শুক্রবার ৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ভারতের নৌবাহিনীর গুরুতর গোপন তথ্য ফাঁস

ভারতের নৌবাহিনীর গুরুতর গোপন তথ্য ফাঁস

অনলাইন ডেস্ক ॥ নৌবাহিনীর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এক নথি ফাঁস হয়ে যাওয়ায় জাতীয় নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গেল। ‘স্করপিন’ মডেলের অত্যাধুনিক সাবমেরিনের কর্মপদ্ধতি সংক্রান্ত ওই নথির প্রায় ২২ হাজার পাতা অস্ট্রেলিয়ার একটি সংবাদপত্রের অনলাইন সংস্করণে প্রকাশিত হয়েছে। সত্যিই যে ওই নথি ফাঁস হয়েছে, তা স্বীকার করে নিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পর্রীকর। হ্যাকারদের কবলে পড়েই যে ঘটনাটি ঘটেছে, তাও জানিয়েছেন তিনি।

ফরাসি অস্ত্র নির্মাণ সংস্থা ডিসিএনএস-এর সঙ্গে গত বছর ভারতের প্রায় ৩৫০ কোটি মার্কিন ডলারের চুক্তি হয়েছে। ওই চুক্তি অনুযায়ী ছ’টি সাবমেরিন তৈরি হচ্ছে মুম্বইয়ের মাজেগাঁও বন্দরে। ফরাসি প্রকৌশলে বানানো ‘স্করপিন’ মডেলের ওই সাবমেরিনগুলির ৩০ শতাংশ যন্ত্রাংশ তৈরি হয়েছে ভারতে। বাকি যন্ত্রাংশ আনা হয়েছে ডিসিএনএস-এর কাছ থেকে। গুরুত্বপূর্ণ সেই সাবমেরিনের কর্মপদ্ধতি সংক্রান্ত নথি ফাঁস হওয়া প্রসঙ্গে বুধবার পর্রীকর বলেন, ‘‘রাত ১২টা নাগাদ আমার কাছে খবর আসে ওই নথি ফাঁস হয়েছে। বুঝতে পারছি এটা হ্যাকিং-এর ঘটনা। ঠিক কী হয়েছে, সেটা খতিয়ে দেখা হবে।’’

নৌবাহিনীর এক কর্তা জানিয়েছেন, তাঁরা নিশ্চিত ওই হ্যাকিং ভারতের বাইরেই হয়েছে। তবে এর ফলে খুব একটা ক্ষতি হবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি। এমনকী, অস্ট্রেলিয়ার ওই সংবাদপত্র কর্মপদ্ধতি সংক্রান্ত যে ব্যাখ্যা করেছে সেটাও ঠিক নয় বলে তাঁর দাবি। ওই সংবাদপত্রের দাবি, পাঁচ বছর আগে ২০১১ সালে ফ্রান্সে ওই নথি ফাঁস হয়েছে। তবে যৌথ উদ্যোগের এই তথ্য ভারত না কি ফ্রান্স থেকে ফাঁস হয়েছিল, সে বিষয়ে কিছুই জানায়নি তারা।

গত বছরের অক্টোবরেই ‘স্করপিন’ মডেলের প্রথম সাবমেরিন ‘আইএনএস কালভারি’কে জলে ভাসানো হয়। এক বছর ধরে তার কার্যক্ষমতা পরীক্ষা করে দেখা হয়। আগামী সেপ্টেম্বরেই ‘আইএনএস কালভারি’র ভারতীয় নৌবাহিনীতে নিয়ে আসার কথা। আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে বাকি সব ক’টি সাবমেরিনই বানানো হয়ে যাবে বলে মন্ত্রক সূত্রে জানানো হয়েছিল। তার আগেই ওই সাবমেরিনের কর্মপদ্ধতি সংক্রান্ত নথি ফাঁস হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক।

‘স্করপিন’ মডেলের সাবমেরিনগুলি অন্য সাবমেরিনের থেকে অনেকটাই আলাদা। যেমন ‘আইএনএস কালভারি’ ৬৭ মিটার লম্বা। তার ওজন দেড় হাজার টনেরও বেশি। চওড়া প্রায় সাড়ে ছয় মিটার। সাবমেরিনটি চালানো যায় ডিজেল ও বিদ্যুতে। এটি এমন ভাবে বানানো হচ্ছে যাতে তা অনেক ক্ষণ জলের তলায় ডুবে থাকতে পারে। শুধু তাই নয়, ‘স্করপিন’ থেকে অনায়াসে যুদ্ধজাহাজ ধ্বংস করার টর্পেডো আর ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া যাবে।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

শীর্ষ সংবাদ:
অ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার অবনতি, আইসিউতে স্থানান্তর         করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় কারিগরি কমিটির ৭ পরামর্শ         ভিডিও কলে কথা বলে কিশোরীর ইচ্ছা পূরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী         এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে ২৪ সেপ্টেম্বর         ফিফা র্যাংকিংয়ে আগের অবস্থানেই আছে বাংলাদেশ, একধাপ পেছালো ভারত         স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ালেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী         শিক্ষায় বিভক্তির ফল সামাজিক বিভক্তি ॥ রাশেদ খান মেনন         বনানীতে আবাসিক ফ্লাটে অগ্নিকাণ্ড         ফিলিস্তিন সমস্যার সমাধান ছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি আসবে না ॥ রাশিয়া         হিগুয়াইনকে বিদায় জানাল জুভেন্টাস         সৌদিতে ড্রোন হামলা চালাল ইয়েমেন         ধর্ষককে নপুংসক করে দেওয়ার আইন পাস নাইজেরিয়ায়         বিস্ফোরণ গ্যাস লিকেজেই ॥ নারায়ণগঞ্জে মসজিদের ঘটনায় তদন্ত রিপোর্ট         নতুন সংসদ ভবন তৈরি করা হচ্ছে ভারতে         দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন গড়ার উপায় বের করুন         পেঁয়াজ আমদানি প্রক্রিয়া সহজ হচ্ছে         মেয়াদ না বাড়িয়ে নির্দিষ্ট সময়ে সব প্রকল্প শেষ করার নির্দেশ         করোনা মোকাবেলায় আরও নজরদারির তাগিদ         রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের চাপ অব্যাহত         করোনায় দেশে আরও ৩৬ জনের মৃত্যু