ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১

ইংলিশ এফএ কাপ

একাই ৫ গোল করলেন হালান্ড, শেষ আটে ম্যানসিটি

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৩৫, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

একাই ৫ গোল করলেন হালান্ড, শেষ আটে ম্যানসিটি

ম্যানচেস্টার সিটির জয়ের নায়ক আর্লিং হালান্ডকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন কেভিন ডি ব্রুইন ও বার্নাডো সিলভা

গত মৌসুমটা দুর্দান্ত গেলেও চলতি মৌসুমে নিজের ছায়া হয়ে ছিলেন তারকা ফরোয়ার্ড আর্লিং হালান্ড। ইনজুরি থেকে ফেরার পর নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারছিলেন না। অবশেষে এক ম্যাচেই হ্যাটট্রিকসহ ৫ গোল করে স্বরূপে ফিরেছেন নরওয়ের তারকা। মঙ্গলবার রাতে ইংলিশ এফএ কাপ ফুটবলের পঞ্চম রাউন্ডের ম্যাচে স্বাগতিক লুটন টাউনকে ৬-২ গোলে বিধ্বস্ত করে আসরের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে ম্যানচেস্টার সিটি। ম্যাচের ৩, ১৮, ৪০, ৫৫ ও ৫৮ মিনিটে পাঁচ গোল করে একাই প্রতিপক্ষকে ধসিয়ে দিয়েছেন ২৩ বছর বয়সী হালান্ড। 
আরেক ম্যাচে আব্দুল ফাতাউর দুর্দান্ত গোলে চ্যাম্পিয়নশিপের শীর্ষে থাকা লিচেস্টার সিটি ১-০ গোলে প্রিমিয়ার লিগের দল এফসি বোর্নমাউথকে হারিয়েছে। ১০৫ মিনিটে কেলেচি ইহেনাচোর পাসে কোনাকুনি শটে ফাতাউ দলের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন। আরেক ম্যাচে দ্বিতীয় টায়ারের দল ব্ল্যাকবার্ন রোভার্সকে পেনাল্টিতে ৪-৩ গোলে হারিয়ে শেষ আটে উঠেছে নিউক্যাসল ইউনাইটেড। এডউড পার্কে দুদলের নির্ধারিত সময়ের খেলা ১-১ গোলে ড্র ছিল।

কেনিলওয়ার্থ রোডে তারকা মিডফিল্ডার কেভিন ডি ব্রুইনার তিন অ্যাসিস্টে ৪০ মিনিটের মধ্যে হালান্ড হ্যাটট্রিক পূরণ করেন। জর্ডান ক্লার্ক অল্প সময়ের ব্যবধানে জোড়া গোল করে লুটনের ব্যবধান ৩-২ এ নামিয়ে আনেন। তখন মনে হয়েছিল ম্যাচটি জমজমাট হতে চলেছে। কিন্তু এর পর হালান্ড ঝড়ে ল-ভ- হয়ে যায় লুটন। বিরতির পর নরওয়েজিয়ান তারকা আরও দুই গোল করলে বড় জয়ে শেষ আটে পৌঁছে যায় সিটি। সিটির হয়ে বাকি গোলটি ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার মাটেও কোভাচিচ। নভেম্বরে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে বোর্নমাউথকে ৬-১ গোলে বিধ্বস্ত করার পর চলমান মৌসুমে সিটির এটি দ্বিতীয়বার ছয় গোল করে জয়ের ম্যাচ।  
এবারের মৌসুমে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় এ নিয়ে হালান্ড ২৭ গোল করেছেন। চেলসির বিরুদ্ধে কিছুদিন আগে ড্র হওয়া ম্যাচে বাজে পারফর্ম্যান্সের কারণে সমালোচিত হালান্ড যেন জ্বলে ওঠার অপেক্ষায় ছিলেন। গত বছর মার্চে আরবি লাইপজিদের বিরুদ্ধে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে নায়োকোচিত পারফর্ম্যান্সের পর সিটির জার্সি গায়ে এক ম্যাচে দ্বিতীয়বার পাঁচ গোলের রেকর্ড গড়েছেন হালান্ড।

