১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মালয়েশিয়ায় কর্মী নিয়োগ হবে জিটুজি প্লাসে- কর্মসংস্থান মন্ত্রী


স্টাফ রিপোর্টার ॥ মালয়েশিয়ায় কর্মী নিয়োগে জটিলতার কারণে ‘জিটুজি প্লাস’ চুক্তি করতে কিছুটা সময় চলে গেছে। তবে খুব শিগগিরই এই চুক্তি সই হবে। চুক্তি হলে দেশটিতে বিপুল সংখ্যক কর্মী পাঠানো যাবে। কর্মী পাঠাতে বিশেষ কোনো সিন্ডিকেট স্থান পাবে না। যেসব রিক্রুটিং এজেন্সির অতীত রেকর্ড ভালো, তারাই মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে পারবেন। বৃহস্পতিবার রাজধানীর ইস্কটানে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ১৮ ডিসেম্বর ‘আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি একথা বলেন। এবার অভিবাসন দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে ‘বিশ্বময় অভিবাসন, সমৃদ্ধ দেশ, উৎসবের জীবন’। অভিবাসী কর্মীদের নিরাপত্তা আর উৎসবের জীবন দিতে মন্ত্রণালয় নানা কর্মসূচী বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী বলেন, মালয়েশিয়ার সঙ্গে জিটুজি প্লাস চুক্তির বিষয়ে আমরা সর্বশেষ অবস্থায় এসে পৌঁছেছি। এখন শুধু এমওইউ সই বাকি। সেটা হলেই দেশটিতে কর্মী পাঠানো শুরু হবে। তবে মালয়েশিয়ায় জিটুজি পদ্ধতিতে কর্মী যাওয়া অব্যাহত রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশটিতে এখনও কর্মী যাচ্ছে। বেশি সংখ্যক কর্মী যাচ্ছে না। আমরা চাই না অতিরিক্ত লোক যাক। পরে তারা খেতে পাবে না, বাসস্থান পাবে না। চুক্তির মাধ্যমে কর্মীর কর্ম ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করেই বড় পরিসরে কর্মী পাঠানো হবে। মালেয়শিয়ায় সিন্ডিকেটের বিষয়টি আমার জানা নেই। মালয়েশিয়ার কোম্পানির কাছ থেকেও এমন কোনো বিষয় জানতে পারিনি। আমরা যে সমঝোতা সই করতে যাচ্ছি সেখানে ‘বায়রা’ না বলে বিআরএ বলেছি। যার অর্থ, বাংলাদেশ রিক্রুটিং এজেন্সি । আমরা কারও পক্ষ নেই। বাংলাদেশ রিক্রুটিং এজেন্সির যত ভালো ভালো কোম্পানি আছে, অতীত রেকর্ড যাদের ভালো, মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোয় যারা অভিজ্ঞ- এসব এজেন্সির নাম মালয়েশিয়ায় পাঠানো হবে। মালয়েশিয়া থেকেই রিক্রুটিং এজেন্সি বাছাই করবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: