রবিবার ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৯ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

নিউইয়র্কে রোহিঙ্গা সম্মেলন ॥ শাস্তি না হলে মিয়ানমার সেনাবাহিনী থামবে না

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত দুই দিনব্যাপী এক সম্মেলনে বক্তারা রোহিঙ্গা নিপীড়নের দায়ে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন। তারা মনে করেন, জবাবদিহি নিশ্চিতে কার্যকর পদক্ষেপ না থাকলে মিয়ানমার সেনাবাহিনী সংযত হবে না। মিয়ানমারে শুধু রোহিঙ্গারা নয়, সংখ্যালঘু সব সম্প্রদায়ই নিশ্চিহ্ন হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে। সঙ্কট সমাধানে প্রয়োজন রাজনৈতিক সদিচ্ছার। খবর আল জাজিরার।

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর পূর্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোবদ্ধ সহিংসতা জোরাল করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। সন্ত্রাসবিরোধী শুদ্ধি অভিযানের নামে শুরু হয় নিধনযজ্ঞ। হত্যান্ড ধর্ষণসহ বিভিন্ন ধারার মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত হতে থাকে ধারাবাহিকভাবে। এমন বাস্তবতায় নিধনযজ্ঞের বলি হয়ে রাখাইন ছেড়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসতে বাধ্য হয় প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা। আগে থেকে উপস্থিত রোহিঙ্গাদের নিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের সংখ্যা দাঁড়ায় প্রায় দশ লাখে। এসব রোহিঙ্গা বাংলাদেশের বিভিন্ন আশ্রয় শিবিরে বসবাস করছে। রোহিঙ্গাদের বিপন্নতার অবসান ঘটানোর প্রত্যাশা নিয়ে ৮ ও ৯ ফেব্রুয়ারি নিউইয়র্ক সিটিতে এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করেছে ফ্রি রোহিঙ্গা কোয়ালিশন (এফআরসি)। যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বার্নার্ড কলেজে এরআরসির দুই দিনের সম্মেলনে এক হচ্ছেন বিশ্বের অনেক শিক্ষাবিদ, মানবাধিকারকর্মীসহ জাতিসংঘের আইনজীবীরা। সম্মেলন শুরুর আগে এক বিবৃতিতে রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে ইসরায়েলবিরোধী বিশ্ব-প্রতিরোধ আন্দোলনের অনুপ্রেরণা কাজে লাগিয়ে মিয়ানমার বর্জন কর্মসূচী সম্মেলন থেকে শুরু করার কথা জানিয়েছেল এফআরসি। এক বিবৃতিতে সংস্থাটি জানায়, ফিলিস্তিনি জাতির মুক্তির পক্ষে বিশ্বব্যাপী যেমন করে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে বিডিএস আন্দোলন পরিচালিত হচ্ছে, তেমন করে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্দোলন সংঘটিত করার চেষ্টা করছেন তারা। এফআরসির সমন্বয়ক মং জার্নি বলেছিলেন, ‘রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা আউং সান সুচির নেতৃত্বাধীন বেসামরিক সরকার, খুনী সেনাবাহিনী ও সরকারের বিদ্বেষ-বিভ্রান্তি ও বর্ণবাদী রাজনীতির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত সামাজিক সংগঠনগুলোকে আমরা বয়কট করব। ঠিক যেমনটা করা হয়েছে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে বিডিএস আন্দোলনের মাধ্যমে।’ সম্মেলনে যুক্তরাজ্যে বসবাস করা রোহিঙ্গাদের সংগঠনের সভাপতি তুন খিন মন্তব্য করেছেন, জবাবদিহি নিশ্চিত ও বিচার বাস্তবায়নের দৃষ্টিগ্রাহ্য কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হলে নিপীড়ন বাড়তে থাকবে। তার ভাষ্য, ‘জবাবদিহিতা নিশ্চিতে যদি কোন পদক্ষেপ নেয়া না হয় তাহলে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী কেন থামবে? তারা জানে, তাদের কর্মকাণ্ডের জন্য তাদের কোন শাস্তি পেতে হবে না।’ ‘জেনোসাইড ওয়াচের’ গ্রেগরি স্ট্যানটনও সম্মেলনে বলেছেন, রোহিঙ্গারা সুরক্ষা, ন্যায়বিচার ও প্রত্যাবাসনের হকদার। রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা চালানো মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সদস্যদের নাম তালিকাভুক্ত করে রাখা উচিত, যাতে তাদের বিচারের আওতায় আনা যায়। সম্মেলনে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে যুক্ত হয়েছিলেন জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি ইয়াংঘি লি। তিনি বলেছেন, রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনী নতুন ঘাঁটি তৈরি করছে জানতে পেরে তিনি শঙ্কা বোধ করছেন। কানাডাভিত্তিক রোহিঙ্গা অধিকার কর্মী ইয়াসমিন বলেছেন, রোহিঙ্গাদের একটি প্রজন্ম ঝরে গেছে আশ্রয় শিবিরে থাকার কারণে। তারা যথাযথ শিক্ষা-খাদ্য পায়নি। পরবর্তীতে কর্মসংস্থানের সুযোগ থেকেও বঞ্চিত হবে। ‘সেন্টার ফর দ্য স্টাডি অব জেনোসাইড এ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের’ চেয়ারম্যান এ্যালেক্স হিন্টন বলেছেন, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে রাজনৈতিক সদিচ্ছা প্রয়োজন।

শীর্ষ সংবাদ:
কলকাতা থেকে খুলনার পথে বন্ধন এক্সপ্রেস         ঢাকা থেকে ১৬৫ যাত্রী নিয়ে কলকাতার উদ্দেশ্য মৈত্রী এক্সপ্রেস         বরিশালে সড়ক দূর্ঘটনায় ১০ জন নিহত         দাম কমানোর টার্গেট ॥ সংসদে বাজেট পেশ ৯ জুন         ৫৭ বছর পর ঢাকা থেকে ‘মিতালি এক্সপ্রেস’ যাবে ভারতে         রাজনীতির মাঠ গরম করতে চায় বিএনপি         মাঙ্কিপক্সে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে তরুণরা         দুর্নীতির শ্বেতপত্র প্রকাশ করা হবে ॥ রিফাত         পাহাড়ে বিচ্ছিন্নতাবাদী তৎপরতা দিন দিন বাড়ছে         ফিফা বিশ্বকাপ ট্রফি ঢাকায় আসছে ৮ জুন         আজ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী দিবস ॥ নানা আয়োজন         উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় কমিউনিটি রেডিও শক্তিশালী মাধ্যম         অবৈধ ক্লিনিক বন্ধে দেশজুড়ে অভিযান         ইয়াবা ও মানব পাচারে কমিশন পায় রোহিঙ্গা নারীরা         চলচ্চিত্র ব্যবসায় আশার আলো মিনি সিনেপ্লেক্স         সিলেটে ডায়রিয়াসহ পানিবাহিত রোগ বাড়ছে         বিএনপি খোমেনি স্টাইলে বিপ্লব করার দুঃস্বপ্ন দেখছে ॥ কাদের         শান্তিরক্ষীগণ পেশাদারিত্ব, দক্ষতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন : প্রধানমন্ত্রী         প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সময়োপযোগী কারিকুলাম প্রণয়নের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির         বাংলাদেশ আজ শান্তি ও সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত : রাষ্ট্রপতি