ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯

টি২০ সিরিজ ভারতের

প্রকাশিত: ০৫:৪১, ৩০ জানুয়ারি ২০১৬

টি২০ সিরিজ ভারতের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ওয়ানডে হারের বদলটা ভালমতোই নিল ভারত। টানা দুই জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই টি২০ সিরিজ জিতল মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। দুরন্ত ব্যাটিংয়ে এবারও ‘নায়ক’ বিরাট কোহলি! মেলবোর্নে একতরফা আধিপাত্যের ম্যাচে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৮৪ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে টসে হেরে ব্যাটিং পাওয়া ভারত। জবাবে ৮ উইকেটে ১৫৭তে থেমে যায় স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ। টানা তিন জয়ে দুই ম্যাচ আগেই ওয়ানডে সিরিজ জিতেছিল স্টিভেন স্মিথের দল। ‘হোয়াইটওয়াশের’ সামনে দাঁড়িয়ে টি২০তে উল্টো তেমনি তিক্ত অভিজ্ঞতা এ্যারন ফিঞ্চের নেতৃত্বাধীন অসিদের। সিডনিতে আনুষ্ঠানিকতার শেষ ম্যাচ রবিবার। এ যেন প্রথম ম্যাচেরই পুনরাবৃত্তি। ১৮৪ রান তাড়া করতে নেমে কালও নিজেদের ১০ ওভারে পাগলা ঘোড়ার মতো ছুটছিল অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস। দুই ওপেনার শন মার্শ ও অধিনায়ক এ্যারন ফিঞ্চ বিনা উইকেটে তুলে নেন ৯৪ রান। কিন্তু এরপরই ৭ রানের ব্যবধানে ৩ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় স্বাগতিকরা। সাজঘরে ফেরেন মার্শ (২৩), ক্রিস লিন (২) ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল (১)! একপ্রান্তে ফিঞ্চ তখনো চালিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু দলীয় ১৬তম ওভারে অধিনায়ক আউট হলে ভারতের জয় অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায়। ৪৮ বলে ৮ চার ও ২ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৭৪ রান করে দুর্ভাগ্যজনকভাবে রানআউট হন তিনি। কাকতালীয় প্রথম টি২০তেও দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেছিলেন ফিঞ্চ। অতিথিদের হয়ে ২টি করে উইকেট নেন তরুণ পেসার জাসপ্রিত বুমরা ও স্পিনার রবিন্দ্র জাদেজা। টি২০ বিশ্বকাপ সামনে রেখে স্বাগতিকদের ওপর দিয়ে ওয়ানডে ব্যর্থতার ঝাল মেটাচ্ছেন কোহলি। প্রথম ম্যাচে তার ‘প্রায় সেঞ্চুরি’র ইনিংসে ভর করে জিতেছিল ভারত। এবারও ঝড় তুললেন ইন্ডিয়ান ক্রিকেটের ‘ক্রেজি বয়’। প্রথমদিন একাই খেলেছিলেন, ৫৫ বলে তার ৯০ রানের ইনিংসটাই পার্থক্য গড়ে দিয়েছিল। কাল অবশ্য কোহলি মাঠে নামার আগে রানের পাহাড়ের দিকে ছোটে সফরকারীরা। দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান ১১ ওভারেই তুলে নেন ৯৭ রান। ফলে কোহলির হাত খুলে খেলার কাজটা সহজ হয়ে যায়। ৭ চার ও ১ ছক্কায় তার অপরাজিত ৫৯ রানের ইনিংসটা ভারতকে ১৮৪ রানের বিশাল সংগ্রহ পাইয়ে দেয়। রোহিত ৪৭ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় করেন ৬০ রান। আর ধাওয়ানের ৪২ আসে ৩২ বল থেকে। বিশ্বকাপ সামনে রেখে টি২০ সিরিজকে পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য বেছে নেয়া অস্ট্রেলিয়া দলে এদিন তিন ক্রিকেটারের অভিষেক হয়। এদের মধ্যে প্রতিপক্ষের রান-বন্যার মাঝেও কিছুটা নিয়ন্ত্রণ ছিল স্কট বোল্যান্ড ও এ্যান্ড্রু টাইর। দু’জন ৮ ওভারে দিয়েছেন ৫৮ রান। কিন্তু অভিজ্ঞ স্পিনার নাথান লেয়নের দুঃস্বপ্ন, ১ ওভারেই ১৫ রান দিয়েছেন তিনি। এরপর আর তার হাতে বল তুলে দেয়ার সাহস পাননি ফিঞ্চ। টি২০তে এত রান তাড়া করে আগে কখনই জেতেনি অস্ট্রেলিয়া। ১৬০-এর বেশি তুলে দলটির জয় মাত্র একবার। প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয়টিতেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। যেমন ব্যতিক্রম হয়নি টানা দুই ম্যাচে অপরাজিত থেকে কোহলির ‘ম্যান অব দ্য ম্যাচ’ পুরস্কার জিতে নেয়ায়! যেদিন ভাল যায় সেদিনের সবই ভাল। জয়ের পর ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং তিন বিভাগেই সতীর্থদের পারফর্মেন্সের প্রশংসা করেন অধিনায়ক ধোনি। কন্ডিশনের চ্যালেঞ্জ জয় করে দলকে জেতাতে পেরে খুশি ম্যাচের ‘নায়ক’ কোহলিও। স্কোর ॥ ভারত ইনিংসÑ ১৮৪/৩ (২০ ওভার; রোহিত ৬০, কোহলি ৫৯*, ধাওয়ান ৪২, ধোনি ১৪, রায়না ০*; ম্যাক্সওয়েল ১/১৭, টাই ১/২৮, ওয়াটসন ০/১৭, হ্যাস্টিংস ০/৩৫)। অস্ট্রেলিয়া ইনিংস ১৫৭/৮ (২০ ওভার; ফিঞ্চ ৭৪, শন মার্শ ২৩, ওয়েড ১৬*, ওয়াটসন ১৫, ফকনার ১০, হ্যাস্টিংস ৪; জাদেজা ২/৩২, বুমরা ২/৩৭, যুবরাজ ১/৭, পান্ডিয়া ১/১৭, অশ্বিন ১/২৭)। ফল ॥ ভারত ২৭ রানে জয়ী। ম্যাচসেরা ॥ কোহলি (ভারত)। সিরিজ ॥ তিন ম্যাচের টি২০তে ভারত ২-০তে এগিয়ে।