ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১

রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই শ্বশুরের মৃত্যু, গ্রেপ্তার ঘাতক জামাতা

নিজস্ব সংবাদদাতা,হবিগঞ্জ

প্রকাশিত: ২১:৩৭, ১০ জুলাই ২০২৩

রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই শ্বশুরের মৃত্যু, গ্রেপ্তার ঘাতক জামাতা

জামাতা সেলিম

হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাটে জামাতা সেলিম মিয়ার (৩০) ছুরিকাঘাতে মারা গেছেন শ্বশুর নূর আলম (৪৯)। এ ঘটনায় সোমবার (১০ জুলাই) ঘাতক জামাতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নূর আলম উপজেলার শানখলা ইউনিয়নের পানছড়ি আশ্রয়ন কেন্দ্রের বাসিন্দা। সন্ধ্যায় সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার নির্মলেন্দু চক্রবর্তী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, নূর আলমের শরীরে তার জামাতা ছুরি দিয়ে আটটি আঘাত করেন। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। রবি রাতে এ ঘটনা ঘটে। সোমবার সকালে তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। তিনি বলেন, চুনারুঘাট, শায়েস্তাগঞ্জ, শাহজীবাজার ও মাধবপুরের চা বাগানসহ বিভিন্নস্থানে চালানো হয় অভিযান। 

এ অভিযানে ঘাতক জামাতা সেলিম মিয়াকে শাহজীবাজার রেলস্টেশন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে হত্যায় ব্যবহৃত ছুরিটিও।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, প্রায় চার বছর আগে নূর আলমের মেয়ে লাইজু বেগমকে বিয়ে দেন সেলিম মিয়ার সঙ্গে। বিয়ের পর থেকেই সংসারের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শ্বশুর ও শাশুড়ির সঙ্গে সেলিমের প্রায়ই কলহ হতো। এর জেরে ২ জুলাই সেলিমের স্ত্রী লাইজুর সঙ্গে তার ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে সেলিম তার স্ত্রীকে মারপিট করে। পরবর্তীতে স্ত্রী লাইজু চুনারুঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। 

ঘটনায় শ্বশুর নূর আলম জামাতার পরিবারের লোকজনকে গালিগালাজ করেন। খবর পেয়ে রবিবার সেলিম রাতে শ্বশুর বাড়িতে যান। সেখানে স্ত্রী ও শ্বশুরের সঙ্গে তার বাগবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে জামাতা সেলিম ধারালো ছুরি নিয়ে শ্বশুরকে আঘাত করলে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

 

এসআর

সম্পর্কিত বিষয়:

×