১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ফুটবলের গ্রুপিং ড্র আজ

প্রকাশিত : ১১ অক্টোবর ২০১৯
  • পাঁচ বিদেশী ও স্থানীয় তিন দল নিয়ে টুর্নামেন্টের লাইনআপ চূড়ান্ত

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ চূড়ান্ত হয়েছে ১৯ অক্টোবর থেকে বন্দরনগরী চট্টগ্রামে শুরু হতে য়াওয়া শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাবকাপ ফুটবলের লাইনআপ। মোট আটটি দলের মধ্যে বিদেশী ক্লাবগুলো হচ্ছে ভারতের মোহনবাগান এসি ও চেন্নাই সিটি এফসি। মালয়েশিয়ার টেরেঙ্গানু এফসি, মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস ও লাওসের ইয়াং এলিফ্যান্টস এফসি। এছাড়া বাংলাদেশের বিপিএল চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস, রানার্সআপ ঢাকা আবাহনী ও আয়োজক চট্টগ্রাম আবাহনীকে নিয়ে পূর্ণতা আট দলের লাইনআপ। গতকাল বৃহস্পতিবার মহাখালীর রূপায়ণ সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে টুর্নামেন্টের চূড়ান্ত লাইনআপ উপস্থাপন করেন শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাবকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের প্রধান সমন্বয়ক ও চট্টগ্রাম আবাহনীর ভাইস প্রেসিডেন্ট তরফদার মোঃ রুহুল আমিন। আমরা টুর্নামেন্টে উঁচুমানের ক্লাবগুলোকে অন্তর্ভুক্ত করেছি। ফাটাফাটি লড়াই হবে এবারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাবকাপে। দর্শকরা উপভোগ করতে পারবেন উঁচুমানের ফুটবল, বলেন বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক তরফদার মোঃ রুহুল আমিন। চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামকে আন্তর্জাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠানের জন্য পরিপূর্ণভাবে তৈরি করা হচ্ছে। ফ্লাডলাইট, মাঠ ও গ্যালারিসহ সবখানেই চলছে ব্যাপক সংস্কার কাজ। আশাকরি টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই ঝকঝকে একটি ভেন্যু হয়ে উঠবে এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, বলেন তরফদার মোঃ রুহুল আমিন।

চট্টগ্রাম আবাহনীর দল সম্পর্কে তরফদার মোঃ রুহুল আমিন বলেন, ঘানা বিশ্বকাপ দলের সাবেক খেলোয়াড় প্রিন্স ট্যাগোকে অন্তর্ভুক্ত করে শক্তিশালী দল গঠন করেছে আয়োজকরা। লক্ষ্য এবার শিরোপা পুনরুদ্ধার।

ক্লাবকাপ ফুটবলের ড্র অনুষ্ঠান আজ শুক্রবার হোটেল লা মেরিডিয়ানে বিকেল ৪টায় শুরু হবে। ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি ড্র অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। উল্লেখ্য, এবারের দলগুলো অংশগ্রহণ ফি বাবদ পাবে ১০ হাজার ইউএস ডলার করে। চ্যাম্পিয়ন দল পাবে ৫০ হাজার ডলার। রানার্সআপ দলকে দেয়া হবে ৩০ হাজার ডলার। পাশাপাশি সেরা খেলোয়াড়, সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কারও থাকছে।

এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব টুর্নামেন্টের সর্বশেষ আসর বসেছিল ২০১৭ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩ মার্চ। প্রথম টুর্নামেন্ট হয়েছিল ২০১৫ সালের ২০ থেকে ৩০ অক্টোবর। পরবর্তীতে বিদেশী ক্লাব আনতে একটু ঝামেলা হওয়ায় টুর্নামেন্টের সিডিউল ঠিক করতে পারেনি আয়োজকরা। তবে এবার কোন সমস্যা হয়নি। আগামীতে ধারাবাহিকভাবে অনুষ্ঠিত হবে এই টুর্নামেন্ট, জানালেন তরফদার রুহুল অমিন। এই টুর্নামেন্ট চট্টগ্রাম আবাহনীর জন্যই স্মরণীয় এক আয়োজন। কারণ ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম আসরে তারাই চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। ফাইনালে স্বাগতিক চট্টগ্রাম আবাহনী ভারতের ইস্টবেঙ্গল ক্লাবকে পরাজিত করেছিল। তবে দ্বিতীয় আসরে তারা ফাইনালে উঠতে পারেনি। সেমিফাইনালে দক্ষিণ কোরিয়ার এফসি পচেয়নের কাছে ২-১ গোলে হেরে যায়। । দ্বিতীয় আসরের চ্যাম্পিয়ন হয় মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস। ১২০ মিনিটের রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে তারা ৪-২ গোলে হারায় দক্ষিণ কোরিয়ার এএফসি পচেয়নকে। তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ কামালের স্মৃতি নিয়ে অনুষ্ঠিতব্য ‘শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাবকাপ’ ফুটবলের সাংগঠনিক কমিটির প্রধান পৃষ্ঠপোষক হওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি প্রাপ্তিতে আমরা অনুপ্রাণিত হয়েছি। টুর্নামেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান হয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এমপি। তাদের দিক নির্দেশনায় আমরা সুন্দর ও সফল একটি টুর্নামেন্ট অয়োজনে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। তরফদার মোঃ রুহুল আমিন আরও জানান, এখন সবকিছুই চূড়ান্ত বলা যায়। পাঁচ বিদেশী ও স্থানীয় তিন মোট আটটি দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্ট। তিনি আশাবাদী বিগত সময়ের তুলনায় এবারের আসর আরও অনেক জৌলুস ছড়াবে। আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে।

প্রকাশিত : ১১ অক্টোবর ২০১৯

১১/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



শীর্ষ সংবাদ: