বুধবার ৮ আশ্বিন ১৪২৭, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

শুশুকদের জন্য নতুন প্রকল্প

  • ডলফিন সাধারণত লবণ পানিতে বাস করে। শুধু বাংলাদেশের শুশুক আর আমাজনের ‘বোতো’ এই দুই প্রজাতির ডলফিন সারা বছরই স্বাদু পানিতে থাকে। সেদিক দিয়ে শুশুক বিশ্বে খুবই বিরল প্রাণী

জুবায়ের বারি

ডলফিন সাধারণত লবণ পানিতে বাস করে। শুধু বাংলাদেশের শুশুক আর আমাজনের ‘বোতো’ এই দুই প্রজাতির ডলফিন সারা বছরই স্বাদু পানিতে থাকে। সেদিক দিয়ে শুশুক বিশ্বে খুবই বিরল প্রাণী। ২৫-৩০ বছর আগেও বাংলাদেশের নদীগুলোতে অনেক শুশুক বা ডলফিন দেখা যেত। কিন্তু এখন আর সেটা যাচ্ছে না। তাই ১৯৯৬ সাল থেকে বিপন্ন প্রাণীর তালিকায় নাম উঠে গেছে শুশুকের। শুশুকের তেল মাছ ধরার জন্য বেশ কার্যকর। তাই জেলেরা গণহারে শুশুক ধরছে। এছাড়া জাটকা ধরার জন্য যে কারেন্ট জাল ব্যবহার করেন জেলেরা, তাতেও মারা পড়ছে শুশুক।

বর্তমানে বিশ্বের অনেক প্রান্তেই লুপ্তপ্রায় প্রজাতি হয়ে দাঁড়িয়েছে শুশুক। এ্যামাজন নদীতে শুশুকদের কল্যাণে অভিনব এক প্রকল্প চালানো হচ্ছে।

ডাব্লিউডাব্লিউএফ-এর নেতৃত্বে এক অভিযানের আওতায় এই প্রথম ব্রাজিলের এ্যামাজন অঞ্চলে শুশুকদের পরীক্ষা করা হয়েছে। এ্যামাজনের এক শাখা নদীতে এক শুশুক মা তার শাবককে ডাঙ্গায় তুলে পরীক্ষা করে তাদের শরীরে জিপিএস ট্রান্সমিটার বসানো হয়েছে। অভিযানের প্রধান মার্সোলো অলিভেইরা বলেন, ‘গোলাপি রঙের এই শুশুক প্রজাতি সম্পর্কে আমাদের জ্ঞান খুবই সীমিত। তাদের বাসস্থান সম্পর্কে কিছু তথ্য পেলেও তাদের সংখ্যা, স্বাস্থ্য, রক্তের স্তর, প্যারাসাইট, বিষক্রিয়ার আশঙ্কা সম্পর্কে আমরা কিছুই জানি না।’

শুশুকদের সার্বিক চেকআপের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পশু চিকিৎসক, মেরিন বায়োলজিস্ট, জেলে ও প্রকৃতি সংরক্ষণকারীরা এই প্রথম একসঙ্গে কাজ করছেন। খুব দ্রুত কাজ সারতে হয়, কারণ ডলফিনরা ডাঙ্গার ওপর বেশিক্ষণ বেঁচে থাকতে পারে না। এর আগে কখনও কোন গোলাপি শুশুকের ওপর আলট্রাসাউন্ড পরীক্ষা চালানো হয়নি। পশু চিকিৎসকের জন্যও এটা সম্পূর্ণ নতুন অভিজ্ঞতা।

