ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ডাহুক নদীতে পাথর তোলার মচ্ছব, হুমকিতে সেতু

স্টাফ রিপোর্টার, পঞ্চগড়

প্রকাশিত: ২০:৫৫, ৩০ অক্টোবর ২০২৩

ডাহুক নদীতে পাথর তোলার মচ্ছব, হুমকিতে সেতু

তেঁতুলিয়ার ডাহুক নদীর তলদেশ থেকে তোলা হচ্ছে পাথর

তেঁতুলিয়ার ডাহুক নদীর ওপর নির্মিত একটি সেতুর তলদেশে নির্বিচারে পাথর উত্তোলন করায় হুমকির মুখে পড়েছে সেতুটি। যে কোনো মুহূর্তে সেতুটি বিলীন হওয়ার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে পাথর উত্তোলনে প্রশাসনের কড়াকড়ি থাকায় এবার অভিনব কৌশলে নদীর গতিরোধ করে ট্রাক্টর দিয়ে তোলা হচ্ছে পাথর। স্থানীয় এক সরকারদলীয় জনপ্রতিনিধির পরোক্ষ ও প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় ডাহুক নদীর তলদেশসহ খাস খতিয়ানভুক্ত জমি থেকেও অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনের মচ্ছব চলছে। অথচ এসব দেখার কেউ আছে বলে মনে হয় না।

অভিযোগে জানা যায়, তেঁতুলিয়া উপজেলার শালবাহান ইউনিয়নের বালাবাড়ি মৌজার বালাবাড়ি এলাকায় খাস জমিতে শালবাহান-ভজনপুর পাকা রাস্তার কালিতলা ডাহুক সেতুর তলদেশে নির্বিচারে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে। এতে করে হারিয়ে যাচ্ছে নদীর চিরচেনা রূপ। নষ্ট হচ্ছে জীববৈচিত্র্য। ডাহুক নদীতে এভাবে পাথর উত্তোলনে নদী সংলগ্ন এলাকার ফসলি জমি ও বাগান ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ারও অভিযোগ উঠেছে। বর্ষা মৌসুমে অল্প বৃষ্টিতেই নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে দুই পাড়ের জমিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে ক্ষতির মুখে পড়ছে বিভিন্ন ফসল।
স্থানীয়দের অভিযোগ, ড্রেজার মেশিন দিয়ে পাথর উত্তোলন বন্ধ হতে না হতে পাথরখেকো অসাধু চক্রটি ভিন্ন কৌশলে শুরু করেছে পাথর উত্তোলন। আর এভাবে পাথর উত্তোলন করলে বড় ধরনের ভূমিকম্পে বা ভারি বর্ষণে সেতুটি বিলীন হয়ে যাবে। স্থানীয় গ্রামবাসী শাহাবুদ্দিন জানান, সেতুর পূর্বদিকে রয়েছে বুড়াবুড়ি ও ভজনপুর ইউনিয়ন, আর পশ্চিমদিকে রয়েছে শালবাহান, তিরনইহাট ও তেঁতুলিয়া সদর ইউনিয়ন। পাঁচ ইউনিয়নের যোগাযোগ এবং জেলার বৃহত্তম বাণিজ্যিক কেন্দ্র শালবাহান বাজারে যাতায়াতের একমাত্র গুরুত্বপূর্ণ সেতু এটি। সেতুর তলদেশে যেভাবে ট্রাক্টর দিয়ে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে তাতে সেতুটি যে কোনো মুহূর্তে ধসে পড়বে। তিনি অবিলম্বে সেতুর তলদেশসহ ডাহুক নদী থেকে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন বন্ধের দাবি জানান।

×