ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১

কুসিক নির্বাচন

হোল্ডিং ট্যাক্স না বাড়িয়ে নগরের উন্নয়ন, ১২ দফা ইশতেহার

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুমিল্লা

প্রকাশিত: ০০:০৫, ৪ মার্চ ২০২৪

হোল্ডিং ট্যাক্স না বাড়িয়ে নগরের উন্নয়ন, ১২ দফা ইশতেহার

ডা. তাহসিন ও মনিরুল হক সাক্কু গণসংযোগ করেন

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার ১২ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। রবিবার বিকেলে নগরীর ধর্মসাগর পাড়ের তার নির্বাচনী প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে এ ইশতেহার ঘোষণা করেন।

ঘোষিত ইশতেহারে নগরীর যানজট, জলাবদ্ধতা, আবাসন, পয়ঃনিষ্কাশন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, খাদ্য ও নগর কৃষি, স্বাস্থ্যসেবা, সুশিক্ষা, পর্যটন ও বিনোদন, পরিচ্ছন্ন পরিবেশ, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, তথ্য-প্রযুক্তি ও ফ্রিল্যান্সিং, মাদকসহ সামাজিক ব্যধি ও নৈতিক শক্তির পুনরুদ্ধারসহ ১২ দফা তুলে ধরে হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধি না করেই নগর উন্নয়নের নানান কর্মসূচি তুলে ধরা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থীর নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক বিএনপি নেতা এসএ বারী সেলিম, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আতাউর রহমান ছুট্টি, শহিদ উল্লাহ রতন, মাহবুবুর রহমান দুলাল, সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক বিল্লাল হোসেন, মহানগর বিএনপি নেতা এসএম রহমান, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, ইলিয়াস খান রাজু, জেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম রনি, জেলা জাসাস নেতা সিরাজুল ইসলাম মিলনসহ তার অনুসারী বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
নির্বাচনী ইশতেহার পাঠে তিনি বলেন, বিগত সময়ে সিটির উন্নয়ন থাক দূরে, স্বল্প কিংবা দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা অনুযায়ী কোনো কাজ হয়নি। শুধু ভাঙচুর, একই কাজ বারবার করার নামে দুর্নীতি ও লুটপাট করা হয়েছে। উন্নয়নের নামে কাজ বেচাকেনা ও কমিশন বাণিজ্য হয়েছে। ফলে টেকসই উন্নয়ন হয়নি। নাগরিকগণ সঠিক সেবা পায়নি। তিনি বলেন, আমি পরিবর্তনের ধারায় নিরাপদ ও সম্প্রীতির কুমিল্লা গড়তে চাই।

নগরীতে নাগরিকদের প্রধান দুর্ভোগের কারণ- যানজট, জলাবদ্ধ দূরীকরণে তিনি এক গুচ্ছ পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। শ্রমজীবী মানুষের জন্য মানসম্মত ও স্বল্প ভাড়ার আবাসন প্রকল্প গড়ে তোলাসহ নগরীর চার দিকে শহর-উপশহর গড়ে তোলার উদ্যোগ গ্রহণ করবেন বলে উল্লেখ করেন। এছাড়া নগরীর ৫টি স্থানে বিনোদন পার্ক গড়ে তোলার পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে সন্ত্রাস ও কিশোর অপরাধ দমনে উদ্যোগ নেবেন বলেও জানান। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নতুন নতুন বাড়িঘর নির্মিত হলে হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধি পাবে, এতে করে নাগরিকদের ওপর হোল্ডিং ট্যাক্স ও করের বোঝা বাড়বে না।
এদিকে নির্বাচনের আর মাত্র চার দিন বাকি। ৯ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য এ নির্বাচনের ৪৮ ঘণ্টা আগে প্রার্থীদের প্রচার বন্ধ করতে হলে হাতে সময় আছে আর ৩ দিন। শেষ সময়ে প্রার্থী ও তাদের নেতাকর্মীরা বিরামহীন প্রচারে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন। নগরীর রাস্তাঘাট, অলিগলি পোস্টার-ব্যানারে ছেয়ে গেছে। 

প্রার্থীদের প্রচার-উঠান বৈঠক
ডা. তাহসিন বাহার সূচনা ॥ বাস প্রতীকের প্রার্থী ও নগর আওয়ামী লীগ সমর্থিত ডা. তাহসিন বাহার সূচনা রবিবার নগরীর ৭ ও ৮নং ওয়ার্ডের গোবিন্দপুর, ঠাকুরপাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন। পরে তিনি নগরীর ৭নং ওয়ার্ডের গোবিন্দপুর পশ্চিম পাড়া দারুল আমান খানকা শরীফ মাঠে ও ৮নং ওয়ার্ড এলাকায় পৃথক উঠান বৈঠক করেন। 
মনিরুল হক সাক্কু ॥ টেবিল ঘড়ি প্রতীকের প্রার্থী সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু ও তার স্ত্রী আফরোজা জেসমিন টিকলি নগরীর সালমানপুর, গন্ধমতি, দৌলতপুর, বল্লভপুর, জয়পুরসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও উঠান বৈঠক করেন।

নিজাম উদ্দিন কায়সার ॥ ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণার আগে ও পরে নগরীর দৈয়ারা, জাঙ্গালিয়া, নূরপুর, কাঁটাবিল, হযরতপাড়া, হাউজিং এস্টেটসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও উঠান বৈঠক করেন।

নূর-উর রহমান মাহমুদ তানিম ॥ হাতি প্রতীকের প্রার্থী নূর-উর রহমান মাহমুদ তানিম নগরীর চৌয়ারা, জজকোর্ট এলাকা, কান্দিরপাড়, নিউ মার্কেট, ধনাইতরীসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও উঠান বৈঠক করেন। বিকেলে তিনি রিটার্নিং কর্মকর্তার নিকট এক লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, নগরীর ধনাইতরী এলাকায় প্রচারকালে তার নেতাকর্মীদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়েছে।

×