বুধবার ৭ আশ্বিন ১৪২৭, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

নান্দাইলে সরকারী শেডে অবৈধ দোকান ॥ রাস্তা দখল করে ব্যবসা

সংবাদদাতা, নান্দাইল, ময়মনসিংহ, ২৮ জুলাই ॥ উপজেলার পৌরসভা এলাকায় নান্দাইল বাজারে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম্য চরম আকার ধারণ করেছে। এসব ব্যবসায়ীরা সরকার কর্তৃক নির্ধারিত শেডে না বসে রাস্তা দখল করে নির্বিঘ্নে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এতে ক্রেতাদের চলাচলে দুর্ভোগসহ গদিঘর ব্যবসায়ীদের অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, হাসপাতাল, পৌরসভা, উপজেলাসহ সরকারের বিভিন্ন দফতরে আসা-যাওয়া করতে হয় নান্দাইল বাজারের পাশের রাস্তা দিয়ে। এটি উপজেলার প্রাচীন ও সবচেয়ে বৃহৎ একটি বাজার। এর আয়তন ১ একর ৪৫ শতক। বাজারের উত্তর পূর্ব ও পশ্চিম দিকে রয়েছে ডিসিসি রাস্তা। ভেতরে পণ্য সামগ্রী বিক্রির জন্য রয়েছে পৃথক ১২টি শেড। চারপাশে খোলা শেড রয়েছে আরও ৪টি। চাল, মাছ, মাংস ও শুঁটকি বিক্রির জন্যও রয়েছে পৃথক শেড। যেগুলো ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য বরাদ্দ। কিন্তু তারা এসব শেড ব্যবহার না করে নিয়মের তোয়াক্কা না করে ইচ্ছে মতো অন্যদের কাছে ভাড়া দিয়ে বা পণ্য মজুদ রেখে নিজেরা রাস্তায় বসে কেনাবেচা করছে। এতে বাজারে ঢোকার রাস্তা ও গলি বন্ধ হয়ে ক্রেতাদের চলাচলের অসুবিধা সৃষ্টি হচ্ছে। নিয়ম অমান্য করে কেউ কেউ শেডগুলোতে স্থায়ী ঘর নির্মাণ করে পাইকারি ব্যবসা ও মুদি দোকান চালাচ্ছেন। এই বিষয়ে বাজারের একাধিক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী জানায়, বাজারের ভেতরে ক্রেতা না যাওয়ার কারণে তারা বাধ্য হয়ে রাস্তায় বসেছেন। কোন কোন ব্যবসায়ী জানিয়েছে বাজারের অংশের শেডগুলো দখলমুক্ত করা হলে তারা রাস্তা থেকে শেডে ফিরে আসবেন।

বাজারের গদিঘর ব্যবসায়ী অরবিন্দ পাল বলেন, আমরা সরকারকে কর দিয়ে ব্যবসা করি। রাস্তা বন্ধ করে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা দোকান বসানোর কারণে আমাদের পণ্য নিয়ে গাড়ি বাজারে ঢুকতে পারে না। তাই আমাদের সুবিধার বিষয়টি প্রশাসনের লোকজনের দেখা উচিত। অন্য ব্যবসায়ী রনজিত দত্ত জানায়, রাস্তায় দোকান বসানোর বিষয়ে বিভিন্ন জায়গায় ধর্ণা দিয়েও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না তারা। বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেন বলেন, অবৈধ ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদের জন্য প্রশাসনের দ্বারস্থ হলেও কোন কাজ হয়নি।

নান্দাইল পৌরসভার কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র রেজাউল করিম রিপন বলেন, উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় বাজার থেকে অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু প্রশাসন কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। নান্দাইল পৌরসভার সাবেক মেয়র একেএম আজিজুল ইসলাম পিকুল বলেন, তার আমলে বাজারে শৃঙ্খলা ছিল। এখন হযবরল অবস্থা বিরাজ করছে। নান্দাইল পৌরসভার মেয়র রফিক উদ্দিন ভূইয়া বলেন, বিকল্প জায়গার ব্যবস্থা না করে এসব ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ করা যাবে না। জায়গা পেলে তারপর উচ্ছেদের চেষ্টা করবেন তিনি। সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদা আক্তার জনকণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা কয়েকবার অবৈধ ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ করেছি। কিন্তু টাকা নিয়ে তাদের আবার বসার সুযোগ করে দেয় সংশ্লিষ্ট ইজারাদাররা। তবে অচিরেই অভিযান পরিচালনা করে এসব অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করা হবে’।

শীর্ষ সংবাদ:
প্রতিরোধের প্রস্তুতি ॥ শীতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা         বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাস্তবসম্মত রোডম্যাপ চাই         সাউদিয়ার টিকেট নিয়ে হাহাকার- ক্ষোভ প্রবাসীদের         স্বাস্থ্যখাত যেন লুটপাটের সোনার খনি         নেদারল্যান্ডস-নিউজিল্যান্ড থেকে পেঁয়াজ আসছে         করোনায় দেশে মৃত্যু পাঁচ হাজার ছাড়িয়েছে         জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দিনরাত কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী         ৮ বিভাগে ৭১ উপজেলায় প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে         শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার আগে এইচএসসি পরীক্ষা হচ্ছে না         কুকুর নিধন কিংবা অপসারণ করবে না উত্তর সিটি         জলবায়ু পরিবর্তনে ঠিক থাকছে না শরতের আবহাওয়া         স্ত্রীর কথায় হাতি কিনলেন দরিদ্র কৃষক         অবশেষে কালুরঘাটে সড়ক-রেল সেতু নির্মাণ হচ্ছে         জার্মানির সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে কাজ করতে হবে : স্পিকার         অর্থনীতি সচল রেখে করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ মোকাবিলা করা হবে : মন্ত্রিপরিষদ সচিব         ৫৪ হাজার রোহিঙ্গাকে ফেরত দিতে চায় সৌদি : পররাষ্ট্রমন্ত্রী         শ্রমিকের বেতন নিয়ে তালবাহানা মানা হবে না : সাকি         আইন অনুযায়ী নুরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         বাড়ির পাশ দিয়ে রাস্তা নেয়ার জন্য বাড়তি সড়ক না নির্মাণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর         কারা ডিআইজি বজলুরের সম্পতি ক্রোক ও ব্যাংক হিসাব ফ্রিজের নির্দেশ