ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০

সিকান্দার বয়াতী

সব ম্যাচেই খেলতে চান রুনি

প্রকাশিত: ০৬:৩৪, ২৬ অক্টোবর ২০১৬

সব ম্যাচেই খেলতে চান রুনি

জাতীয় দল কিংবা ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড- উভয় ক্ষেত্রেই যেন মূল্যহীন হয়ে পড়েছেন ওয়েন রুনি। মূলত ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এবং ইংল্যান্ডের জার্সিতে গোল করতে ব্যর্থ হওয়ার কারণেই এমন হাল তার। এখন মূল একাদশের বাইরে থাকাটা যেন নিয়মিত হয়ে গেছে রেড ডেভিলদের এই ইংলিশ স্ট্রাইকারের। ক্লাব এবং জাতীয় দলের হয়ে শেষ ছয় ম্যাচের পাঁচটিতেই বদলি খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নেমেছেন তিনি। এমনকি সোমবার এ্যানফিল্ডে শক্তিশালী লিভারপুলের বিপক্ষে ম্যাচেও প্রথম একাদশে স্থান পাননি রুনি। তবে মার্কাস রাশফোর্ডের পরিবর্তে খেলতে নেমেও কোন গোলের দেখা পাননি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এই ইংলিশ স্ট্রাইকার। তাই এই মুহূর্তে হুমকির মুখে রুনির ভবিষ্যত। তবে রুনির মতে, এখনও ফুটবলে অনেক কিছুই দেয়ার বাকি আছে তার। এ প্রসঙ্গে এক সাক্ষাতকারে রুনি তার অভিমত প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, ‘আগামী সপ্তাহেই আমার বয়স হবে ৩১। আমি মনে করি ফুটবলে এখনও অনেক কিছুই দেয়ার বাকি আছে আমার।’ ২০০৪ সালে এভারটন থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেন রুনি। এরপর থেকে আর পেছনের দিকে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। এই সময়ের মধ্যে ইংলিশ ফুটবলে রাজত্বও করেছে তার ক্লাব ম্যানইউ। কিন্তু স্যার এ্যালেক্স ফার্গুসনের বিদায়ের পর থেকেই যেন দুর্ভাগ্য শুরু হয় ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের সবচেয়ে সফল ক্লাবটির। সেইসঙ্গে হতাশার সূচনা ঘটে রুনিরও। ডেভিড মোয়েস, ভ্যান গালের মতো কোচদের নিয়োগ করেও কোন ধরনের ফল পায়নি ম্যানচেস্টারের ক্লাবটি। সর্বশেষ কোচ হিসেবে নিয়োগ দেন জোশে মরিনহোকে। রেড ডেভিলদের ভাগ্য ঘুরানোর সবধরনের প্রচেষ্টাই চালিয়ে যাচ্ছেন এই স্পেশাল ওয়ান। আক্রমণভাগকে শক্তিশালী করার জন্য ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে এসেই কিনে এনেছেন জ¬াতান ইব্রাহিমোভিচ এবং পল পোগবাকে। বিশ্বফুটবলের অন্যতম সেরা এবং প্রতিভাবান এই দুই ফুটবলারকে কিনে আনলেই স্ট্রাইকার থেকে মিডফিল্ডারের ভূমিকায় পরিণত হন ওয়েন রুনি! ক্যারিয়ারের বাজে সময় কাটলেও হাল ছাড়তে নারাজ এই ইংলিশ ফুটবলের সর্বোচ্চ গোলস্কোরার। নিজের চেষ্টা চালিয়ে যেতে চান ওয়েন রুনিও। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই আমার কাজটা করে যাচ্ছি এবং চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আমি বিশ্বাস করি সুযোগ আসবেই।’ রুনির মতে, ইউনাইটেডের সব খেলাই খেলতে চান তিনি, ‘আমি মনে করি প্রতিটি ম্যাচেই খেলতে পারব আমি। কিন্তু এটা অবশ্যই কোচের সিদ্ধান্ত। আমি অবশ্যই তাদের সিদ্ধান্তকে সম্মান করি। যখনই তাদের প্রয়োজন হবে তখনই আমার সেরাটা ঢেলে দেয়ার জন্য প্রস্তুত আমি।’ ওয়েইন রুনির বর্তমান বয়স ৩০। আগামী ২৪ অক্টোবর একত্রিশে পা রাখবেন তিনি। ইংলিশ ফুটবলের সবচেয়ে সফল ক্লাব ম্যানইউ। প্রিমিয়ার লীগেও সর্বোচ্চ ২০ বারের চ্যাম্পিয়ন তারা। অথচ ২০১২-১৩ মৌসুমে এ্যালেক্স ফার্গুসনের অধীনে সর্বশেষ শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছিল রেড ডেভিলরা। এরপর থেকেই আর খুঁজে পাওয়া যায়নি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে। গত মৌসুমে তো চ্যাম্পিয়ন্স লীগে খেলার যোগ্যতাও হারিয়ে ফেলে তারা! যে কারণে এখন উয়েফা ইউরোপা লীগে খেলছে তারা। ইউরোপা লীগে আজ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের প্রতিপক্ষ ফেনারবাখ। রুনি কী আজ সুযোগ পাবেন প্রথম একাদশে খেলার? নাকি সেই বদলি হিসেবেই মাঠে নামবেন গোলহীন স্ট্রাইকারে পরিণত হওয়া এই ইংলিশ ফুটবলার! ভক্ত-অনুরাগীদের অপেক্ষা এখন সেটাই দেখার।
×