ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

নাগপুর টেস্টে জিততে চায় দু’দলই

প্রকাশিত: ০৬:৫৬, ২৪ নভেম্বর ২০১৭

নাগপুর টেস্টে জিততে চায় দু’দলই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ঘরের মাটিতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সিরিজ। তবে আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা সফর নিয়েই বেশি চিন্তা করছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। আর সে কারণেই যতটা সম্ভব পেসবান্ধব উইকেটে খেলার দিকেই মনোযোগ তাদের। কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে অবশ্য বেশ বিপাকেই পড়েছিল তারা শ্রীলঙ্কার পেস আক্রমণের বিরুদ্ধে প্রথম ইনিংসে। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটসম্যানরা দারুণ নৈপুণ্য দেখান। বৃষ্টিবিঘিœত সেই ড্র টেস্টের পর এবার দ্বিতীয় টেস্টে আজ লঙ্কানদের মুখোমুখি হচ্ছে তারা। নাগপুরের বিদর্ভ ক্রিকেট এ্যাসোসিয়েশন মাঠের উইকেটে অবশ্য ইডেনের চেয়ে কম ঘাস। তবু পেসারদের জন্যই বেশি সহায়ক হবে মাঠটি এমনটাই ধারণা করছেন সবাই। কিন্তু এই উইকেট দেখে বেশ খুশি শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক দিনেশ চান্দিমাল। টেস্ট ক্রিকেটের জন্য দারুণ হবে এমনটাই ভাবছেন তিনি। ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি অবশ্য প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে নামার আগে আরও পেসবান্ধব উইকেটই চাইছেন বারবার। তবে উভয় দলই চাইছে এবার জিতে সিরিজে এগিয়ে যেতে। বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টায় ম্যাচটি মাঠে গড়াবে। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সিরিজ শেষ হবে ২৪ ডিসেম্বর তৃতীয় ও শেষ টি২০ ম্যাচ দিয়ে। এর মাত্র ১২ দিন পরেই কেপটাউনে প্রথম টেস্ট খেলবে ভারতীয় দল স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে। এই ক্ষুদ্র সময়ের মধ্যে আবার পার্লে একটি দু’দিনের প্রস্তুতি ম্যাচও খেলবে সফরকারী ভারতীয় দল। লঙ্কানদের বিরুদ্ধে সিরিজ শেষ হওয়ার দু’দিন পরেই তাই দক্ষিণ আফ্রিকার বিমানে উঠতে হবে কোহলিদের। ৩০-৩১ ডিসেম্বর প্রস্তুতি ম্যাচ ছাড়া প্রোটিয়া পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার আর কোন সুযোগ নেই। এ কারণে লঙ্কানদের বিরুদ্ধে ঘরের মাটিতেই কিছু প্রস্তুতি নিতে চাইছেন কোহলিরা। তাই চিরাচরিত স্পিনবান্ধব উইকেটের পরিবর্তে এখন পেসারদের জন্য সহায়ক করেই তৈরি করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেটগুলো সবসময়ই পেস সহায়ক থাকে। ইডেনে সিরিজের প্রথম টেস্টে কোহলিদের এজন্য বড় ধরনের পরীক্ষার মুখেই পড়তে হয়েছিল। লঙ্কান পেসারদের বিরুদ্ধে বৃষ্টিবিঘিœত ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে বেশ সমস্যায় পড়ে যায় ভারতীয় দল। অবশ্য দ্বিতীয় ইনিংসে ঘুরেই দাঁড়িয়েছিলেন ব্যাটসম্যানরা। সার্বিক বিষয় নিয়ে কোহলি বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে এই সিরিজ শেষ হওয়ার পর আমরা দক্ষিণ আফ্রিকায় উড়ে যাওয়ার আগে মাত্র দু’দিন সময় পাব। সুতরাং আমাদের সামনে কি এগিয়ে আসছে সে অনুসারেই খেলার পরিস্থিতিটা বিবেচনা করতে হবে।’ ভারতীয় পেসাররাও যে ভয়ানক হয়ে উঠতে পারেন কলকাতায় প্রথম টেস্টে বেশ ভালভাবেই টের পেয়েছে সফরকারী শ্রীলঙ্কা। বৃষ্টির কারণে প্রায় আড়াইদিন ভেসে গেলেও শেষদিকে জমে উঠেছিল ব্যাট-বলের লড়াই। ভারতীয় পেসারদের দাপটে ২৩১ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে মাত্র ৭৫ রানেই ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল লঙ্কানরা। শেষ পর্যন্ত তারা বেঁচে গেছে দিন শেষ হয়ে যাওয়াতে। তবে এবার নাগপুরের উইকেট দেখে সন্তুষ্ট চান্দিমাল। তিনি মনে করছেন এবার উইকেটটা টেস্ট ক্রিকেটের জন্য বেশ ভাল। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা ইডেন গার্ডেন্সে প্রচুর ঘাস দেখেছিলাম। কিন্তু এখানে অনেকটাই কম। এটাকে আমার খুব ভাল টেস্ট পিচ মনে হচ্ছে। এটা দল হিসেবে আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ হবে। সেটার জন্য আমরা প্রস্তুত।’ নাগপুরের উইকেট দেখে আপাতত মনে হচ্ছে প্রথম তিনদিন পর্যন্ত ব্যটসম্যানদের জন্য এটি বেশ সহায়ক হতে পারে। তবে এরপর থেকে উইকেটে স্পিন ধরতে শুরু করবে। এ কারণে এবার পঞ্চম একজন বোলার কিংবা বোলিং অলরাউন্ডারকে নিয়ে একাদশ গড়তে পারে শ্রীলঙ্কা। প্রথম টেস্টে বোলারদের দারুণ নৈপুণ্য কিছুটা আত্মবিশ্বাসী করে তুলেছে সফরকারীদের। ভারতের মাটিতে তাই এখন টেস্ট জয়ই শুধু নয়, সিরিজ জেতার স্বপ্ন দেখছেন চান্দিমালরা। সেজন্য ব্যাটিংয়ে অনেক বেশি উন্নতি করতে হবে সেটাও ভালভাবেই বুঝতে পারছেন তারা। নাগপুরে যদি প্রথমদিকে ব্যাটসম্যানদের জন্য সুবিধাজনক হয় সেক্ষেত্রে টস জেতার পর ব্যাটিংয়েই নামতে চাইবে উভয় দল। দ্বিতীয় ইনিংসে নামা দলটির জন্য বেশ সংগ্রাম করতে হবে। ভারতের ব্যাটিং লাইনআপ অবশ্য কলকাতায় দ্বিতীয় ইনিংসে দারুণ ব্যাটিং করে ৮ উইকেটে ৩৫২ রান তুলেছিল। অধিনায়ক কোহলি সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন। প্রথম ইনিংসে ভরাডুবির কষ্টটা সেখান থেকে ভুলতে সক্ষম হয়েছে তারা। শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল দারুণ ব্যাটিং করে অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন। আর প্রথম ইনিংসে চেতেশ্বর পুজারা একাই লড়ে ফিফটি রানের ইনিংস উপহার দিয়েছিলেন। তবে উভয় ইনিংসে ব্যর্থ আজিঙ্কা রাহানের জ্বলে ওঠা বাকি। এই টেস্টে অবশ্য থাকছেন না ধাওয়ান। ব্যক্তিগত কারণে ছুটি নিয়েছেন তিনি। আর কলকাতায় পেসার ভুবনেশ্বর কুমার ৮ উইকেট শিকার করেছিলেন। তিনি চলতি মাসের শেষদিকে নিজের বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য ছুটি নিয়েছেন। তার পরিবর্তে নাগপুর টেস্টের জন্য নতুন মুখের পেসার বিজয় শঙ্করকে দলে টানা হয়েছে। ব্যাটসম্যানরা নিজেদের মেলে ধরতে পারলে নাগপুর টেস্টে জয় তুলে নেয়া খুব কঠিন হবে না স্বাগতিকদের। কারণ ব্যাটিং শক্তির বিবেচনায় নিশ্চিতভাবেই অনেকখানি পিছিয়ে সফরকারীরা। শ্রীলঙ্কার জন্য চ্যালেঞ্জ সেই ব্যাটিংটাকেই আরেকটু শাণিত করা।
monarchmart
monarchmart