২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

প্রাচীন গ্রিক ভাস্কর্যে সন্ধান


প্রাচীন গ্রিক ভাস্কর্যে সন্ধান

অনলাইন ডেস্ক ॥ ল্যাপটপ বর্তমানে আধুনিক জীবনের একটি অংশ। তবে ৫০-৬০ বছর আগেও ল্যাপটপের কথা কেউ ভাবতে পারত না। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়েছে প্রাচীন গ্রিসের একটি ভাস্কর্য। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।

প্রাচীন গ্রিসের এ ল্যাপটপটির বিষয়ে সম্প্রতি অনলাইনে আলোচনা শুরু হয় ২০১৪ সালে। সে সময় ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইউটিউব ও ইন্টারনেটে একটি ভিডিও পোস্ট করে একজন ব্যবহারকারী। এ ভিডিওতে তিনি ক্যালিফোর্নিয়ার গেটি মিউজিয়ামে রক্ষিত প্রাচীন গ্রিসের একটি ভাস্কর্য তুলে ধরে সেখানে একটি ল্যাপটপ রয়েছে বলে দেখান। এ ভিডিওটি নিয়ে ডেইলি মেইল সম্প্রতি একটি স্টোরি করে। আর এতেই বিষয়টি নিয়ে নতুন করে আলোচনা শুরু হয়।

খ্রিস্টপূর্ব ১০০ অব্দে শ্বেতপাথরের এ মূর্তিটি তৈরি হয়। এতে একজন নারীকে চেয়ারে বসে ছোট একটা মেয়ের হাতে থাকা ল্যাপটপ সদৃশ্য বস্তুতে কিছু একটা দেখতে থাকা অবস্থায় পাওয়া যায়। গেটি ওয়েবসাইটে অবশ্য এ ভাস্কর্যটির বিষয়ে তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

‘স্টিলস্পিকিংআউট’ নামে ব্যবহারকারী এ ভিডিওটি তুলে ধরেছে। এতে তারা ভাস্কর্যটির বিষয়ে নিজস্ব মতামত তুলে ধরেছে, যেখানে একটি ল্যাপটপ রয়েছে বলে তারা নানা যুক্তি প্রদর্শন করে। এছাড়া ল্যাপটপটির এক পাশে দুটি ফুটোও রয়েছে, যা পাওয়ার পোর্ট বলে তারা দাবি করছে।

তবে ভাস্কর্যটির বিষয়ে ইন্টারট ব্যবহারকারীদের দাবির সঙ্গে একমত নয় জাদুঘর কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবি এটি লেখালেখির জন্য ব্যবহৃত একটি ছোট মোমের টেবিল। প্রাচীন গ্রিসে এ ধরনের বস্তুর প্রচলন ছিল বলে জানিয়েছে তারা।

অবশ্য ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের অনেকে দাবি করেছে, এটি ল্যাপটপ কিংবা লেখার সামগ্রী নয়- এটি হচ্ছে একটি পিজার বাক্স। এ বিষয়ে একজন ব্যবহারকারীর মন্তব্য, ‘আপনারা বোকা- ভুল করছেন। এটি একটি পিজা। ছোট পিজার বাক্স। পিজার ডেলিভারি দেওয়া হয়েছে আলসে নারীকে। আর তিনি দেখে নিচ্ছেন এতে ঠিকঠাক পিপারনি দেওয়া হয়েছে কি না।’

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: