ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯

মির্জা ফখরুল সারাদিন মিথ্যা কথা বলেন ॥ প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ০৫:৪০, ৩০ মার্চ ২০১৮

মির্জা ফখরুল  সারাদিন  মিথ্যা কথা  বলেন ॥ প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও, ২৯ মার্চ ॥ বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ছেলেরা ৯৮০ কোটি টাকা ব্যাংক থেকে লুট করে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও জেলা সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের বড় মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এই অভিযোগ করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল তখন তারা লুটপাট দুর্নীতিতেই ব্যস্ত ছিল। প্রায় ৯৮০ কোটি টাকা তার ছেলেরা ব্যাংক থেকে লুট করে নিয়ে গেছে। একটা টাকাও ফেরত দেয় নাই। শেখ হাসিনা আরও বলেন, এতিমদের জন্য টাকা এসেছে, একটি টাকাও এতিমদের দেয় নাই। নিজেরা মেরে খেয়েছে। মামলা দিয়েছে তত্ত্বাবধায়ক সরকার। সেই মামলায় আদালত শাস্তি দিয়েছে। এতিমদের টাকা মেরে খাওয়ার বিষয়ে কোরানেও বলা আছে। তিনি বলেন, এখন আন্দোলনের হুমকি দিচ্ছে। যে এতিমের টাকা চুরি করে তার জন্য আন্দোলন কিসের? বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গলা ফুলিয়ে কথা বলতে বলতে গলাও খারাপ হয়ে যায়। গলার চিকিৎসা করাতে হয়। সারাদিন মিথ্যা কথা বললে আল্লাহ নারাজ হন। মির্জা ফখরুল ইসলাম সারাদিন মিথ্যা কথা বলেন। তিনি বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম বিমানমন্ত্রী ছিলেন, সৈয়দপুর বিমানবন্দর বন্ধ করে দিয়েছিলেন। আমরা ক্ষমতায় এসে সেই বিমানবন্দর চালু করেছি। এরা ধ্বংস করতে পারে, সৃষ্টি করতে জানে না। লুটপাট করতে জানে, উন্নয়ন দিতে জানে না। আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, বিএনপির এটাই কাজ, মানুষকে হত্যা করা। মানুষ হত্যা করে তারা দেশকে কোথায় নিয়ে যেতে চাইছিল? আমি ধন্যবাদ জানাই বাংলার মানুষকে। বিএনপি উন্নয়ন না করতে পারার কারণ হিসেবে শেখ হাসিনা বলেন, কারণ তার সঙ্গে যুদ্ধাপরাধী, যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা চায় নাই, বাংলাদেশের মানুষের উন্নয়ন চায় না। বাংলাদেশের মানুষকে দরিদ্র করে রাখতে চেয়েছিল। তাদের হাতে বাংলাদেশের উন্নয়ন হতে পারে না। ঠাকুরগাঁওবাসীর উদ্দেশে তিনি বলেন, আমার কাছে দাবি করার প্রয়োজন নাই। এই বাংলাদেশ আমি চিনি। আমি সমগ্র বাংলাদেশ সফর করেছি। আমি জানি কোথায় মানুষের কি লাগবে। ঠাকুরগাঁওবাসীকে উদ্দেশ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যতদূরেই থাকি আমি সবসময় আপনাদের সঙ্গেই ছিলাম এবং সঙ্গেই আছি। আপনাদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। আপনাদের ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ার উন্নয়নে স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠা করেছি। আরও উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে আজ আমি এখানে এসেছি। নিজেকে জনগণের সেবক দাবি করে শেখ হাসিনা বলেন, আমি ক্ষমতায় এসে মানুষের উন্নয়নের কথা চিন্তা করি। দেশের প্রধান হিসেবে নিজেকে সেবক মনে করি। আমার ওপর ১৬ কোটি মানুষের দায়িত্ব রয়েছে। আমি সেই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করার চেষ্টা করছি। ঠাকুরগাঁওবাসীকে লক্ষ্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যতদূরেই থাকি আমি সবসময় আপনাদের সঙ্গেই ছিলাম এবং সঙ্গেই আছি। আপনাদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। আপনাদের ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ার উন্নয়নে স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠা করেছি। আরও উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে আজ আমি এখানে এসেছি।