ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

লিভারপুলের শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার

​​​​​​​স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ২২:৪৮, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

লিভারপুলের শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ম্যানচেস্টার সিটির জোড়া গোলদাতা আলিং হালান্ডের উচ্ছ্বাস

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে বার্নলির বিপক্ষে জয়ের স্বাদ পেয়েছে লিভারপুল। শনিবার নিজেদের মাঠ এনফিল্ডে জার্গেন ক্লপের দল - গোলে হারায় বার্নলিকে। আর তাতেই লিগ টেবিলের শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করে অলরেডরা। মৌসুমের প্রথম ২৪ ম্যাচ থেকে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে অবস্থান করছে লিভারপুল। এক ম্যাচ কম খেলে ৫২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুই নম্বরে অবস্থান করছে ম্যানচেস্টার সিটি। টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরাও শনিবার - গোলে খুব সহজেই পরাজিত করেছে এভারটনকে। এছাড়া লিগের অন্যান্য ম্যাচে পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছেড়েছে টটেনহ্যাম হটস্পার। ঘরের মাঠে স্পার্সরা এদিন - গোলে হারায় ব্রাইটনকে।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এর আগের ম্যাচেই পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছিল লিভারপুল। আর্সেনালের বিপক্ষে সেই ম্যাচে হারের পর কার্যত জমে উঠেছিল শিরোপার লড়াই। যার সুযোগ নিয়ে এভারটনকে - গোলে হারিয়ে শনিবার প্রিমিয়ার লিগের পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছিল ম্যানচেস্টার সিটি। তবে তাদের সেই অবস্থান অত্যন্ত ক্ষণস্থায়ী ছিল। মাত্র দুই ঘণ্টার মধ্যেই শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করে নেয় লিভারপুল। অবনমনের আওতায় থাকা বার্নলিকে হারিয়ে দিয়ে ফের একবার শীর্ষে উঠে এলো লিভারপুল। এই মৌসুটা লিভারপুল কোচ হিসেবে জার্গেন ক্লপের শেষ বছর। সেই বছরেই নজির স্পর্শ করে ২০তম বার প্রিমিয়ার লিগের খেতাব জিততে মরিয়া তারা। সেই লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই অনেকটা এগিয়ে রয়েছে অলরেডরা।

শনিবার এনফিল্ডে বার্নলির বিপক্ষে প্রথমে গোল করে এগিয়ে যাওয়ার পরও চাপে ছিল লিভারপুল। শেষ পর্যন্ত - গোলে সহজ জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে লিভারপুল। এনফিল্ডে উপস্থিত রেকর্ড ৫৯, ৮৯৬ দর্শকের সামনে গুরুত্বপূর্ণ তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করল ক্লপের শিষ্যরা। এই ম্যাচের আগে এভারটনকে হারিয়ে দিয়ে ৭৭ দিন পর শীর্ষে উঠে এসেছিল ম্যানচেস্টার সিটি। তবে তারা ঘণ্টাও শীর্ষে থাকতে পারেনি। বার্নলিকে হারিয়ে শীর্ষে উঠে আসে লিভারপুল। বার্নলির সঙ্গে শেষ ১০টি ম্যাচে ৮টি জয় পেয়েছিল লিভারপুল। এদিনও জয় পেতে খুব একটা কষ্ট হয়নি তাদের।

এদিন ম্যাচ শুরুর ৩১ মিনিটে গোল করে প্রথম এগিয়ে যায় লিভারপুল। আলেক্সজান্ডার আর্নল্ডের কর্নার থেকে বার্নলির গোলকিপারের ভুলে বল পান দিয়েগো জোতা। গজ দূর থেকে নেওয়া হেডের সৌজন্যে গোল করেন যান তিনি। ঘটনাচক্রে প্রথমে গোল খাওয়ার পরে চলতি মৌসুমে কোনো অ্যাওয়ে ম্যাচে জয় পায়নি বার্নলি। জয় তো দূরের কথা ম্যাচে ড্রও করতে পারেনি বার্নলি। বরং ম্যাচের সব ম্যাচই হারতে হয়েছে তাদের। কিন্তু এদিন বিরতির আগে অর্থাৎ ম্যাচের বয়স যখন ৪৫ মিনিট তখনই গোল করে বার্নলিকে সমতায় ফেরান ডারা ওশিয়া। ব্রাউনহিলের কর্নারে ১২ গজ দূর থেকে হেডে গোল করে স্বাগতিক সমর্থকদের হতাশায় ডুবায় বার্নলি। তবে বিরতির পরই দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় লিভারপুল। আর্নল্ডের জায়গায় মাঠে নামেন এলিয়ট। লিভারপুলের পরের দুটি গোলেই ছিল তার অ্যাসিস্ট। বিরতির পর ম্যাচের ৫২ মিনিটে ফের গোল করে লিভারপুল ম্যাচে এগিয়ে যায়। ম্যাচের ৭৯ মিনিটে এলিয়টের বাড়ানো বলে হেডে গোল করেন নুনিনেজ। ফলে - গোলে ম্যাচ জিতে লিভারপুল। সেইসঙ্গে নিজেদের ঘরের মাঠ এনফিল্ডে ২৭ ম্যাচে অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়ল তারা। এই সময়ে প্রতিপক্ষের জালে ৮০ বার বল জড়িয়েছে জার্গেন ক্লপের শিষ্যরা।

অন্য ম্যাচে নিজেদের মাঠ ইত্তিহাদ স্টেডিয়ামে ম্যানচেস্টার সিটি আতিথ্য দিয়েছিল এভারটনকে। এই ম্যাচে - গোলের জয়ে দুটি গোলই করেন সিটিজেনদের নরওয়েজিয়ান ফরোয়ার্ড আর্লিং হালান্ড। যদিওবা প্রথমার্ধটা পেপ গার্দিওলার দলকে গোলবঞ্চিত রেখেছিল এভারটন। শেষ পর্যন্ত সিটিজেনদের ত্রাতার ভূমিকায় আবির্ভূত হন আর্লিং হালান্ড। নাথান আকের অ্যাসিস্টে খেলার ৭১ মিনিটে গোলের খেরো কাটানোর পর ৮৫ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণও করেন তিনি। চোট কাটিয়ে ফেরার পর প্রথম গোল করলেন হালান্ড।

 

×