ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯

রাশিয়ান ফুটবলেও ডোপিং!

প্রকাশিত: ০৬:৫৪, ২৬ জুন ২০১৮

রাশিয়ান ফুটবলেও ডোপিং!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় ব্যাপকহারে রাশিয়ার এ্যাথলেটরা নিষিদ্ধ ড্রাগ গ্রহণ করেছেন। এমন একটি তথ্য বেরিয়ে আসার পর ২০১৬ সালের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে রাশিয়ার অনেক এ্যাথলেটকেই অংশ নিতে দেয়া হয়নি। আবার এ বছর শীতকালীন অলিম্পিকে ছিল রাশিয়া নিষিদ্ধ। এবার রাশিয়া আয়োজন করেছে ফুটবল বিশ্বকাপ। এর আগেই একটি প্রতিবেদন ফিফার কাছে পাঠানো হয়েছে যেখানে রাশিয়ার ফুটবলারদেরও নিষিদ্ধ ড্রাগে আসক্তির বিষয়টি প্রমাণাদিসহ দেখানো হয়েছিল। কিন্তু ফিফা এ বিষয়টি এড়িয়ে গেছে! গত দুই যুগ ধরে বিশ্বের সকল ক্রীড়ার চেয়ে ফুটবলকেই সবচেয়ে বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরুর ১৮ মাস আগে বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে একটি মেইলে প্রতিবেদন ও ডকুমেন্টারি পাঠানো হয় যেখানে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় ফুটবলারদের ডোপিংয়ের বিষয়টি তুলে ধরা হয়। মেইলে জানানো হয়েছিল ২০১৪ সালের বিশ্বকাপে রাশিয়ার স্কোয়াডের ২৩ সদস্যই ডোপপাপে আক্রান্ত। ওই প্রতিবেদনে প্রায় শতাধিক খেলোয়াড়কে তদন্তাধীন দেখানো হয়েছিল। কিন্তু অভিযোগ উঠেছে এ বিষয়ে ফিফার তৎপরতা দেখানোর গতিটা খুবই ধীর। প্রমাণ খতিয়ে দেখার বিষয়টি নিয়েও খুব একটা ভালভাবে তারা প্রতিক্রিয়াশীল হয়নি। গত মাসে ফিফা রাশিয়ার ২৮ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াডের সবাইকে পরিচ্ছন্ন ঘোষণা করে এবং সে সময় জানায় ‘পর্যাপ্ত প্রমাণের’ ঘাটতি রয়েছে। তার সপ্তাহখানেক আগে ২৯তম খেলোয়াড়কে স্কোয়াড থেকে বাদ দেয়া হয়। তার নাম রাসলান কামবোলভ। তার বিষয়টি বেশ জটিল এমনটাই মনে করা হচ্ছে।