ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

জোড়া মাথার রাবেয়া রোকাইয়ার এনজিওগ্রাম সম্পন্ন

প্রকাশিত: ০৫:৪৯, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

জোড়া মাথার রাবেয়া রোকাইয়ার এনজিওগ্রাম সম্পন্ন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পাবনার চাটমোহরে জোড়া মাথা নিয়ে জন্ম নেয়া শিশু রাবেয়া-রোকাইয়ার অস্ত্রোপচারের প্রাথমিক ধাপ সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে হাঙ্গেরী থেকে আসা দু’জন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের তত্ত্বাবধানে অস্ত্রোপচারের এ প্রাথমিক ধাপ সফলভাবে সম্পন্ন করা হয়। তবে জোড়া মাথার শিশু রাবেয়া ও রোকাইয়ার অস্ত্রোপচার জটিল কাজ বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নিউরোসার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ শফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘প্রথমে তাদের মাথার রক্তনালী আলাদা করা হবে। এরপর তাদের মাথা ধীরে ধীরে আলাদা করা হবে।’ মঙ্গলবার সকালে জোড়া মাথার শিশু দু’টির এনজিওগ্রাম শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। মঙ্গলবার সকাল নয়টায় কার্ডিওলজি বিভাগে রাবেয়া ও রোকাইয়ার এনজিওগ্রাম শুরু হয়। বেলা এগারোটার দিকে তা শেষ হয়। এরপর বার্ন ইউনিটের তৃতীয় তলায় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন এ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়ক ডাঃ সামন্তলাল সেন বলেন, ‘তাদের অপারেশন অত্যন্ত জটিল। তবে, এছাড়া কোন উপায় নেই। তাদের মা-বাবা এটা চাইছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আমরা এই কাজটা করতে যাচ্ছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘তাদের অপারেশনটি নিউরো সার্জারির অংশ। তাদের অজ্ঞান করাটা খুব কঠিন ছিল। আজকে মঙ্গলবার আমরা তাদের এনজিওগ্রাম করার মাধ্যমে প্রথম ধাপটি অতিক্রম করলাম। বুধবার তাদের আরও কিছু পরীক্ষা করা হবে। এরপর বলা যাবে, শিশুদের কী অবস্থা। তাদের চিকিৎসা দীর্ঘমেয়াদী। আমাদের অনেক দূর যেতে হবে। তাদের মস্তিষ্কের রক্ত চলাচল আলাদা করতে হবে। না হলে কোনদিনই তাদের দু’জনকে আলাদা করা যাবে না। তাদের চিকিৎসা করতে বছরখানেক সময় লাগবে।’ নিউরোসার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আগে এই ধরনের শিশুদের চিকিৎসার জন্য সার্জারি করা হতো। যেখানে ৮০ ভাগ ফেইলিউর ছিল। তাদের ব্রেইনটা এক হয়ে আছে। হাড় রক্তনালী এক হয়ে আছে। আমরা তাদের ধমনীগুলো কেমন, তা দেখেছি। শিরাটাকে মূল টার্গেট করে আমরা শিরা বরাবর ব্রেইনটাকে আলাদা করব। একটু একটু করে শিরা বন্ধ করে দেখব, শিশু দু’টি কমর্ফোটেবল কিনা। এজন্য আমরা সময় নেব।’ বার্ন এ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের বর্তমান পরিচালক অধ্যাপক ডাঃ আবুল কালাম বলেন, ‘তাদের কোন না কোন সময় সেপারেশনে যেতেই হবে। তাদের মা-বাবা এটা চাইছে। আমরা সবাইকে জানিয়েই তাদের বিষয়ে এগোচ্ছি। এখন সবাইকে ধৈর্য ধরতে হবে।’
monarchmart
monarchmart

শীর্ষ সংবাদ:

ফিলিপাইনের ‘গুসি শান্তি পুরস্কার’ পেলেন শিক্ষামন্ত্রী
‘আর্জেন্টিনার চেয়ে বাংলাদেশে আর্জেন্টিনা-সমর্থক বেশি’
মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন আজ
যারা উন্নয়ন দেখে না, তাদের চোখ নষ্ট: প্রধানমন্ত্রী
দেশে চিনির পর্যাপ্ত মজুদ আছে সংকট কৃত্রিম ॥ শিল্পমন্ত্রী
নরসিংদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশের এস আই নিহত
নরসিংদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশের এস আই নিহত
মাঠ প্রশাসন কর্মকর্তারা হলেন সরকারের পিলার : ডিসি
পরিত্যক্ত ঘোষণার ১৩ বছরেও নির্মাণ হয়নি নতুন ভবন
চলতি বছরের ৮ মাসে ধর্ষণ ৮৩০
এইচএসসি পরীক্ষার উত্তরপত্র গায়েব, দুই পরিদর্শক বরখাস্ত
কারা দুর্নীতির লাগাম টানা হচ্ছে
ইউক্রেনে লাখ লাখ মানুষের পানি ও বিদ্যুতের জন্য হাহাকার
২১ লাখ টন তেল দেবে ব্রুনাই
গণসমাবেশ পল্টনেই হবে: মোশাররফ