ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

ইয়াবা গডফাদারের মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে সংসদে বিল পাস

প্রকাশিত: ০৫:৩৮, ২৮ অক্টোবর ২০১৮

ইয়াবা গডফাদারের মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে সংসদে বিল পাস

সংসদ রিপোর্টার ॥ মাদক নির্মূলে কঠোর আইন পাস করেছে জাতীয় সংসদ। ইয়াবা (এ্যামফিটামিন), কোকেন, হেরোইন পরিবহন, কেনাবেচা, ব্যবসা, সংরক্ষণ, উৎপাদন, প্রক্রিয়াজাতকরণ, হস্তান্তর, সরবরাহ ইত্যাদি অপরাধের জন্য সর্বোচ্চ মৃত্যুদ- বা যাবজ্জীবনের বিধান রেখে সংসদে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ বিল-২০১৮ পাস হয়েছে। পাসকৃত বিলে মাদক বহনের পরিমাণ অনুযায়ী সাজা কমবেশির বিধান রাখা হয়েছে। কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এই আইনের অধীন অপরাধ সংঘটনে অর্থ বিনিয়োগ, সরবরাহ, মদদ ও পৃষ্ঠপোষকতা দিলেও একই ধরনের শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে। এছাড়া এই প্রথম মাদকসেবী ও মাদকব্যবসায়ীর পাশাপাশি মাদকব্যবসায় পৃষ্ঠপোষক/ অর্থলগ্নীকারী, মদদদাতাদেরও কঠোর শাস্তির মুখোমুখি করা হয়েছে পাসকৃত বিলে। স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শনিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে বিলটি পাসের প্রস্তাব করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আছাদুজ্জামান খাঁন কামাল। পরে বিলটি কণ্ঠভোটে পাস হয়। তবে বিলটির ওপর বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যদের আনীত জনমত যাচাই-বাছাই ও সংশোধনী প্রস্তাব কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। পাসকৃত বিলে কোকেন, কোকো মাদক চাষাবাদ, উৎপাদন বা প্রক্রিয়াজাতকরণের ক্ষেত্রে ২৫ গ্রামের বেশি হলে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদ- বা যাবজ্জীবন দেয়ার বিধান রাখা হয়েছে। আর ২৫ গ্রামের নিচে হলে কমপক্ষে দুই বছর ও সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদ-ের বিধান আছে। এছাড়া ইয়াবা বহনের ক্ষেত্রে এ্যামফিটামিনের পরিমাণ ২০০ গ্রামের বেশি হলে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড অথবা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং অর্থদ-ের বিধান রাখা হয়েছে। তবে ১০০ গ্রাম বা মিলিলিটার হলে সর্বনিম্ন ৫ বছর এবং সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। বিলে কেউ যদি সজ্ঞানে কোন মাদকদ্রব্য অপরাধ সংঘটনের জন্য তার মালিকানাধীন অথবা দখলি কোন বাড়িঘর, জায়গাজমি, যানবাহন, যন্ত্রপাতি অথবা সাজসরঞ্জাম কিংবা অর্থ সম্পদ ব্যবহারের অনুমতি দেন তাহলে সেটা অপরাধ বলে গণ্য হবে। এই অপরাধের শাস্তি সর্বোচ্চ ৫ বছরের কারাদণ্ড। এছাড়া লাইসেন্সপ্রাপ্ত না এমন কোন ব্যক্তির কাছে অথবা তার জায়গায় যদি মাদকদ্রব্য উৎপাদনে ব্যবহারযোগ্য কোন যন্ত্রপাতি, ওয়াশ অথবা অন্যান্য উপকরণ পাওয়া যায় সেটাও অপরাধ বলে গণ্য হবে। এর শাস্তি নূন্যতম ২ বছরের কারাদ-, সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ড।
monarchmart
monarchmart