১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

স্ত্রী খুন, সাংবাদিক স্বামী আটক ॥ অন্যত্র দুই খুন


জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ গোপালগঞ্জে সাংবাদিকের স্ত্রী খুন হয়েছেন। পুলিশ স্বামীসহ চারজনকে আটক করেছে। ভালুকায় স্ত্রীর হাতে খুন হয়েছে স্বামী এবং সিলেটে স্বামীর হাতে স্ত্রী। নিজস্ব সংবাদদাতা ও স্টাফ রিপোর্টারদের পাঠানো খবর :

গোপালগঞ্জ ॥ জাকিয়া মল্লিক নামে (৩০) গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে শহরের বেদগ্রাম এলাকায় নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত জাকিয়া মাছরাঙা টেলিভিশনের গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি মোর্শেদায়ান নিশানের স্ত্রী এবং বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী জালাল উদ্দিন মল্লিকের মেয়ে। এ ঘটনায় পুলিশ মোর্শেদায়ান নিশানসহ তার ছোট ভাই সুশান, ভগ্নিপতি হাসান শেখ ও অফিসের কর্মচারী আনিসকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।

মোর্শেদায়ান নিশান মাছরাঙা টিভির প্রতিনিধিত্ব করার পাশাপাশি ‘আমাদের গোপালগঞ্জ’ নামে স্থানীয় একটি দৈনিক পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক। নিশানের পিতা আব্দুস সাত্তার কানছু গোপালগঞ্জের একজন সিনিয়র সাংবাদিক ও বর্তমানে বাংলাদেশ বেতারের গোপালগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি।

সাংবাদিক মোর্শেদায়ান নিশান জানিয়েছেন, ওই রাতে মুখোশধারী একদল ডাকাত তার বাড়িতে ডাকাতি করতে আসে। এ সময় তার স্ত্রী জাকিয়া তাদের বাধা দিলে ডাকাতরা তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়।

গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি (তদন্ত) সওগাতুল ইসলাম আলম জানিয়েছেন, শহরের বেদগ্রামে সাংবাদিক নিশানের বাড়িতে ডাকাত পড়েছে এমন সংবাদ পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়। সেখানে তারা বাড়ির মেঝেতে নিশানের স্ত্রীকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। পরে তাকে উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। নিহত জাকিয়ার মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত ছিল। তবে ওই বাড়িতে ডাকাতির কোন আলামত পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় নিহতের পিতা হাজী জালাল উদ্দিন মল্লিক বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

হাজী জালাল উদ্দিন মল্লিকের দাবি যৌতুকের কারণে জাকিয়াকে তার স্বামী হত্যা করেছে। বেশ কিছুদিন ধরে যৌতুকের জন্য নিশান তার মেয়ের ওপর নির্যাতন ও চাপ সৃষ্টি করে আসছিল।

ভালুকা ময়মনসিংহ ॥ বগাজান গ্রামে শুক্রবার ভোরে স্ত্রী তার স্বামীকে দা দিয়ে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। এ ঘটনায় পুলিশ ঘাতক স্ত্রী মোর্শেদাকে আটক করে।

জানা যায়, বগাজান গ্রামের আব্দুল হালিমের ছেলে বিল্লাল হোসেন (২৮) তার খালাত বোন একই উপজেলার কাইচাঁন গ্রামের শরাফত আলীর মেয়ে মোর্শেদাকে (২৫) ১২ বছর আগে বিয়ে করে। বিয়ের পর তাদের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ের জন্ম হয়। সম্প্রতি বিল্লাল পার্শ্ববর্তী বনকুয়া গ্রামের এক মেয়ের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মাঝে প্রায়ই ঝগড়াঝাটি হতো। এসব বিষয়ে স্থানীয়ভাবে বেশ কয়েকবার সালিশ হয়। ঘটনার রাতে বিল্লাল, স্ত্রী মোর্শেদা ও ২ সন্তানকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিল। শেষ রাতে স্ত্রী মোর্শেদা ঘুমন্ত স্বামীকে দা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে বাড়ির লোকজন আশঙ্কাজনক অবস্থায় বিল্লালকে উদ্ধার করে প্রথমে ভালুকা ও পরে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে, কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সিলেট অফিস ॥ বিশ্বনাথে স্বামীর ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হালিমা বেগম হেলেনা (২২)। লামাকাজী ইউনিয়নের দিঘলী গ্রামে শুক্রবার সকাল ৮টায় এ ঘটনা ঘটে। স্ত্রীকে হত্যা করে স্বামী নজরুল ইসলাম জুলফিকার স্ত্রীর লাশের পাশে রক্তমাখা ছোরা নিয়ে বসে থাকে। এলাকাবাসী ছোরা হাতে লাশ নিয়ে নিজ ঘরে বসে থাকা অবস্থায় ঘাতক স্বামী সিএনজি অটোরিক্সাচালক নজরুল ইসলাম জুলফিকারকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। শুক্রবার সকালে পরিবারের সবাইকে সকালের নাস্তা দিয়ে বিছানার চাদর ধোয়ার জন্য পুকুরে যায় হালিমা। এ সময় তার স্বামী জুলফিকার তাঁকে নিজেদের ঘরে আসার কথা বলে।