ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯

‘বন্ধু তোমায় মনে পড়ে’

প্রকাশিত: ১২:০২, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

‘বন্ধু তোমায় মনে পড়ে’

জুলফিকার জাহেদীর ‘মেঘলা আকাশ’- জুলফিকার জাহেদী ভাই আমাকে খুব শ্রদ্ধা ও আদর করেন। এর আগেও তাঁর সঙ্গে কাজ করেছি। ‘মেঘলা আকাশ’ এই গানটি করে খুবই ভাল লাগছে এবং সবচেয়ে বড় ব্যাপার যে গানটির কাজ আমরা কলকাতায় খুবই যত্নের সঙ্গে করেছি শুধু দর্শকের যেন ভাললাগে। গানটি জাহেদী ভাই নিজে লিখেছেন ও সুর করেছেন। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন অভিষেক। সঙ্গে কণ্ঠ দিয়েছেন অভিজিত। গানের জগতে শুরুটা কীভাবে? বাবা শাক্যপদ বড়ুয়া বৌদ্ধধর্মীয় সমাজের একজন বড় কীর্তনীয়া। ছোট কাকু সুমির বড়ুয়া তপু স্বপ্ন দেখতেন আমাকে শিল্পী বানানোর ও বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নিয়ে যেতেন গান করতে, তার কাছেই গানের হাতেখড়ি। ৪ বছর বয়সে আমার গান শুনে মুগ্ধ হয়ে শ্রদ্ধেয় শ্রাবণী সাহা আমাকে গান শেখাতে চাইলেন ও সেই থেকে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা অর্জন শুরু“হলো। ২০০৫ সালে ক্লোজআপে প্রাথমিক বাছাই পর্বে বাদ পড়ে গেলে ওস্তাদ মিহির লালা স্যারের কাছে উচ্চাঙ্গসঙ্গীত শিখেছি ১ বছর। তারপর ২০০৬ সালে ক্লোজআপ ওয়ানে নির্বাচিত হয়ে মিডিয়ায় পদার্পণ। আর নতুন কোন গান আসছে? ইউটিউবে সিলন মিউজিক লাউন্জ নামক অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধেয় কিংবদন্তি আরতী মুখার্জীর ‘তখন তোমার একুশ বছর বোধহয়’ ও শ্রদ্ধেয় কিংবদন্তি লতা মুঙ্গেশকর এর ‘আজ মন চেয়েছে’ গেয়ে দর্শকের প্রচুর ভালবাসা পেয়েছি। তারই ধারাবাহিকতায় খুব শীঘ্রই একই চ্যানেলে আরও কয়েকজন শ্রদ্ধেয় কিংবদন্তির নতুন গান নিয়ে আসছি। স্টেজের ব্যস্ততা কেমন? স্টেজের ব্যস্ততা প্রচুর। সরাসরি দর্শকের সামনে গান পরিবেশন করে সবার ভালবাসা নিতে খুবই ভাল লাগে। কখনও হয়রানি অনুভব হয় না, ব্যস্ততাকে ব্যস্ততা মনে হয় না, বরং ভাললাগা অনুভব করি। কয়েকদিন আগে খুলনা, নোয়াপাড়া ও নারায়ণগঞ্জ গান পরিবেশন করেছি। মঙ্গলবার টাঙ্গাইল গতকাল দাউদকান্দি স্টেজ প্রোগ্রাম করেছি। আগামী ৭-৮-৯ মার্চ তিন দিন ঢাকায় অনুষ্ঠানে গান গাইতে হবে। বর্তমানে আধুনিক প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে যারা জনপ্রিয় হচ্ছেন এই জনপ্রিয়তা কি তারা ধরে রাখতে পারবেন? কারা গান ধরে রাখতে পারবেন আর কারা পারবেন না এসব নিয়ে বিচার করার দায়িত্ব বা বলার অধিকার আমার কিংবা আমার সমবয়সী কারও নয়। আমরা যেমন আমাদের কাজ করে যাচ্ছি তেমনি দর্শকও ভাল গানকেই মূল্যায়ন করছে। তাই টিকে থাকা না থাকা দর্শকের উপরই নির্ভর করবে। গান ছিল শোনার বিষয়। কিন্তু এখন গান মানেই দেখার... গান আগে শুনবার বিষয় ছিল। এখন দেখার বিষয়ও হয়েছে। আমাদেরও ক্লোজআপে দর্শক শুধু শুনেনি, দেখেছেও। তাই মিউজিক ভিডিওনির্ভর গানকে আমি সমর্থন করি। গান আগের মতো স্থায়ী হচ্ছে না। এর কারণ কি বলে মনে করেন? ভাল গান স্থায়ী হয়। তার প্রমাণ আমার ‘বন্ধু তোমায় মনে পড়ে’ গানটি। লিখেছেন আশরাফ বাবু, সুর করেছেন পার্থ বড়ুয়া। ১২ বছর ধরে এই গান আমাকে দর্শকের সঙ্গে বেঁধে রেখেছে। ভবিষ্যত পরিকল্পনা? গানের মাধ্যমেই দর্শকের মাঝে বেঁচে থাকতে চাই। তাই দর্শকশ্রোতাদের সুন্দর গান উপহার দেয়াই আমার ভবিষ্যত পরিকল্পনা।