মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধ কোন পন্থা নয়

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫

পরমাণু শক্তিধর প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানের সঙ্গে বিরোধ মীমাংসার উপায় হিসেবে যুদ্ধে লিপ্ত হওয়ার সম্ভাবনা বাতিল করে উড়িয়ে দিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। আলোচনার মাধ্যমে সন্ত্রাস সম্পর্কিত বিষয়গুলো সুরাহা করতে তার সরকারের সিদ্ধান্ত তিনি ঘোষণা করেছেন। খবর এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের।

বুধবার ভারতীয় পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষ লোকসভার সংসদ সদস্যদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সন্ত্রাসবাদের অবসান নিয়ে আমরা কথা বলতে পারি বলে জানিয়েছিলাম। সেই অনুযায়ী দুই দেশের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের মধ্যে ব্যাঙ্ককে আলোচনা হয়েছিল। সেখানে সন্ত্রাসবাদ নিয়ে আমরা আলোচনা করেছিলাম। কিন্তু একটি বৈঠক সব সমস্যার সমাধান আনতে পারবে না। সুতরাং আমরা আলোচনা অব্যাহত রাখব। পাকিস্তানের সঙ্গে সংলাপ ‘নিরবচ্ছিন্নভাবে’ চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে নরেন্দ্র মোদি পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় এ কথা বলার কিছু দিন পরেই সুষমা এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, আমরা আলোচনার মাধ্যমে সন্ত্রাসবাদের বিষয় সমাধান করব।

ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির সদস্য গণেশ সিংয়ের এক প্রশ্নের জবাবে সুষমা বলেন, ‘যুদ্ধ বিকল্প পথ নয়’, বরং আজাদ কাশ্মীরে সন্ত্রাসী শিবির গুটিয়ে নেয়ার বিষয়ে ভারত পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনা করবে। তিনি সতর্ক করে বলেন, ওই সময় নাশকতাকারীরা উস্কানি দিয়ে আলোচনার ওপর প্রভাব ফেলতে পারে। আমি পরিষ্কার করে বলতে চাই যে, আলোচনা ও সন্ত্রাস একসঙ্গে যেতে পারে না। আমাদের প্রধানমন্ত্রী এটা পরিষ্কার করে বলে দিয়েছে। একটি গঠনমূলক পথে বাধা অপসারণের লক্ষ্য নিয়ে সমন্বিত দ্বিপাক্ষিক আলোচনা শুরু করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে। স্বরাজ বলেন, আলোচনা এগিয়ে নেয়ার জন্য কিছু বিশ্বাস তাদের রাখা প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সন্ত্রাস বিষয়ে আলোচনা করা যাক। আস্থার সঙ্গে আমরা আলোচনা করব। সেখানে কোন তৃতীয় দল থাকবে না। আলোচনার মাধ্যমে উভয় দেশই সন্ত্রাসবাদের বিষয় সমাধানের চেষ্টা করবে।

সন্ত্রাস দমনে ঐক্য চাই

এদিকে, পেশোয়ারে আর্মি পাবলিক স্কুলে হামলার ঘটনা স্মরণ করে এক অনুষ্ঠানে পাকিস্তানের হাই কমিশনার আবদুল বাসিত বলেন, সন্ত্রাসবাদ একটি বৈশ্বিক, জাতীয় ও স্থানীয় বিষয়। এটাকে কোন অপরিপক্ব কৌশলে পরাজিত করা যাবে না। সন্ত্রাস নির্মূল করতে আমাদের ব্যক্তিগত ও সমষ্টিগত গোঁড়ামি অতিক্রম করতে হবে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় অবশ্যই আমাদের ব্যথা বুঝতে পারবে। পাকিস্তানে যখন হাজার হাজার মানুষ নিহত হয় তখন এটা আমাদের দুঃখ দেয়। পাকিস্তানের মতো এমন সহিংস চরমপন্থার শিক্ষা অন্য কোন দেশে কখনও হয়নি।

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫

১৮/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: