শুক্রবার ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

‘আমি মহিউদ্দিন এটা মানি না’

‘আমি মহিউদ্দিন এটা মানি না’
  • হাসান নাসির

‘তোমার আসন শূন্য আজি’ কথাটা এক অর্থে ঠিক, আবার পুরোপুরি ঠিক না। কারণ, শূন্য আসন কাউকে না কাউকে দিয়ে পূর্ণ হয়। চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগে এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর রাজনৈতিক শূন্য হওয়া পদটিও নিশ্চয় পূর্ণ হবে কোন না কোন নেতাকে দিয়ে। কিন্তু এটা সকলেই মানছেন যে, আরেকজন মহিউদ্দিন চৌধুরী আর আসবেন না। কেউ নিজের বুকে মুষ্টিবদ্ধ হাত রেখে বলবেন না যে, ‘আমি মহিউদ্দিন চৌধুরী এটা মানি না।’

আজীবন সংগ্রামী রাজনীতিবিদ মহিউদ্দিন চৌধুরী। তাঁর এতটুকু আসার পথটা মোটেও শর্টকাট কিংবা মসৃণ ছিল না। প্রতিনিয়ত লড়াই, সংগ্রাম আর নির্যাতন সয়ে তিনি হয়ে উঠেছিলেন অবিসংবাদিত নেতা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ রাজনৈতিক সহচর এমএ আজিজ এবং জহুর আহমদ চৌধুরীর পর চট্টগ্রামে যিনি আওয়ামী লীগ হিসেবে ব্র্যান্ডেড হয়েছিলেন তিনি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। নগর আওয়ামী লীগের রাজনীতিতেও তাঁর সমকক্ষ কেউ নন। দলের রাজনীতি যেমন একনিষ্ঠভাবে করেছেন, তেমনিভাবে কোন সিদ্ধান্ত মনঃপুত না হলে দলের বিরুদ্ধেও দাঁড়িয়েছেন। সে কারণে তিনি সকলের নেতা হতে পেরেছিলেন।

মহিউদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রামের গণমানুষের নেতা। থাকবেনও কিংবদন্তি হয়ে। তাঁর মুখের ভাষা ছিল অনেক সময় অশোভন। সুললিত ভাষায় কথা বলতে অভ্যস্ত তিনি ছিলেন না। কিন্তু সে রূঢ়ভাষা এবং শাসন ছিল কর্মী সমর্থকদের কাছে বড়ই মধুর। এমন নেতা খুব কমই পাওয়া যাবে যার গালাগাল শুনেও নেতা-কর্মীরা তাঁর আশপাশে ঘুরঘুর করেন। চট্টগ্রামে তেমন নেতা এর আগে আরেকজন ছিলেন, যাঁর নাম জহুর আহমদ চৌধুরী। মহিউদ্দিন চৌধুরীর মধ্যে চট্টলবাসী খুঁজে পেয়েছিল সেই পূর্বসূরি জহুর আহমদ চৌধুরীকে। রাজনীতির গতি পথটাও ছিল তেমনই। শ্রমিক নেতা থেকে জননেতা।

রাজনীতিতে নিজ দলের সিদ্ধান্তে নিজের বিবেচনাও যে থাকতে পারে তা দেখিয়ে দিয়ে গেছেন মহিউদ্দিন চৌধুরী। চট্টগ্রাম বন্দরের ওপর নিজ দেশের কর্তৃত্ব রক্ষায় তিনি মার্কিন কোম্পানি এসএসএ পোর্টের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়েছিলেন। কোন দলীয় মেয়র তাঁরই সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মাঠে নামবেন তা কল্পনাও করা যায় না। কিন্তু নেমেছিলেন একজনই। বলেছিলেন, ‘আমি মহিউদ্দিন চৌধুরী মানি না, এটা হতে দেব না। প্রয়োজনে বুকের রক্ত দিয়ে প্রতিহত করব।’ সে আন্দোলনে তিনি বিজয়ী হয়েছিলেন।

দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্যের সিংহদ্বার চট্টগ্রাম বন্দর নিয়ে তিনি সব সময় ছিলেন সদাসতর্ক। অনিয়মের অভিযোগ পেলেই গর্জে উঠেছেন। ক্ষমতায় কিংবা সরকারে যারাই থাকুন না কেন মহিউদ্দিন চৌধুরীকে অবজ্ঞা করা ছিল খুবই কঠিন।

আলোচিত যিনি, সমালোচনাও তাঁর থাকবে এটাই স্বাভাবিক। শেষ বিচারে তিনি একজন মানুষ। তাঁর সব পদক্ষেপ শতভাগ সঠিক হবে এমন দাবি কেউ নিশ্চয়ই করবেন না। তবে দেশপ্রেম, চট্টগ্রামের মর্যাদা রক্ষা এবং অধিকার আদায়ে মহিউদ্দিন চৌধুরী অনন্য একটি নাম। এর আগে এভাবে কেউ বলেননি যে, ‘আমার চট্টগ্রাম।’

আজীবন চট্টগ্রামে রাজনীতি করেও তিনি পেয়েছিলেন জাতীয় নেতার মর্যাদা। তাঁর বক্তব্য সব সময়ই ছিল গুরুত্ববহ। যা বলেছেন তা বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত হয়েছে গুরুত্বের সঙ্গে। আঞ্চলিক পর্যায়ে রাজনীতি করা দেশের আর কোন নেতা কেন্দ্রকে এতটা প্রভাবিত করতে পারেননি।

সংগ্রাম করেই বড় হয়েছেন মহিউদ্দিন চৌধুরী। আন্দোলন তাঁর শিরা-উপশিরায়। এমন সংগ্রামী মানুষ সমাজে বড়ই বিরল। নিজে যা বুঝেছেন তা বলেছেন অদম্য সাহসের সঙ্গে। তাঁর কণ্ঠ কখনও স্তব্ধ করা সম্ভব হয়নি। ঐতিহাসিক লালদীঘি ময়দান ছিল তাঁর প্রিয় মাঠ। তাঁর ডাকে অসংখ্যবার কানায় কানায় পূর্ণ হয়েছে এ মাঠ। চট্টগ্রামে আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্যমণি এ নেতাকে সমীহ না করে পারেনি কোন শক্তি।

মহিউদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ছিলেন প্রায় ১৭ বছর। তাঁর কার্যালয় এবং বাসভবন ছিল অবারিত। তিনি সকলের মেয়র হতে পেরেছিলেন। নগরীর চশমাহিলের বাসায় গিয়ে কেউ খালি মুখে ফিরেছেন এমন রেকর্ড নেই। সহযোগিতা চেয়ে কেউ বিমুখ হননি। সে কারণে অনেকে বলেন, ‘মহিউদ্দিন চৌধুরীর বাড়ি খাজাবাবার দরবার।’

শীর্ষ সংবাদ:
যে অপরাধ করবে তাকেই শাস্তি পেতে হবে ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ একটি মাইলফলক : সেতুমন্ত্রী         ইভিএম গ্রহণযোগ্য পদ্ধতি : ইসি আহসান হাবিব         অভিবাসীদের জীবন বাঁচাতে প্রচেষ্টা বাড়াতে হবে         স্ত্রীর কবরের পাশে চিরশায়িত হবেন আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী         শিগগিরই সব দলের সঙ্গে সংলাপ : সিইসি         চাঁদপুরে ট্রাক-অটোরিকশা মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের দুই পরীক্ষার্থী নিহত         নগর ভবনে দরপত্র জমা দেওয়ার চেষ্টা         রাজধানীর বাজারে প্রায় সব পণ্যের দাম বৃদ্ধি         শনিবার গ্যাস থাকবে না রাজধানীর যেসব এলাকায়         আজ দ্বিতীয় ধাপের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত         সারাদেশে চলছে ভোটার তালিকার হালনাগাদ         দৌলতখানে বাবা-ছেলে চেয়ারম্যান প্রার্থী         আফগানিস্তানে নারী উপস্থাপকদের অবশ্যই মুখ ঢাকতে হবে, নির্দেশ তালিবানের         শাহজালালে ৯৩ লাখ টাকার স্বর্ণসহ যাত্রী আটক         আগামী ২৯ মে চালু হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে যাত্রীবাহী ট্রেন         যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ইউরোপে ছড়িয়ে পড়ছে বিরল যে রোগ!         কৃষিজমি ৬০ বিঘার বেশি হলে সিজ করবে সরকার         ‘মুজিব’ বায়োপিকের ট্রেলার প্রকাশ         সিলেটে উজানের ঢলে ভাঙলো ৩ নদীর মোহনার ডাইক