নতুন প্রকল্প

মায়ের ডাক্তারি পরীক্ষার সময় তার শাবকের উচ্চতা ও ওজন মাপা হয়েছে। প্রায় এক ঘণ্টা পর দুটি প্রাণীকে আবার নদীতে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। জেলেরা সাঁও মানুয়েল জা বারা নামের পাশের গ্রামেই থাকেন। এখানকার মানুষ নদীর ওপর খুব নিভর্রশীল। শুশুকদের মতো তাঁদের জন্যও বিশুদ্ধ পানি অত্যন্ত জরুরী। এ্যামাজন অববাহিকায় উপার্জনের পথ খুবই কম। তাই অনেকেই গ্রাম ছেড়ে চলে যান। বেআইনি হলেও কেউ কেউ সোনার খোঁজে লেগে পড়েন।

তবে সোনার খোঁজে যে পারদ ব্যবহার করা হয়, তা পরিবেশের জন্য অত্যন্ত বিপজ্জনক। শেষ পর্যন্ত এই পদার্থ মানুষ ও শুশুকের খাদ্যে স্থান পায়। তার ফলে এই প্রাণীদের কী হয়, গবেষকরা তা জানতে চান।

মার্সোলো অলিভেইরা বলেন, ‘পশুদের শরীরে পারদের প্রভাব সম্পর্কে খুব কম জ্ঞান রয়েছে। মানুষের ওপর এর প্রভাব নিয়ে অনেক কাজ হয়েছে। মানুষের স্নায়ুতন্ত্র ও শরীরের অভ্যন্তরীণ অঙ্গের ক্ষয়ক্ষতির কথা জানা আছে। তবে প্রকৃতির কোলে প্রাণিজগত সম্পর্কে প্রায় কিছুই জানা নেই। তাই আমরা টিস্যু বিশ্লেষণ থেকে শুরু করে আলট্রাসাউন্ড, ব্লাড কাউন্টের মতো সমান্তরাল পরীক্ষা চালাচ্ছি। গবেষণার মাধ্যমে আমরা বিষক্রিয়া সম্পর্কে জানতে চাই।’

সূত্র : বিবিসি

শীর্ষ সংবাদ:
সংসদ ভবন উন্নয়ন সম্পর্কিত উপস্থাপনা দেখলেন প্রধানমন্ত্রী         দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৩৭ জনের, নতুন শনাক্ত ১৬৬৬         ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলা ॥ আজ শিক্ষকসহ তিনজন সাক্ষ্য দিয়েছেন         আপনাদের প্রতি অনুরোধ আপনারা বিশৃঙ্খলা করবেন না ॥ পররাষ্ট্রমন্ত্রী         করোনার সেকেন্ড ওয়েভ মোকাবিলায় স্বাস্থ্যবিভাগ প্রস্তুত রয়েছে ॥ স্বাস্থ্যমন্ত্রী         প্রবাসী কল্যাণ ভবনের সামনে সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ         করোনা মেট্রোরেলের সবকিছু ওলট-পালট করে দিয়েছে         করোনা আছে এবং সেটা শীতকালে বাড়তে পারে ॥ তথ্যমন্ত্রী         জাহালমের ক্ষতিপূরণের রায় ২৯ সেপ্টেম্বর         করোনার কারণে এবার নোবেল পুরস্কার অনুষ্ঠান স্থগিত         যানবাহন পরীক্ষায় আরও ফিটনেস সেন্টার স্থাপনের নির্দেশ         ওমরাহ পালনে কাবা ঘর খুলে দিচ্ছে সৌদি         বাংলাদেশে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে তরুণরা মাছ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন         করোনা ॥ ভারতে সুস্থতার হার ৮০ শতাংশ         জাতিসংঘের অধিবেশন : সংহতির ওপর জোর দিলেন মহাসচিব         যেখানে ডেঙ্গু বেশি সেখানে করোনা কম ॥ গবেষণা         যুক্তরাষ্ট্র মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ছাড়িয়েছে         করোনা না যেতেই যুক্তরাষ্ট্রে ‘টুইনডেমিক’ আতঙ্ক         আবার জাতিসংঘের ভাষণে করোনাকে ‘চীনা ভাইরাস’ বললেন ট্রাম্প         শুধু মাত্র মুসলিম হওয়ার কারণে হোটেল থেকে তাড়িয়ে দেয়া হল