২১ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ৯ ফাল্গুন ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

সাড়ম্বরে ঢাবির ৫২তম সমাবর্তন অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯

মুনতাসির জিহাদ ॥ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক পর্ব শেষ করার স্বীকৃতি হলো সমাবর্তন। স্নাতক পাস করা শিক্ষার্থীদের আনুষ্ঠানিক বিদায় জানানো হয় সমাবর্তনের মাধ্যমে। তবে এই বিদায় বেলায় বিষণœ হয়ে থাকেন না কোন গ্র্যাজুয়েটই। ক্যাম্পাসে এতটাই উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে পড়ে যে কেউ চাইলেও বিদায় বেলায় বিষণœ হয়ে থাকতে পারে না। বরং এই সমাবর্তন গ্রহণের জন্যই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে থাকেন অধিকাংশ গ্র্যাজুয়েট। বিদায়কে এত সাবলীলভাবে গ্রহণ করার অনন্য উদাহরণ এই সমাবর্তন।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বিপুল উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২তম সমাবর্তন সোমবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবর্তনে অংশ নেন ২০ হাজার ৭৯৬ গ্র্যাজুয়েট। ৭৯ কৃতী শিক্ষক, গবেষক ও শিক্ষার্থীকে ৯৮ স্বর্ণপদক দেয়া হয়েছে। এছাড়া ৫৭ জনকে পিএইচডি, ছয়জনকে ডিবিএ এবং ১৪ জনকে এমফিল ডিগ্রী দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

সোমবার বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হল প্রাঙ্গণ থেকে সমাবর্তনের শোভাযাত্রা শুরু হয়। দুপুর ১২টায় ঢাবির কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য ও রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণার মধ্য দিয়ে সমাবর্তনের মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সমাবর্তন বক্তা জাপানের টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও নোবেল বিজয়ী ড. তাকাকি কাজিতা। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান। উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এ সময় উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোঃ কামাল উদ্দীনসহ মন্ত্রী পরিষদের সদস্য, সংসদ সদস্য, বিভিন্ন কূটনৈতিক মিশনের প্রধান, বিশ^বিদ্যালয়ের সিনেট-সিন্ডিকেট সদস্য ও একাডেমিক পরিষদের সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

গতবারের মতো এবারও সমাবর্তনের মোট তিনটি ভেন্যু বানানো হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েটসহ এ্যফিলিয়েট কলেজ-ইনিস্টিউটগুলোর গ্র্যাজুয়েটরা অংশ নিয়েছে। অন্যদিকে ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে ঢাবি অধিভুক্ত সাত সরকারী কলেজের গ্র্যাজুয়েটরা অংশ নিয়েছে ঢাকা কলেজ ও ইডেন মহিলা কলেজ ভেন্যুতে। ঢাকা কলেজ ভেন্যুতে ঢাকা কলেজ, সরকারী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল সরকারী কলেজ, মিরপুর সরকারী বাংলা কলেজ ও তিতুমীর কলেজের গ্র্যাজুয়েটরা অংশ নিয়েছেন। অন্যদিকে ইডেন মহিলা কলেজ ভেন্যুতে অংশ নিয়েছেন উক্ত কলেজ ও বেগম বদরুন্নেছা সরকারী মহিলা কলেজের গ্র্যাজুয়েটরা। মূল সমাবর্তন অনুষ্ঠান সেখানে প্রজেক্টরের মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়েছে।

সমাবর্তন উপলক্ষে সকাল থেকেই গ্র্যাজুয়েটরা কালো গাউন ও সমাবর্তন ক্যাপ পরে অনুষ্ঠানস্থলে আসতে থাকেন। সমাবর্তন ঘিরে পুরো ক্যাম্পাসকে মনোরম আলোকসজ্জা ও ব্যানার-ফেস্টুনে সাজানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে তৈরি করা হয়েছে বিশাল প্যান্ডেল। প্যান্ডেলের ভেতরে ছিল ২০ হাজারের অধিক চেয়ার। সমাবর্তনকে ঘিরে ক্যাম্পাসে কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে প্রশাসন। পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করেছে রোভার স্কাউট, রেঞ্জার গ্রুপ, বিএনসিসি।

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯

১০/১২/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: