ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

দুই ড্রয়ের পর জয়ের ধারায় রিয়াল মাদ্রিদ

প্রকাশিত: ০৪:২৩, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭

দুই ড্রয়ের পর জয়ের ধারায় রিয়াল মাদ্রিদ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ টানা দুই ড্রয়ের পর অবশেষে জয়ের ধারায় ফিরেছে রিয়াল মাদ্রিদ। রবিবার রাতে স্প্যানিশ লা লিগার এ্যাওয়ে ম্যাচে স্বাগতিক রিয়াল সোসিয়েদাদকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে জিনেদিন জিদানের দল। ম্যাচের শুরুতে গোল করে রিয়ালকে এগিয়ে নেন বরজা মায়োরেল। এরপর কেভিন রড্রিগুয়েজ গোলটি পরিশোধ করে সমতায় ফেরান সোসিয়েদাদকে। আবার তিনিই আত্মঘাতী গোল করে সফরকারীদের এগিয়ে দেন। সবশেষে গ্যারেথ বেল গোল করে রিয়ালের জয় নিশ্চিত করেন। এই জয়ে লীগের পয়েন্ট টেবিলের চতুর্থ স্থানে ওঠে এসেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এখন চার পয়েন্টে পিছিয়ে আছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ও টেবিলের শীর্ষে থাকা বার্সিলোনার চেয়ে। বার্সার পয়েন্ট ১২ আর রিয়ালের ৮। এক নম্বরে থাকা বার্সিলোনা আজ রাতে ফের মাঠে নামছে। ঘরের মাঠে মেসি, সুয়ারেজদের প্রতিপক্ষ এইবার। এবারের ইউরোপিয়ান ফুটবল মৌসুমের শুরুতেই পাঁচ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা পেয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। যে কারণে অংশ নিতে পারেননি লা লিগায় রিয়ালের প্রথম চার ম্যাচে। তার অভাবটাও হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছে গত মৌসুমের শিরোপাজয়ীরা। প্রথম তিন ম্যাচের দুটিতেই ড্র করে পয়েন্ট খোয়াতে হয়েছে। জয়ে শুরু করার পর টানা দুই ম্যাচ ড্র করে জিদানের দল। অবশেষে সেই ধাক্কা সামলে জয়ের ধারায় ফিরেছে ইউরোপিয়ান ও লা লিগা চ্যাম্পিয়নরা। নিষেধাজ্ঞার কারণে রোনাল্ডো ও ইনজুরির কারণে করিম বেনজেমাকে বাইরে রেখে ২০ বছর বয়সী মায়োরেলকে একাদশে রেখে আক্রমনভাগ সাজান রিয়াল কোচ জিদান। ম্যাচের ২০ মিনিটের মধ্যেই কোচের আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন ফরাসি স্ট্রাইকার। ১৯ মিনিটে প্রতিপক্ষের গোলপোস্টের একেবারেই সামনে থেকেই বলে সুইপ শটে গোল আদায় করেন মায়োরেল (১-০)। এই গোলের সঙ্গে সঙ্গে নতুন এক রেকর্ড বইয়ে জায়গা করে নেয় রিয়াল। আর তা হলো টানা ৭৩ ম্যাচে গোল করার রেকর্ড। যেটি এর আগে করেছিল পেলের ব্রাজিলীয় জায়ান্ট ক্লাব সান্তোস। ১৯৬০ এর দশকে বিরল এই রেকর্ডটি অর্জন করেছিল ব্রাজিলের ফুটবল ক্লাবটি। ম্যাচের ২৮ মিনিটে গোলটি পরিশোধ করে দেন কেভিন রড্রিগুয়েজ। আলভারো অড্রিওজোলাসের ক্রসের বল ভলির সাহায্যে রিয়ালের পোস্টে পাঠিয়ে দেন তিনি (১-১)। এর পরপরই সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয় ম্যাচটি। কারণ দৃশ্য ধারণে নিয়োজিত এক ক্যামেরাম্যান দর্শকদের চাপে অস্থায়ী চৌকি থেকে পড়ে পায়ে আঘাত পান। স্ট্রেচারে করে তাকে মাঠের বাইরে নিয়ে যেতে হয়। ফের খেলা শুরু হওয়ার পর মাত্র আট মিনিটের ব্যবধানে হিরো থেকে ভিলেনে পরিণত হন সোসিয়েদাদের রড্রিগুয়েজ। ৩৬ মিনিটে আত্মঘাতী গোলের মাধ্যমে ফের সফরকারী দলকে লিড পাইয়ে দেন তিনি। মায়োরেলের ক্রস প্রতিহত করতে গিয়ে নিজের জালেই জড়িয়ে দেন তিনি (২-১)। ম্যাচের ৬১ মিনিটে বেশ ঠা-া মাথায় আগুয়ান গোলরক্ষক রুলির মাথার ওপর দিয়ে গোল করে রিয়ালের জয় নিশ্চিত করেন ওয়েলস তারকা বেল। এই গোল করে শেষ পর্যন্ত সমালোচকদের সমালোচনার জবাব দিয়েছেন তারকা এই ফরোয়ার্ড। ম্যাচ শেষে বেল বলেন, গোল করতে পারাটা সব সময় অনন্য। তবে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে দলের জন্য পূর্ণ তিন পয়েন্ট আদায় করা। জয়ের ধারায় ফিরে দলকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনা। দলের জন্য আমি শুধু কঠোর পরিশ্রম এবং সর্বোচ্চ সামর্থ্য দিয়ে চেষ্টা করে যেতে পারি। এর বেশি কিছু নয়। কি ঘটছে সেটি নিয়ন্ত্রণ করা আমার কাজ নয়। আমি শুধু মাঠে কঠিন পরিশ্রম করে যেতে পারি। প্রত্যেকের ক্যারিয়ারেরই উত্থান-পতন আছে। আমি গোল করে হয়তো ঘুরে দাঁড়াতে পেরেছি। ২০১৬ সালের ৩০ এপ্রিল সান সেবানিটয়েনে রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে খেলার দশম মিনিটে গোল করেন গ্যারেথ বেল। সেই থেকেই প্রতি ম্যাচেই গোল করা অভ্যাসে বানিয়ে ফেলেছে রিয়াল মাদ্রিদ। পরশু একই ক্লাবের বিপক্ষে টানা ৭৩ ম্যাচে গোল করে সান্তোসের রেকর্ড স্পর্শ করেছে গ্যালাক্টিকোরা। ১৯৬২-৬৩ মৌসুমে টানা ৭৩ ম্যাচে গোল করার কীর্তি গড়ে পেলের সান্তোস। অসাধারণ কীর্তি গড়ার পথে ৫২ জয়, ১৪ ড্র ও সাত হারের মুখ দেখে ব্রাজিলিয়ান ক্লাবটি। রিয়াল মাদ্রিদের ফলাফল সান্তোসের চেয়েও ভাল। জিনেদিন জিদানের দল ৫৪ জয় এবং ১৪ ম্যাচে ড্র করে। হেরেছে মাত্র পাঁচটিতে। জয়ের দিক থেকে সান্তোসের চেয়ে এগিয়ে থাকলেও গোলের দিক থেকে পিছিয়ে রিয়াল। সান্তোস সেই ৭৩ ম্যাচে ২৪৫ গোল করে। রিয়াল ৭৩ ম্যাচে ২০০ গোল।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২