১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

ঘূর্ণিঝড়ের খবরে বাগেরহাটবাসী উদ্বিগ্ন : সরকারি ছুটি বাতিল

প্রকাশিত : ৮ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:২১ পি. এম.
ঘূর্ণিঝড়ের খবরে বাগেরহাটবাসী উদ্বিগ্ন : সরকারি ছুটি বাতিল

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ।। ঘূর্ণিঝড় 'বুলবুল' ধেয়ে আসার খবরে উদ্বেগ বাড়ছে 'সিডর' বিধ্বস্ত বাগেরহাটবাসীর মধ্যে। বিশেষ করে মোড়েলগঞ্জ, শরণখোলাবাসী ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর সিডরের মতো একইভাবে প্রবল ঘূর্ণিঝড়টি সৃষ্টি হওয়ায় মানুষ আতঙ্কিত।

নদ তীরবর্তী বেড়িবাঁধের বাইরে এবং বাঁধের কাছাকাছি বসবাসকারী মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার প্রস্ততি নিতে শুরু করেছে। শুক্রবার ভোর থেকে দমকা বাতাস আর গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি পড়ছে। উপকূলজুড়ে সিডরের পূর্বের পরিস্থিতি বিরাজ করছে। শুক্রবার সকাল থেকে সিপিপির স্বেচ্ছাসেবকরা মাইকিং করে সতর্কতামূলক প্রচারণায় নেমেছেন। এদিকে, জান-মাল রক্ষায় এদিন জুম্মাবাদ মসজিদে মসজিদে দোয়া মোনাজাত অনুষ্টিত হয়েছে।

বাগেরহাট জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শুক্রবার দুপুরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবেলায় জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা শেষে জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবেলায় জেলার ২৩৪টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র, ১০টি মেডিকেল টিম, ১০টি কন্টোল রুম প্রস্তুত রয়েছে। জেলার সব সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। শুকনা খাবার মজুদ রাখা হয়েছে। এছাড়াও রেড ক্রিসেন্ট, ফায়ার সার্ভিস ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার কয়েক শত স্বেচ্ছাসেবকদের প্রস্তুত রয়েছে। জনসচেতনতায় জেলাব্যাপী মাইকিং করা হচ্ছে।

শুক্রবার সকাল থেকেই উপকূলসহ বাগেরহাটে বৃষ্টি ও দমকা হাওয়া বইতে শুরু হযেছে। ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারনে বঙ্গোপসাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। আছড়ে পড়ছে বিশাল-বিশাল ঢেউ। বইছে ঝড়ো হাওয়া। ঘূর্নিঝড়ের আগাম প্রস্তুতি হিসেবে সুন্দরবনের দেশী-বিদেশী পর্যটকদের ভ্রমনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পাশাপাশি বনের ভ্রমনে থাকা পর্যটকটের ফিনিয়ে আনার কাজ শুরু হয়েছে। একই সাথে সুন্দরবনে দুবলারচরে শুঁটকি পল্লীতে অবস্থারত ১৫ হাজার জেলেকে ফিরিয়ে আনতে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসন কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনীর সাথে সমন্ময় করে কাজ করছে। ঘূর্ণিঝড়ের কারনে রাস পূর্ণিমাকে সামনে রেখে ১০ নভেম্বর থেকে সুন্দরবনের আলোরকোলে শুরু হতে যাওয়া ৩ দিনব্যাপী রাস উৎসব বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। সুন্দরবন বিভাগের সকল কর্মকর্তা ও বনরক্ষীদের নিরাপদ থেকে বণ্য প্রানী রক্ষায় কাজ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় মোংলা সমুদ্র বন্দরে খোলা হয়েছে ৩টি কন্ট্রোল রুম। বন্দরে এই মুহুর্তে মেশিনারী, ক্লিংকার, সার, জিপসাম, পাথর, সিরামিক ও কয়লাসহ দেশী-বিদেশি মোট ১৪টি বাণিজ্যিক জাহাজ নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

প্রকাশিত : ৮ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:২১ পি. এম.

০৮/১১/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: