ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

বৃষ্টি জিততে দিল না নিউজিল্যান্ডকে

হ্যামিল্টন টেস্ট ড্র, সিরিজ দ. আফ্রিকার

প্রকাশিত: ০৬:৩০, ৩০ মার্চ ২০১৭

হ্যামিল্টন টেস্ট ড্র, সিরিজ দ. আফ্রিকার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বৃষ্টির কারণে শেষদিনে একটি বলও মাঠে গড়ায়নি। নিউজিল্যান্ডের জয়ের স্বপ্নে পানি ঢেলে দিয়ে ড্র হয়েছে হ্যামিল্টন টেস্ট। ফলে তিন ম্যাচের সিরিজ ১-০তে জিতে নিয়েছে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা। শেষদিনে ইনিংস হার এড়াতে প্রোটিয়াদের প্রয়োজন ছিল ৯৫ রান, হাতে উইকেট মাত্র পাঁচটি। দীর্ঘ ১৩ বছরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ের স্বপ্ন দেখছিল কিউইরা। সেই ২০০৪ সালের পর টানা ১৬ টেস্টে কখনই প্রতিপক্ষকে হারাতে পারেনি তারা। কিন্তু আবহাওয়া কেন উইলিয়ামসনদের বঞ্চিত করল। সান্ত¡না, ১৭৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা হয়েছেন স্বাগতিক অধিনায়ক। প্রথম ইনিংসে ৩১৪’র জবাবে ৪৮৯ রানে অলআউট হয় নিউজিল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে দ. আফ্রিকা ৮০/৫ (৩৯ ওভার)। ডুনেডিনের প্রথম টেস্টও ড্র হয়, ওয়েলিংটনের দ্বিতীয় ম্যাচে ৮ উইকেটের জয় পায় অতিথিরা। কঠিন বিপর্যয়ের মুখে শেষদিনের বৃষ্টি যে দক্ষিণ আফ্রিকাকে আসলেই বাঁচিয়ে দিয়েছে, সেটি স্বীকার করেছেন অধিনায়ক ফ্যাফ ডুপ্লেসিস, ‘এটা বলাই যায়, বৃষ্টি আমাদের বাঁচিয়ে দিয়েছে। শেষদিনে আমাদের করণীয় সম্পর্কে আমরা সচেতন ছিলাম। তবে নিউজিল্যান্ড সত্যিই দুর্ভাগা।’ আর স্বাগতিক অধিনায়ক উইলিয়ামসন বলেন, ‘শেষদিনে আমাদের অনেক কিছুই পাওয়ার ছিল। স্বাভাবিকভাবেই আমি খুব হতাশ। তবে প্রকৃতির ওপর কারও হাত নেই। এটা ঠিক বৃষ্টি এই টেস্টে যেভাবে বারবার হানা দিয়েছে, তাতে এতটুকু ক্রিকেট যে আমরা খেলতে পেরেছি, তাতে নিজেদের ভাগ্যবানই ভাবা উচিত।’ মাচ ড্র হলেও ব্যক্তিগত প্রাপ্তি উইলিয়ামসনকে এই টেস্টের কথা মনে করিয়ে দেবে। ১৭৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংসটির মধ্য দিয়ে পূর্বসূরি গ্রেট মার্টিন ক্রো’র সঙ্গে যৌথভাবে নিউজিল্যান্ডের সর্বাধিক ১৭ টেস্ট সেঞ্চুরির মালিক এখন তুখোড় এই ব্যাটসম্যান। তাও মাত্র ২৬ বছর বয়সে। একইসঙ্গে ব্ল্যাক-ক্যাপসদের হয়ে কম ইনিংসে (১১০) পাঁচ হাজারি ক্লাবে নাম লিখিয়ে নতুন রেকর্ডও গড়েছেন উইলিয়ামসন। এক্ষেত্রেও ক্রো’কে (১১৭) পেছনে ফেলেছেন তিনি। ৭৭.২৫ গড়ে ২ সেঞ্চুরিতে সিরিজে সর্বোচ্চ ৩০৯ রান কিউই অধিনায়কেরই। আর চার ইনিংসে সর্বাধিক ১৫ উইকেট নিয়েছেন তরুণ প্রোটিয়া বাঁহাতি স্পিনার কেশভ মহারাজ। স্কোর ॥ দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংস ৩১৪/১০ (৮৯.২ ওভার; এলগার ৫, ব্রুইন ০, আমলা ৫০, ডুমিনি ২০, ডুপ্লেসিস ৫৩, বাভুমা ২৯, ডি কক ৯০, ফিল্যান্ডার ১১, মহারাজ ৯, রাবাদা ৩৪, মরনে মরকেল ৯*; হেনরি ৪/৯৩, গ্র্যান্ডহোম ২/৬২, ওয়াগনার ৩/১০৪, স্যান্টনার ১/২৪) ও দ্বিতীয় ইনিংস ৮০/৫ (৩৯ ওভার; এলগার ৫, ডি ব্রুইন ১২, আমলা ১৯, ডুমিনি ১৩, ডুপ্লেসিস ১৫*, বাভুমা ১, ডি কক ১৫*; হেনরি ১/২০, ডি গ্র্যান্ডহোম ১/১৫, ওয়াগনার ০/১৬, প্যাটেল ২/২২, স্যান্টনার ০/৭)। নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংস ৪৮৯/১০ (১৬২.১ ওভার; লাথাম ৫০, র‌্যাভাল ৮৮, উইলিয়ামস ১৭৬, স্যান্টনার ৪১, ওয়াটলিং ২৪, ডি গ্র্যান্ডহোম ৫৭, হেনরি ১২, প্যাটেল ৫, ওয়াগনার ০*; ফিল্যান্ডার ০/৭৯, মর্কেল ৪/১০০, রাবাদা ৪/১২২, মহারাজ ২/১১৮, ডুমিনি ০/৩৮, এলগার ০/১৩, বাভুমা ০/৭)। ফল ॥ ম্যাচ ড্র। ম্যাচসেরা ॥ কেন উইলিয়ামসন (নিউজিল্যান্ড)। সিরিজ ॥ তিন টেস্টের সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকা ১-০তে জয়ী।
monarchmart
monarchmart