শুক্রবার ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

জুলাই থেকে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর হবে

  • আইএমএফ প্রতিনিধি দলকে জানালেন অর্থমন্ত্রী

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আগামী জুলাই মাস থেকে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

সোমবার সচিবালয়ে নিজ দফতরে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) মিথসুহিরো ফুরুসাওয়ার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, ভ্যাট আইন কার্যকর বিষয়ে আইএমএফ পরামর্শ দিয়েছে। এ আইনটি কার্যকরের বিষয়ে আইএমএফের প্রতিনিধি দলকে জানানো হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির সবকিছু ভালভাবে চলছে। তবে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। তিনি বলেন, আগামী ১ জুলাই থেকে এ আইন কার্যকর করা হবে। এনবিআর ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক করে যে সারসংক্ষেপ প্রস্তুত করেছে তা আগামী সপ্তাহেই হাতে পাওয়া যাবে। সেটা দেখে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, ব্যবসায়ীদের দাবির প্রেক্ষিতে গত অর্থবছর থেকেই পণ্য ও সেবা বিক্রির ওপর ১৫ শতাংশ হারে মূল্য সংযোজন কর (প্যাকেজ ভ্যাট) আদায়ের পরিকল্পনা এক বছর পিছিয়ে দেয় সরকার। গত বছরের ১ জুলাই থেকে ২০১২ সালের ‘মূসক ও সম্পূরক শুল্ক আইন’ কার্যকর করে ওই ভ্যাট আদায়ের পরিকল্পনা করা হলেও তা এখন আগামী ১ জুলাই থেকে কার্যকর করার ঘোষণা দিলেন অর্থমন্ত্রী।

ইতোমধ্যে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট দিতে আপত্তি জানিয়ে কয়েক দফা ব্যবসায়ীরা মানববন্ধন ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। মূলত ব্যবসায়ীদের দাবির কারণে গত এক বছর আগে আইনটি কার্যকর হয়নি।

যদিও চলতি বাজেট বক্তৃতায়ও এ প্রসঙ্গে মুহিত বলেন, মূল্য সংযোজন কর আইনটি অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ২০১২ সালে গৃহীত হয়। নতুন ব্যবস্থায় উৎপাদন প্রক্রিয়ার প্রতি স্তরে মূল্য সংযোজন কর প্রযোজ্য করার স্বার্থে উৎপাদনকারী ও সেবাদানকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নিম্নপর্যায়ের যথাযথ হিসাব রাখার ব্যবস্থাটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দুর্ভাগ্যবশত দেখা যাচ্ছে যে, এজন্য প্রস্তুতি এখন পর্যন্ত যথাযথ নয়। এ প্রেক্ষিতে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, ২০১২ সালে প্রণীত মূল্য সংযোজন কর আইন ২০১৬-১৭ অর্থবছরেও পুরাপুরি কার্যকর হবে না। তবে এটি জুলাই ২০১৭ সাল থেকে পুরোপুরি কার্যকর হবে।

ওই সময় তিনি আরও বলেন, আমাদের লক্ষ্য কিন্তু বদলে যায়নি। আমরা আইনটি পুরোপুরি কার্যকর করব একটি বছর পরে।

এদিকে চলতি অর্থবছরে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২ লাখ ৪২ হাজার ৭৫২ কোটি টাকা, যার মধ্যে মূসক থেকেই ৭২ হাজার ৭৬৪ কোটি টাকা আসবে বলে অর্থমন্ত্রী আশা করছেন। ভ্যাটের এ অঙ্ক গত অর্থবছরের তুলনায় ৩৫ শতাংশ বেশি। এছাড়া আগামী ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জন্য ৪ লাখ ২০ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন অর্থমন্ত্রী। বড় অঙ্কের এ বাজেট বাস্তবায়ন ও অর্থ সংগ্রহে রাজস্ব আদায়ে সবচেয়ে বেশি জোর দিচ্ছে সরকার। আর এ কারণেই এবার ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে জোর দেয়া হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

শীর্ষ সংবাদ:
অবৈধ ক্লিনিকের দৌরাত্ম্য ॥ ভুল চিকিৎসায় প্রতিনিয়ত মৃত্যু         ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য উন্নত জীবন নিশ্চিত করতে চাই         জঙ্গী নেতা আবদুল হাই যেভাবে ১৭ বছর আত্মগোপনে ছিলেন         জামিনে মুক্ত দুর্ধর্ষ অপরাধীদের ওপর চলবে নজরদারি         পাচার করা অর্থ ফিরিয়ে আনলে সাধারণ ক্ষমা ॥ অর্থমন্ত্রী         সিরাজগঞ্জে ট্রাক-লেগুনা সংঘর্ষ ॥ নাটোরের ৫ কৃষি শ্রমিক নিহত         হজের খরচ বাড়ল ৫৯ হাজার টাকা         হার ঠেকানোর চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশের         বিনিয়োগ বাড়াতে নিরবচ্ছিন্ন সেবা দিচ্ছে বিডা         ফের ঢাবি ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষ         হাজার কোটি টাকা পাচার হওয়ার কারণেই বিএনপির গায়ে জ্বালা         সিলেটে বন্যায় প্রাথমিক ক্ষতি হাজার কোটি টাকা         বিএনপি ক্ষমতায় যেতে অন্ধকার চোরাগলি খুঁজছে ॥ কাদের         ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ঋণ মওকুফের দাবি         ছাত্রলীগ-ছাত্রদল ব্যাপক সংঘর্ষে খুলনা নগরী রণক্ষেত্র ॥ আহত অর্ধশতাধিক         বাংলাদেশে গণমাধ্যমের বিকাশ অনেক উন্নয়নশীল দেশের জন্য উদাহরণ         বাংলাদেশে আমরা জঙ্গি দমন করেছি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         করোনা : ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত ২৮         ট্যাক্স দিয়ে বিদেশে পাচার টাকা দেশে আনা যাবে : অর্থমন্ত্রী