সব ধরনের প্রতিযোগিতায় এ নিয়ে শেষ ১৫ ম্যাচের ১৪টিতে জয় পেয়েছে সিটিজেনরা। গত বছরের প্রিমিয়ার লিগ, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও এফএ কাপ শিরোপার মাধ্যমে ট্রেবল জয়ের পুনরাবৃত্তির পথে এবারও ভালোমতো আছে পেপ গার্ডিওলার দল। 
ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে দারুণ ফিনিশিংয়ে হালান্ড সিটিজেনদের এগিয়ে দেন। ম্যাথিয়াস নুনেজ দারুণ এক পাস দেন ডি ব্রুইনার দিকে। লুটনের এরিয়ার মধ্যে হালান্ডকে খুঁজে নেন তিনি। গোলরক্ষক টিম ক্রুলকে পরাস্ত করতে কোনো ভুল করেননি হালান্ড। ১৮ মিনিটে আবারও ডি ব্রুইইনার অ্যাসিস্টে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন হালান্ড। ৪০ মিনিটে আবারও ডি ব্রুইইনার পাসে ১২ গজ দূর থেকে ক্রুলকে পরাস্ত করে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন নরওয়েন তারকা। সিটি ক্যারিয়ারে এটি হালান্ডের অষ্টম হ্যাটট্রিক।

২০২২ সালে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড থেকে সিটিতে আসার পর এটি তার প্রথম অ্যাওয়ে অর্থাৎ প্রতিপক্ষের মাঠে হ্যাটট্রিক। ৪৫ মিনিটে অসাধারণ দূরপাল্লার শটে লুটনের হয়ে এক গোল পরিশোধ করেন ক্লার্ক। ৫২ মিনিটে তিনি নিজের ও দলের দ্বিতীয় গোল করেন। 
কিন্তু অপ্রতিরোধ্য হালান্ডের কাছে শেষ পর্যন্ত নতিস্বীকার করতে হয়েছে লুটনকে।

৫৫ মিনিটে কাইল ওয়াকারের দুর্দান্ত পাসে ডি ব্রুইনা বল পেয়ে তা বাড়িয়ে দেন হালান্ডের দিকে। নরওয়েজিয়ান ফরোয়ার্ড চতুর্থ গোল করতে কোন ভুল করেননি। তিন মিনিট পর বার্নান্ডো সিলভার পাসে হালান্ড দলে ও নিজের পঞ্চম গোলটি করেন। ৭২ মিনিটে ২০ গজ দূর থেকে কোভাচিচ সিটির হয়ে ছয় নম্বর গোল করেন। নিজে পাঁচ গোল করলেও ম্যাচ শেষে ব্রুইনাকে প্রশংসায় ভাসান হালান্ড। তিনি বলেন, ডি ব্রুইনা ছিলেন দুর্দান্ত। তার সঙ্গে খেলাটা সবসময়ই আনন্দের। একে অপরের কাছ থেকে কি চাই সেটা আমরা জানি। 
পায়ের ইনজুরির কারণে দুই মাস মাঠের বাইরে থাকার পর এই প্রথম নিজেকে প্রমাণ করেছেন হালান্ড। নরওয়েজিয়ান তরুণ এ প্রসঙ্গে বলেন, আমি নিজের সেরাটায় ফিরতে চেয়েছি। শেষ পর্যন্ত কিছুটা ভালো অনুভব করছি। এটা সত্যিই দারুণ এক অনুভূতি। আমাদের সময় এসেছে; আমরা সবাই ঘুরে দাঁড়িয়েছি। সবদিক থেকে আক্রমণ করতে আমরা পুরোপুরি প্রস্তুত। অন্যদিকে সিটি কোচ পেপ গার্ডিওলা বলেন, আমার আর কি বলার আছে। হালান্ড ও ব্রুইনা ম্যাচের পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। তাদের মধ্যে বোঝাপোড়া অসাধারণ ছিল।

×