শুক্রবার ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৭ আগস্ট ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ইউরোপে সামরিক ব্যয় বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

রুশ আগ্রাসন রোধে এক শক্তিশালী ও ভারসাম্য পদক্ষেপের অংশ হিসাবে ইউরোপে সামরিক ব্যয় বাড়িয়ে দিচ্ছে আমেরিকা, বলেছেন মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী। ইউক্রেনে মস্কোর আগ্রাসনের পর হোয়াইট হাউস এ ব্যয় চারগুণ বৃদ্ধি করতে চাইছে। এ প্রস্তুতির ফলে স্নায়ুযুদ্ধের উত্তেজনা ফিরে আসবে। খবর টেলিগ্রাফ অনলাইনের।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ্যাশ কার্টার বলেন, সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙ্গে যাওয়ার পর যে কোন সময়ের চেয়ে রুশ কর্মকা-ের ব্যাপারে এখন আরও উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র। রুশ হস্তক্ষেপ ও হামলার আশঙ্কাগ্রস্ত ইউরোপের পূর্বাঞ্চলীয় দেশগুলোকে পূর্ণ আশ্বাস দেয়ার লক্ষ্যে সামরিক অস্ত্র ও সরঞ্জাম মোতায়েনে ব্যয় বাড়িয়ে দিচ্ছে ওয়াশিংটন। দেশটির ২০১৭ সালের বাজেট প্রস্তাব অনুযায়ী এ ব্যয় ৫৪ কোটি ৭ লাখ পাউন্ড (৭৮ কোটি ৯ লাখ ডলার) থেকে বেড়ে দাঁড়াবে ২শ’ ৪০ কোটি পাউন্ডে (৩শ’ ৪০ কোটি ডলার)। প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ ব্যয় পরিকল্পনা প্রকাশ করে বলেন, ভবিষ্যৎ শত্রুদের অবশ্য চিহ্নিত করতে হবে আমাদের। তারা যুদ্ধ শুরু করলে জয়লাভের সামর্থ্য আমাদের রয়েছে। তিনি ইকোনমিক ক্লাব অব ওয়াশিংটনে এক ভাষণে বলেন, এ ব্যাপারে ২৫ বছর ধরে কোন উদ্বেগ নেই আমাদের। তিনি বলেন, ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্যও বাজেট বৃদ্ধি পাবে এবং তা ৫শ’ ২০ কোটি পাউন্ডে (৭শ’ ৫০ কোটি ডলার) দাঁড়াবে। তিনি বলেন, আমেরিকার জঙ্গী বিমানগুলো ৮ মাস যাবত ইরাক ও সিরিয়ায় জঙ্গী যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে হামলা চালিয়ে যাচ্ছে বলে যুদ্ধাস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম হ্রাস পাওয়া শুরু হয়েছে। আমেরিকা তাই আরও সূক্ষ্ম মানসম্পন্ন নতুন বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র তৈরিতে ব্যয় করবে ১শ’ ৩০ কোটি পাউন্ড (১শ’ ৮০ কোটি ডলার)।

আমেরিকা কয়েক দশক ধরে ইউরোপে সৈন্য সংখ্যা ও যুদ্ধ সরঞ্জাম হ্রাসের যে নীতি গ্রহণ করেছিল ২০১৪ য়ে রাশিয়ার ক্রিমিয়া সংযুক্তির পর তা থেকে সরে আসে এবং এক প্রতিরোধ গড়া শুরু করে। বাল্টিক অঞ্চলের রাষ্ট্রগুলো ও পোল্যান্ডের মতো ন্যাটো দেশগুলো আশঙ্কা করছে, ক্রেমলিনের পরবর্তী লক্ষ্যবস্তু হবে তারা। আমেরিকা এ দেশগুলোতে মহড়া বাড়িয়ে দিয়েছে এবং ট্যাংক, হাউইট সার, সাঁজোয়া যান মোতায়েন করবে।

শীর্ষ সংবাদ:
সোনার বাজারে আগুন ॥ দাম বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে         বিনিয়োগ পরিবেশ আরও আকর্ষণীয় করতে হবে         আত্মসমর্পণের পর ওসি প্রদীপসহ ৭ জন রিমান্ডে         দুর্নীতি তদন্তে স্বাস্থ্য অধিদফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুদকে তলব         বন্যার কোথাও উন্নতি কোথাও অবনতি ॥ নতুন এলাকা প্লাবিত         বৈরুতে এখনও অনেকে নিখোঁজ, ধ্বংসস্তূপে আটকা পড়ার শঙ্কা         বলির পাঁঠা সিফাত ও শিপ্রা         ঘুষ নিয়ে দ্বন্দ্বের জের, কৃষককে কুপিয়ে হত্যা         কাঁচা চামড়া কেনার আগ্রহ ২০ জুতা কোম্পানির         স্বাস্থ্যের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মিডিয়ায় সাক্ষাতকারে অনুমতি লাগবে         সিনহা হত্যা : ওসি প্রদীপ ও ইন্সপেক্টর লিয়াকতসহ তিনজন রিমান্ডে         দ্বিতীয় প্রান্তিকে বিনিয়োগ প্রস্তাব হ্রাস ৬৭ শতাংশ         বেড়িবাঁধ নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণে স্থানীয় জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে         ‘ইসির নতুন আইন চাপিয়ে দেওয়া হবে না ’         সরকারি কর্মকর্তাদের অফিস করতে হবে ৯টা-৫টা         কোটি টাকা আত্মসাৎ ॥ সাহেদকে হেফাজতে চায় দুদক         স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রী কিনতে ৩০ লাখ ডলার দেবে এডিবি         মাতারবাড়ী প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি হয়েছে ॥ নৌ প্রতিমন্ত্রী         ঠাকুরগাঁও ১ আসনের সংসদ সদস্য করোনায় আক্রান্ত        
//--BID Records