২৪ জানুয়ারী ২০২০, ১১ মাঘ ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের ভাগ্যনির্ধারণী লড়াই

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:২৮ এ. এম.
চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের ভাগ্যনির্ধারণী লড়াই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল। অথচ দলটি এবারের মৌসুমে এখন পর্যন্ত দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করতে পারেনি। এজন্য ইংলিশ পরাশক্তিদের গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচের ফলাফলের দিকে তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে।

অবস্থা এমন যে, শেষ ম্যাচে হেরে গেলে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায়ঘণ্টা বেজে যেতে পারে দ্য রেডসদের। এমন সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে ‘ই’ গ্রুপের ভাগ্যনির্ধারণী ম্যাচে আজ রাতে অস্ট্রিয়ান ক্লাব রেড বুল সালসবার্গের আতিথ্য নিচ্ছে লিভারপুল। গ্রুপের আরেক ম্যাচে নেপলসে ইতালিয়ান ক্লাব নেপোলি খেলবে বেলজিয়ামের জেঙ্কের বিরুদ্ধে। ইতোমধ্যে জেঙ্কের বিদায়ঘণ্টা বাজলেও বাকি তিন দলেরই আছে নকআউটে খেলার সম্ভাবনা। বর্তমান পাঁচটি করে ম্যাচ শেষে ১০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে লিভারপুল। ৯ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে নেপোলি ও ৭ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে রেড বুল।

অস্ট্রিয়ান ক্লাবের বিরুদ্ধে ন্যূনতম ড্র করলেই পরের রাউন্ড নিশ্চিত হয়ে যাবে লিভারপুলের। তবে হেরে গেলে বিদায় নেয়ার সম্ভাবনাও আছে। তবে হারলেও সম্ভাবনা থাকবে যদি আরেক ম্যাচে জেঙ্কের কাছে হেরে যায় নেপোলি। এ অবস্থায় কোন সমীকরণে যেতে চান না লিভারপুল কোচ জার্গেন ক্লপ। তিনি বলেন, গ্রুপে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে। তিন দলেরই সুযোগ আছে। রেড বুল ভাল দল। তারা সামর্থ্য দেখিয়েছে। এ কারণে ম্যাচটি আমাদের জন্য সহজ হবে না। তবে নিজেদের সেরাটা দিয়ে জয় পেতে আমরা মুখিয়ে আছি। অন্যদিকে রেড বুলের কোচ জেশে মার্শও সুযোগ কাজে লাগাতে মুখিয়ে আছেন। বাঁচামরার ম্যাচ সামনে রেখে তিনি বলেন, প্রথম লেগে এ্যানফিল্ডে ছেলেরা দুর্দান্ত খেলেছিল। ওই ম্যাচে আমাদের অন্তত এক পয়েন্ট পাওয়া উচিত ছিল। তবে অতীত নিয়ে ভাবছি না। আমাদের ভাল সুযোগ আছে শেষ ষোলোতে খেলার। ঘরের মাঠে ছেলেরা সুযোগ কাজে লাগাতে মরিয়া হয়ে আছে।

গত ২ অক্টোবর এ্যানফিল্ডে দু’দলের লড়াইটা ছিল আকর্ষণে ভরপুর। গোলবন্যার ওই ম্যাচে লিভারপুল জিতেছিল ৪-৩ গোলে। গত ২৭ নবেম্বর ‘এইচ’ গ্রুপে ড্যানিয়েল ওয়াসাসের গোলে চেলসির বিরুদ্ধে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে দারুণ লড়াই করে ২-২ গোল ড্র করেছিল ভ্যালেন্সিয়া। এই ড্রয়ে দু’দলেরই নকআউট পর্বে যাওয়ার অপেক্ষা বেড়েছে। ওই রাতে আরেক ম্যাচে ফরাসী ক্লাব লিলেকে তাদেরই মাঠে ২-০ গোলে হারায় গত মৌসুমে সেমিফাইনালে খেলা ডাচ ক্লাব আয়াক্স। এই ড্রয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে দলটি। এ কারণে আজ রাতে নিজেদের শেষ ম্যাচে ভ্যালেন্সিয়ার বিরুদ্ধে হার এড়ালেই নকআউট রাউন্ড নিশ্চিত হয়ে যাবে আয়াক্সের। অবশ্য ম্যাচটি হেরে গেলেও সুযোগ থাকবে তাদের। সেক্ষেত্রে চেলসি ও লিলের মধ্যকার ম্যাচের ফলাফল কি হয় সেটা বিবেচ্য হবে।

এদিকে ‘এফ’ গ্রুপে নিজেদের ভাগ্যনির্ধারণী ম্যাচে মাঠে নামছে ইতালিয়ান ক্লাব ইন্টার মিলান ও জার্মানির বরুসিয়া ডর্টমুন্ড। এই গ্রুপ থেকে ইতোমধ্যে নকআউট রাউন্ডে খেলা নিশ্চিত করেছে লিওনেল মেসির বার্সা। আরেকটি স্থানের জন্য লড়াই হচ্ছে ইন্টার ও বরুসিয়ার। এক্ষেত্রে কিছুটা সুবিধাজনক অবস্থায় আছে বরুসিয়া। কেননা শেষ ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ ইতোমধ্যে বিদায় নিশ্চিত হওয়া চেক প্রজাতন্ত্রের স্লাভিয়া প্রাগে।

আর ইন্টারকে খেলতে হবে শক্তিশালী বার্সার বিরুদ্ধে। গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে পরের রাউন্ডে যেতে কাতালানদের বিরুদ্ধে জয়ের বিকল্প নেই ইন্টারের। ড্র করলেও ভাগ্য খুলতে পারে, সেক্ষেত্রে বরুসিয়াকে হারতে হবে স্লাভিয়ার কাছে। তেমনি ইন্টার যদি বার্সার কাছে হেরে যায় সেক্ষেত্রে কোন রকমে ড্র করলেই শেষ ষোলোর টিকেট কাটবে বরুসিয়া।

কিছুটা সুবিধাজনক অবস্থান থেকেই তাই মাঠে নামছে বরুসিয়া। আর বাঁচামরার লড়াইয়ে ঘরের মাঠ সানসিরোতে মেসি-সুয়ারেজদের মুখোমুখি হচ্ছে ইন্টার।

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:২৮ এ. এম.

১০/১২/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: