শুক্রবার ১৫ মাঘ ১৪২৮, ২৮ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

মহামিলনের আনন্দ

শংকর পাল চৌধুরী ॥ কর্ম উপলক্ষে ঢাকা ও বিভাগীয় শহরে বসবাস করে লাখ লাখ মানুষ। ঈদ উপলক্ষে নাড়ির টানে গ্রামে চলে যায় বিপুলসংখ্যক মানুষ প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেয়ার জন্য। কিন্তু দুঃখের বিষয় বাড়ি যাওয়ার পথে তাদের অবর্ণনীয় কষ্ট পোহাতে হয়। তার পরও নাড়ির টানে বিপুলসংখ্যাক মানুষ শহর ছাড়ছে। শহর থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার জন্য রয়েছে মহাসড়ক, রেলপথ এবং নৌপথ। ঈদ উপলক্ষে সড়কগুলোতে যাতায়াতের চাপ বাড়ায় যাত্রীদের কষ্ট পোহাতে হয়। যানবাহনে টিকেটের অপ্রতুলতা, সড়কগুলোর বেহাল দশা, যানজট, রাস্তায় ভোগান্তি ফেরিস্বল্পতা ও পারাপারে সঙ্কট নানা বিপত্তি পেরিয়ে যারা শহর ছাড়ছেন, তাদের চোখে-মুখে থাকে মহামিলনের আনন্দ। ঈদ যতই আনন্দের হোক ঈদে বাড়ি ফেরাটা অনেকের কাছেই কষ্টের। বাস, ট্রেন, লঞ্চের টিকেট সংগ্রহ করতে যে কি পরিমাণ ঝামেলা পোহাতে হয় তা ভুক্তভোগীরা জানেন। বাস ট্রেন কিংবা লঞ্চ সবখানেই থাকে ঘরমুখো ফেরা মানুষের উপচেপড়া ভিড়, অগ্রিম টিকেটের জন্য। রোদ, ঝড় বৃষ্টি উপেক্ষা করে ভোর রাত থেকে বিকেল অবধি লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার পর শোনা যায় টিকেট শেষ। তারপরও বাড়ি ফিরবে ভালবাসার টানে নাড়ির টানে। প্রতিবছর একই চিত্র থাকায় ঈদে ঘরে ফেরার মানে হলো দুর্ভোগ দুশ্চিন্তা। মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে ছাদের ওপর যাত্রীদের আশ্রয় নেয়া মানে মৃত্যুকে ডেকে আনা। সবচেয়ে নিরাপদ ও আরামদায়ক ভ্রমণ হলো রেলপথ। এ্যাপে ব্যর্থ হয়ে কাক্সিক্ষত টিকেট না পাওয়ায় কাউন্টারে এসে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকেট কিনেও গাদাগাদি-ঠাসাঠাসি করে গন্তব্যে যেতে হয়। তারপরও রেলপথ নিরাপদ। প্রতিবছর পুরনো লঞ্চ ও স্টিমারকে বডিতে ঝালাই করে রং লাগিয়ে যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রস্তুত করে মালিকপক্ষ। লঞ্চ ও স্টিমারগুলোতে ধারণক্ষমতার অধিক যাত্রী উঠানো হয়। ফলে দুর্ঘটনা প্রাণহানিও ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। তারপরও বাস ট্রেন লঞ্চের কোথাও সিট না পেয়ে গাদাগাদি- ঠাসাঠাসি করে ছাদে কিংবা দাঁড়িয়ে পাড়ি দেবে দীর্ঘপথ। দাঁড়িয়ে রয়েছে মা-বাবা-ভাই-বোনসহ আত্মীয়স্বজন।

মাধবপুর, হবিগঞ্জ থেকে

শীর্ষ সংবাদ:
সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে নারায়ণগঞ্জের জাহিন নিটওয়্যার্সের আগুন         করোনা ভাইরাসে আরও ২০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৪৪০         শিল্পী সমিতির নির্বাচন ॥ ভোট দিয়েছেন ৩৬৫ জন, চলছে গণনা         শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পদত্যাগের আন্দোলন চলবে, ঘোষণা শিক্ষার্থীদের         মন্ত্রীর অনুরোধ না রেখে ৬ তারিখের আগেই দাম বাড়লো ভোজ্যতেলের         মাত্র ২ সরকারি হাসপাতালে রয়েছে স্ট্রোক ব্যবস্থাপনার সুবিধা!         বিএনপি দেশের বিরুদ্ধে সারা দুনিয়ায় অপপ্রচার চালাচ্ছে ॥ তথ্যমন্ত্রী         চিকিৎসা পাওয়া আমার মৌলিক অধিকার ॥ মাহবুব তালুকদার         ইসিকে শক্তিশালী করতে সব রকম পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে ॥ সেতুমন্ত্রী         ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধ করার ইচ্ছা রাশিয়ার নেই ॥ লাভরভ         রোহিঙ্গাদের জন্য ২০ লাখ মার্কিন ডলার সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা জাপানের         টাঙ্গাইলে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত, আহত ২         সৈয়দপুরে নিজ বাসা থেকে কাপড় ব্যবসায়ী মরদেহ উদ্ধার         পাকিস্তানে সন্ত্রাসীদের সঙ্গে সংঘর্ষে ১০ সেনাসদস্য নিহত         জবিতে ভর্তির ষষ্ঠ মেধাতালিকা প্রকাশ ॥ ফাঁকা ৬২২ আসন         গ্রামাঞ্চলের মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় আমাদের নজর দিতে হবে ॥ পরিকল্পনামন্ত্রী         ৬৯ এর গণঅভ্যূত্থানে শহীদ আলাউদ্দিনের মৃত্যুবার্ষিকী আজ         রাশিয়ার গ্যাস পাইপলাইন বন্ধের হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের         বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে চিলির বিপক্ষে আর্জেন্টিনার জয়