সোমবার ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

কান্না থামছেই না রাম রহিমের

কান্না থামছেই না রাম রহিমের

অনলাইন ডেস্ক ॥ দশ দশ বিশ বছরের সাজা হওয়ার পর থেকে কান্না থামছেই না রাম রহিমের। দুই শিষ্যাকে ধর্ষণের অপরাধে বিতর্কিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংকে গতকাল সোমবার ১০ বছর করে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সাজা ঘোষণার পর থেকেই ভেঙে পড়েছেন রাম রহিম।

সরকারের তদন্ত সংস্থা সেন্ট্রাল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (সিবিআই) বিশেষ বিচারক জগদীপ সিং এই রায় দেন। রাম রহিমকে দুই মামলায় ১৫ লাখ করে ৩০ লাখ রুপি জরিমানা করা হয়েছে।

রায়ের পর আদালতে একেবারে ভেঙে পড়েন রাম রহিম। তিনি বলতে থাকেন, ‘আমি নির্দোষ। আমাকে ক্ষমা করুন।’

হরিয়ানার সানোরিয়া কারাগারে বন্দী রাম রহিম। কয়েদি হিসেবে তাঁর নম্বর ১৯৯৭। সাজা ঘোষণার পর রাম রহিমের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। এরপর ঝকমকে পোশাক বদলে তাঁকে কয়েদিদের সাধারণ পোশাক পরানো হয়। ছোট একটি কারাকক্ষে একা রাখা হয়েছে তাঁকে।

কারাবাসী একজন এনডিটিভিতে জানান, সাজা ঘোষণার পর কয়েকজন মিলে চেষ্টা চালানোর পরও রাম রহিমকে কারাকক্ষে নেওয়া যাচ্ছিল না।

কারা সূত্র জানায়, কারা কর্তৃপক্ষ বলেছে, নিরাপত্তার কারণেই রাম রহিমকে আলাদা কারাকক্ষে রাখা হয়েছে। রাম রহিমের আইনজীবী জানান, স্বাস্থ্যগত কারণে তাঁর সঙ্গে কয়েকজন অনুচর থাকবেন। ৫০ বছরের রাম রহিম মাইগ্রেন ও পিঠব্যথায় আক্রান্ত।

রাম রহিমের ভিআইপি কারাকক্ষে জ্যেষ্ঠ দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে নিরাপত্তার দায়িত্বে রাখা হয়েছে। তাঁর কারাকক্ষের কাছে আরও দুই নিরাপত্তাকর্মী রাখা হয়েছে।

রাম রহিমের কারাকক্ষে সহজে প্রশাসনের প্রবেশাধিকার রয়েছে। এই কারাকক্ষগুলোতে কড়া নিরাপত্তা দেওয়া হয়।

কারাগারের এক নিবাসী গত শুক্রবার বলেন, রাম রহিম কোনো শক্ত খাবার খাননি। তিনি দুধ ও পানি পান করেছেন। কারাগারে তিনি কারও সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

শুক্রবার রাম রহিমকে অপরাধী সাব্যস্ত করেন আদালত। এরপর উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য হরিয়ানা, পাঞ্জাব ও দিল্লিতে তাণ্ডব চালান তাঁর ভক্তরা। সহিংসতায় প্রাণ হারান ৩৮ ব্যক্তি। আহত কমপক্ষে ২৫০ জন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেনা মোতায়েন করা হয়।

সাজা ঘোষণার পর পরিস্থিতি যাতে বিগড়ে না যায়, এ জন্য গতকাল নিরাপত্তা বাহিনী সজাগ ছিল। বিচারপতি জগদীপ সিং চণ্ডীগড়ের পাঁচকুলা আদালতে শাস্তি ঘোষণা করেননি। হরিয়ানার সানোরিয়া কারাগারে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। সেখানে রাম রহিমকে রাখা হয়েছে। কারাগারেই বসেন বিশেষ আদালত। বেলা আড়াইটার দিকে বাদী ও বিবাদীপক্ষের আইনজীবীদের ১০ মিনিট করে সময় দেন বিচারক। বেলা সাড়ে তিনটায় তিনি শাস্তি ঘোষণা করেন।

শীর্ষ সংবাদ:
দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে         ব্যাটিং ব্যর্থতায় ম্লান বোলিং সাফল্য         মিল্কি ওয়ের প্রথম ‘পালক’         সরকারী কাস্টডিতে নেই খালেদা, তিনি মুক্ত         ঢাকায় বিশ্ব শান্তি সম্মেলন ৪ ডিসেম্বর শুরু         ওমিক্রন প্রতিরোধে সতর্ক অবস্থায় সারাদেশ         সাদা পোশাকে দেশে সবার ওপরে মুশফিক         সাগরে জলদস্যুতায় যাবজ্জীবন দন্ড         গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন, ৪১ বছর পূর্তির আয়োজন         কুয়েতে পাপুলের সাত বছরের কারাদন্ড         পাকি প্রেম দূরে রাখুন         বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ         ‘মোকাবেলা করে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে ’         তৃতীয় ধাপের সহিংসতাহীন নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে দাবি ইসির         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৩         করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সতর্কবার্তা         পরিবহন সেক্টর কার নিয়ন্ত্রণে : জি এম কাদের         সংসদে নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন আনা হচ্ছে শিগগিরই ॥ আইনমন্ত্রী         বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী সৌদির ৩০ কোম্পানি         আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে নগর পরিবহন চালু সম্ভব নয় : মেয়র তাপস