ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

ঈদের দিন জয় উপহার দিতে চান টাইগাররা

​​​​​​​মো. মামুন রশীদ

প্রকাশিত: ২২:৫৭, ১৫ জুন ২০২৪

ঈদের দিন জয় উপহার দিতে চান টাইগাররা

নেপালের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে অনুশীলনে নিজেদের ঝালিয়ে নিচ্ছেন শান্ত-হৃদয়রা

দুই দলের ভিন্ন লক্ষ্য। বাংলাদেশ দল এখন টি২০ বিশ্বকাপের সুপার এইটে ওঠার দ্বারপ্রান্তে, বলা যায় এক পা দিয়েই ফেলেছে। কারণ নেট রানরেটের যে অবস্থা তাতে বাংলাদেশকে টপকে যেতে হলে একমাত্র হুমকি নেদারল্যান্ডসকে ভালো ব্যবধানে জিততে হবে। তারও আগে নেপালের কাছে হারতে হবে বাংলাদেশকে। তাই সুবিধাজনক অবস্থানেই আছে টাইগাররা।ডিগ্রুপে শেষ ম্যাচ বাংলাদেশে পবিত্র ঈদুল আজহার দিনে। ওইদিন বাংলাদেশ সময় অনুসারে ভোর ৫টা ৩০ মিনিটে বাংলাদেশ-নেপাল যখন সেন্ট ভিনসেন্টে মুখোমুখি হবে তার ঘণ্টাখানেক পরই সেন্ট লুসিয়াতে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে নেদারল্যান্ডস তাদের ভাগ্য পরীক্ষায়। ডাচরা অনেক যদি-কিন্তুর দিকে তাকিয়ে থাকলেও বাংলাদেশকে এতকিছু ভাবতে হচ্ছে না। নেপালের বিপক্ষে জয় দিয়েই শেষ করতে আত্মবিশ্বসী উজ্জীবিত বাংলাদেশ দল। তবে নিজেদের সর্বশেষ ম্যাচে নেপাল ইতিহাসের খুব কাছাকাছি পৌঁছে যায়। সেন্ট ভিনসেন্টেই শক্তিধর দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে মাত্র রানে হেরে সুপার এইটে ওঠার রেস থেকে ছিটকে পড়ে তারা। বাংলাদেশকে হারিয়ে সেই দুঃখ ভোলার প্রত্যয় জানিয়েছে দলটি।

নেপালের বিপক্ষে বাংলাদেশ একবারই খেলেছে। সেটি ২০১৪ সালে নিজেদের মাঠে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে। সেই ম্যাচে নেপালকে উইকেটে বিধ্বস্ত করে বাংলাদেশ। চলতি আসরে আবার দুই দলে দেখা হতে চলেছে। নেদারল্যান্ডসের কাছে উইকেটে হেরে যাত্রা শুরু করে নেপাল। এরপর পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হলে পয়েন্ট অর্জন করে নেপাল এবং সুপার এইটে ওঠার রেসে থাকে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জিতলেই তারা বেশ ভালোভাবে রেসে থাকত।

কিন্তু প্রোটিয়াদের বিপক্ষে দারুণ বোলিং পারফর্ম্যান্স দেখিয়েছে নেপালিরা। ২০ ওভারে উইকেটে ১১৫। সেন্ট ভিনসেন্টের আরনস ভেল গ্রাউন্ডে যেন ভর করে নিউইয়র্কের কঠিন উইকেটের দুঃস্বপ্ন। সেই দুঃস্বপ্ন রানের হৃদয় ভাঙা পরাজয় ডেকে আনে নেপালের এবং সুপার এইটের সব আশা শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এই ম্যাচে দেশের মহা তারকা লেগস্পিনার সন্দ্বীপ লামিচানে খেলতে পেরেছেন এবং দারুণ বোলিং করে ওভারে মাত্র ১৮ রান দিয়েছেন। নিঃসন্দেহে তিনি বাংলাদেশ দলের জন্য বড় হুমকি হয়ে উঠবেন। শক্তি বেড়ে যাওয়া এবং শক্তিশালী প্রোটিয়াদের কাছে মাত্র রানের হার বরং আত্মবিশ^াস বাড়িয়েছে নেপালের। তাই শেষ ম্যাচে বাংলাদেশকে হারিয়ে দিতে উন্মুখ তারা। বিষয়ে নেপালের অধিনায়ক রোহিত পৌডেল বলেছেন, ‘আমরা আজ যেভাবে খেলেছি এটা প্রমাণ হয়েছে যে আমরা এখানে কেন এসেছি। এটা আমাদের বাংলাদেশের বিপক্ষে পরের ম্যাচে আত্মবিশ্বাস জোগাবে। আজ জিতলে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচটা নকআউট হতো। এটা যেহেতু হয়নি, পরের ম্যাচ গর্বের জন্য খেলব। আমরা টেস্ট খেলুড়ে দেশকে হারাতে চাই। আজ হয়নি, আগামী ম্যাচে সেটা করতে চাই।

বাংলাদেশ দলকে প্রচ্ছন্ন হুমকিই দিয়ে রেখেছে নেপাল। কিন্তু বাংলাদেশ আত্মবিশ^াসী ঈদের দিন জয় পেতে। বিশ^কাপের আগে বিপর্যস্ত পরিস্থিতি মূল মঞ্চে কাটিয়ে উঠেছে তারা। সেন্ট ভিনসেন্ট খুবই পয়মন্ত ভেন্যু বাংলাদেশের জন্য। ইতোমধ্যেই সুপার এইটে এক পা দিয়ে রাখা শান্তরা নেপালের বিপক্ষে জিতে ভালোভাবে গ্রুপ পর্ব শেষ করতে মুখিয়ে আছে।

আরনস ভেল গ্রাউন্ডের উইকেট, পরিবেশ সবই যেমন পরিবেশে খেলে অভ্যস্ত বাংলাদেশ তার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। তাই নেপালের বিপক্ষে জয় দিয়েই শেষ করতে চায় বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে উইকেটে জয়, দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে রানে হারের পর নেদারল্যান্ডসকে ২৫ রানে হারিয়ে এখন উজ্জীবিত টাইগাররা জয়ের বিকল্প কিছুই চিন্তা করছে না। পয়েন্ট নিয়ে নেট রানরেটে অন্যদের চেয়ে এগিয়ে থেকে বাংলাদেশ দল চাপমুক্ত হয়েই নামবে ম্যাচটিতে। তবে নেপালের সর্বশেষ ম্যাচ দেখার পর টাইগাররা বেশ সতর্ক হয়েই নামবে। এই ম্যাচে ব্যাটারদের উন্নতির দিকেই মূলত মনোযোগ থাকবে তাদের। সুপার এইট পর্বে শক্তিধর দলগুলোর মুখোমুখি হওয়ার আগে তাই নেপালের বিপক্ষে ম্যাচটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

×