শুক্রবার ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

কলম্বিয়ার আখের খেতে উদ্ধার হয় ৪ টনের সোনার মুখোশ

কলম্বিয়ার আখের খেতে উদ্ধার হয় ৪ টনের সোনার মুখোশ

অনলাইন ডেস্ক ॥ কলম্বিয়ার ককা উপত্যকায় একটি আখের খেতে ট্রাক্টর চালাচ্ছিলেন এক কৃষিজীবী। আচমকাই ধাতব এক শব্দ। মাটির নীচ থেকে উদ্ধার হয় প্রায় চার টনের আস্ত সোনার মুখোশ। ফলে প্রকাশ্যে আসে মালাগানা সংস্কৃতির বেশ কিছু অজানা কথা। শুধুমাত্র একটা সোনার মুখোশকে কেন্দ্র করে খুন, লুঠপাট- একের পর ঘটনায় এর পর সরগরম হয়ে ওঠে ওই এলাকা। কলম্বিয়ার ককা উপত্যকায় পাওয়া এই সোনার মুখোশ প্রথম লুকিয়ে রেখেছিলেন ওই কৃষিজীবী। কিন্তু এই খবর চাপা থাকেনি। প্রায় ৫০০ বর্গমিটার বিস্তৃত ছিল এই চাষের জমি, যা পরে প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানের তকমা পায়। এই মুখোশের জন্য খুনোখুনিও হয়। ১৯৯২ সালে ওই একই এলাকা থেকে মালাগানা সংস্কৃতির বেশ কিছু প্রত্নতাত্ত্বিক সামগ্রী উদ্ধার হয়। এর মধ্যে অন্যতম একটা সোনার চিমটে, যা ভ্রূ ঠিক করতে ব্যবহার করতেন প্রাচীনকালের অভিজাত ব্যক্তিরা। প্রত্নস্থল থেকে সোনা লুঠের সময়ই ১৯৯৩ সালে এক ব্যক্তি এখানে খুন হন। চার টনের মুখোশ মেলায় শয়ে শয়ে সমাধি ধ্বংস করা হয় এর পর। আরও বেশি সোনা খুঁজে পাওয়ার লোভে লুঠ হতেই থাকে। ধীরে ধীরে প্রত্নতত্ত্ববিদদের কাছে ওই সংস্কৃতির নানা অজানা তথ্য সামনে আসে। স্থানীয় লুটেরাদের হাত থেকে ওই স্থানটি রক্ষা করতে সচেষ্ট হন তাঁরা। বহু গবেষণার পর সম্প্রতি জানা গিয়েছে, ৩০০ খ্রিস্টপূর্ব থেকে ৩০০ খ্রিস্টাব্দ অর্থাৎ প্রায় ৬০০ বছর পর্যন্ত স্থায়িত্ব ছিল এখানকার সভ্যতার। এই সংস্কৃতিকে বলা হত কালিমা সংস্কৃতি। মাটির নীচে সন্ধান মিলেছিল এই সভ্যতারই নানা সামগ্রীর। ইয়ামাস, ইয়োতোকো, সোনসো ও মালাগানা এই চার ভাগে বিভক্ত ছিল এই সংস্কৃতি। প্রাপ্ত প্রত্নসামগ্রী থেকে সেই চার রকম সংস্কৃতিরও আভাস মিলেছে। তার মধ্যেই সবচেয়ে নজরকাড়া ছিল সোনার মুখোশটি।সোনার বিভিন্ন সামগ্রী ছাড়াও রহস্যময় সমাধি ও সেরামিকের মডেলও পাওয়া গিয়েছে বেশ কয়েকটি। কলম্বিয়ার রাজধানী বোগোতার মুসেও দেল ওরো অর্থাৎ সোনার সংগ্রহশালায় রাখা রয়েছে এই প্রত্নসামগ্রীগুলি। প্রায় ১৫০টি মুখোশ ও গয়না মিলেছিল এই খননের ফলে। মিলেছিল প্রায় তত্কালীন আড়াই কোটি টাকা মূল্যের মু্দ্রাও। ইতিহাসবিদরা জানিয়েছেন, মৃত্যুর পর সমাধিস্থ করার সময় এই মারাত্মক বড় মুখোশ পরানো হত সেই সময়ের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিদের। এদের মধ্যে পুরোহিত ও অভিজাত ব্যক্তিরাও ছিলেন। কেউ কেউ এমনিও এই ধরনের মুখোশ ব্যবহার করতেন, এমনটাও বলেছেন কয়েক জন ইতিহাসবিদ। ২০১২ সাল পর্যন্ত এই স্থানে কড়া পাহারা থাকলেও লুঠের চেষ্টা হয়েছে বার বার। শুধু কৃষিকাজ নয়, নগরায়নের ফলে এই সংস্কৃতির বেশ কিছু প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানও ধ্বংস হয়েছে আগেই। তবে স্থানীয়দের মধ্যে এই প্রত্নস্থল নিয়ে উৎসাহ রয়েছে এখনও। তাঁরাই চেষ্টা করছেন এই সংস্কৃতি বাঁচিয়ে রাখার। সম্প্রতি একটি প্রদর্শনীও করার কথা চলছে এই সোনার মুখোশ-সহ অন্যান্য সামগ্রীগুলি নিয়ে। প্রাচীন আমলের ওই সোনার মুখোশের অমূল্য বলেই দাবি করেছেন ইতিহাসবিদরা।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

শীর্ষ সংবাদ:
অবৈধপথে ক্ষমতা দখলে ষড়যন্ত্রের গলি খুঁজছে বিএনপি ॥ কাদের         ইয়েমেনে পরাজিত সৌদি রাজা সালমান প্রলাপ বকছেন: ইরান         মার্কিন বিমানবাহী রণতরী পর্যবেক্ষণের ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করল আইআরজিসি         একসঙ্গে দুটি বিরল রোগে আক্রান্ত নবজাতক         করোনায় আরও ২১ জনের মৃত্য ॥ নতুন আক্রান্ত ১৩৮৩         জলবায়ু পরিবর্তন ॥ পৃথিবী রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর ৫ প্রস্তাব         সার্কভুক্ত দেশগুলোকে নিবিড় সহযোগিতার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর         লন্ডনে থানার ভেতর পুলিশ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা         বাংলাদেশ-ভারত সহযোগিতা নিছক দেনাপাওনার ঊর্ধ্বে ॥ রীভা গাঙ্গুলি         নিয়মতান্ত্রিকভাবেই ক্ষমতা হস্তান্তর করা হবে ॥ প্রতিশ্রুতি রিপাবলিকানদের         মহামারিতে বিশৃঙ্খলায় বিশ্ব ॥ নিরাপত্তা পরিষদে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়         হাতিয়ায় মাছধরা ট্রলার ডুবি, ২ জেলের মৃতদেহ         করোনা ভাইরাস ॥ যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত ৭০ লাখ ছাড়ালো         ভারত ছাড়ল হার্লে ডেভিডসন         সিংহের লেজ নিয়ে নাড়াচাড়া করবেন না ॥ ট্রাম্পকে ইরান         ১৩ ঘণ্টা পর নারায়ণগঞ্জের ট্রেন চালু         অর্থনীতি দ্রুত পুনরুদ্ধারই চ্যালেঞ্জ ॥ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় লকডাউন নয়         সরকারের সর্বাত্মক প্রচেষ্টায় সঙ্কট কাটল সৌদি প্রবাসীদের         একক নিয়ন্ত্রণের কোন কমিটি অনুমোদন নয়         দ্বিচারিতা আর ষড়যন্ত্রই বিএনপির রাজনৈতিক দর্শন ॥ কাদের