডারউইনের ঝঁৎারাব ঃযব ভরঃঃবং থিউরি এটি। সামনে এসে রোগ মোকাবেলা পদ্ধতিও বলা যায় একে। এই পদ্ধতিতে আপনি যখন তখন লকডাউন খুলে দিতে পারেন। এতে প্রচুর মানুষ আক্রান্ত হবে। কেউ মারা যাবে, বাকিরা সুস্থ হয়ে যাবেন। যারা সুস্থ হবেন তারা প্রাকৃতিক করোনাভাইরাস প্রতিরোধ ক্ষমতা পেয়ে যেতে পারেন। এই পদ্ধতিতে দুর্বলরা ঝরে পড়ে করোনা প্রতিরোধী সবল সমাজ গঠিত হবে।

পদ্ধতি -৩

এটি ধীরে চলো নীতি। লকডাউন সামান্য শিথিল করে দেখা এর কি প্রভাব। সঙ্গে পরীক্ষা আর রোগী শনাক্ত অব্যাহত রাখা। প্রান্তিক জনগণকে পর্যাপ্ত খাদ্য সরবরাহ নিশ্চিত করা, ছোট ব্যবসাকে ভর্তুকির আওতায় আনা। প্রচুর প্রচারণার মাধ্যমে জনগণকে এই ভাইরাস কিভাবে ছড়ায় আর তা থেকে কিভাবে বাঁচা যায় তার কার্যকরী অনলাইন, টেলিভিশন বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম দিয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া।

কোনটার কি সুবিধা-অসুবিধা?

চিড়িয়াখানা টেকনিকের জন্য দরকার খুব শক্তিশালী পরিকল্পনা, আধুনিক ব্যবস্থা। র‌্যাপিড টেস্টিং। তবে এর সফলতায় ঝুঁকি কম, প্রাণহানির আশঙ্কা খুবই কম। তবে এই কাজ সময়সাপেক্ষ তাই লকডাউন তুলতে সময় লাগবে এবং অর্থনৈতিক ক্ষতি হবে। ডারউইন পদ্ধতি সহজ, আদিম। তবে এতে ব্যাপকভাবে প্রাণহানি হতে পারে, ছড়িয়ে পড়তে পারে আতঙ্ক। স্বাস্থ্য ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়তে পারে। ফলে এখানে আরও বড় আর্থিক ক্ষতিতে পড়তে পারে দেশ।

পরিশেষে বলা যায় লকডাউন তোলা না তোলা বিষয়ে বাংলাদেশ খুব বড় সঙ্কট আর সিদ্ধান্তহীনতায় পড়তে পারে। ভুল সিদ্ধান্তের বড় খেসারত দিতে হতে পারে। তাই এক্ষেত্রে ধীরে চলো নীতি সর্বোত্তম।

ডাঃ মোহাম্মদ আলী

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও গবেষক

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস

মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট, ঢাকা।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
১১৭৬১০৭৩
আক্রান্ত
১৬৮৬৪৫
সুস্থ
৬৭৫৫৩২৪
সুস্থ
৭৮১০২
শীর্ষ সংবাদ:
রিজেন্ট হাসপাতাল সিলগালা         সংসদের মুলতবি অধিবেশন বসছে বুধবার         এক কোটি দুস্থ ১০ কেজি করে চাল পাবেন         কুরবানির পশু পরিবহন করবে বাংলাদেশ রেলওয়ে : রেলমন্ত্রী         লঞ্চ দুর্ঘটনা : হত্যাকাণ্ড প্রমাণিত হলে ‘হত্যা মামলা’ হবে : নৌপ্রতিমন্ত্রী         বিজিবির ১১৯ মুক্তিযোদ্ধার গেজেট বাতিলের প্রজ্ঞাপন স্থগিত         করোনা ভাইরাস ॥ ব্রাজিলে মৃত্যু ৬৫ হাজার ছাড়াল         দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৫৫ জনের, নতুন শনাক্ত ৩০২৭         শুল্ক কমিয়ে বিদেশ থেকে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত         করোনা ভাইরাস ॥ চিকিৎসক নিয়োগে আসছে বিশেষ বিসিএস         পাপুলকাণ্ডে রাষ্ট্রদূতের বিরুদ্ধে অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে ॥ পররাষ্ট্রমন্ত্রী         উপনির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই ॥ ইসি সচিব         বান্দরবানে জনসংহতির সংস্কারপন্থি ছয়জনকে গুলি করে হত্যা         দাউদকান্দিতে প্রাইভেটকার খাদে পড়ে একই পরিবারের ৩ জন নিহত         এবার মাশরাফির স্ত্রীও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত         জাতীয় পার্টিতে নতুন দুই উপদেষ্টা         দুই আসনের উপনির্বাচনকে অগ্রহণযোগ্য বলল বিএনপি         কিশোরগঞ্জে শোক-শ্রদ্ধায় শোলাকিয়ায় জঙ্গী হামলায় নিহতদের স্মরণ         করোনা ভাইরাসে ভারতে মৃত্যু ছাড়াল ২০ হাজার         টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে দুই ইয়াবা কারবারি নিহত        
//--BID Records