ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

তামিমের অভাব ঘোচাতে পারবেন জুনিয়র তামিম?

মো. মামুন রশীদ

প্রকাশিত: ০০:৪১, ১ অক্টোবর ২০২৩

তামিমের অভাব ঘোচাতে পারবেন জুনিয়র তামিম?

অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের সঙ্গে তানজিদ হাসান তামিম

বিশ্বকাপের উত্তাপ শুরু হয়ে গেছে শুক্রবার থেকে। কারণ এদিন থেকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) অধীনে চলে গেছে বিশ্বকাপের অংশগ্রহণকারী দলগুলো এবং অফিসিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচও শুরু হয়েছে। প্রথম দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তানের রানের পাহাড় টপকে নিউজিল্যান্ডের এবং শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের অনায়াস জয় বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে। 
বিশেষ করে নানা বিতর্কে টালমাটাল হয়ে পড়া বাংলাদেশের ক্রিকেট থেকে ভালো কিছু পাওয়ার আশা, আকাক্সক্ষা কমে গেছে। এর মধ্যে বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণার কয়েক ঘণ্টা আগে অভিজ্ঞ তামিম ইকবালকে ঘিরে বিতর্ক শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত অভিজ্ঞ এই ওপেনারকে ছাড়াই বিশ্বকাপ খেলতে গেছে বাংলাদেশ দল। এখন তামিমের জায়গায় আরেক তামিম যার নাম তানজিদ হাসান তামিম। এই জুনিয়র তামিমের ওপর সবার ভরসা। যদিও আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি তিনি। অবশেষে জাতীয় দলের জার্সিতে একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলতে পেরেছেন। সেটি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচ হলেও ৮৮ বলে ৮৪ রানের ইনিংসটি তাকে আত্মবিশ্বাস জোগাবে মূল মঞ্চে।

এ ইনিংসটার পর বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্টও স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে। তামিমের অভাব ঘোচাবেন জুনিয়র তামিম এই প্রত্যাশা সবার। এবার এশিয়া কাপের স্কোয়াডে রাখা হতে পারে তানজিদকে এমন সম্ভাবনা তৈরি হয়। তার আগে পর্যন্ত তাকে জাতীয় দলের কাছাকাছি এতো দ্রুত কেউ ভাবেননি। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের ওপেনারদের একের পর এক ব্যর্থতা তার দিকে মনোযোগী করে তোলে বাংলাদেশের নির্বাচকদের। সে কারণে তানজিদকে নিয়ে অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষাও হতে থাকে। জাতীয় দলের যত পাইপলাইন আছে সবখানেই তাকে খেলানো হয়েছে। তানজিদের জন্য ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট ছিল ইমার্জিং টিমস এশিয়া কাপ।

শ্রীলঙ্কাতেই এশিয়া কাপ শুরুর কিছুদিন আগে সেই আসরটি শেষ হয় এবং সেখানে ৪ ম্যাচ খেলে ৩টি ঝড়ো ফিফটি হাঁকান এ বাঁহাতি ওপেনার। এরপরই মূলত জাতীয় দলের বিবেচনায় বেশ জোরালোভাবেই তাকে ভেবেছে টিম ম্যানেজমেন্ট এবং এশিয়া কাপের প্রাথমিক স্কোয়াডের সঙ্গে তাকে রাখা হয়। পরবর্তীতে যেহেতু তামিম খেলতে পারবেন না তাই তানজিদকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। তাকে নিয়ে নিয়মিত কাজ করেছেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহে। শেষ পর্যন্ত এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচেই অভিষেক হয়েছে তানজিদের। কিন্তু শুন্য রানেই সাজঘরে ফেরেন। তাই আবার শেষ ম্যাচে সুযোগ পান। সেখানেও ভালো করতে পারেননি। এশিয়া কাপের ব্যর্থতা শেষ করে দেশে ফেরার পর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজেও তানজিদকে খেলানো হয়েছে তবে যথারীতি ব্যর্থ হয়েছেন। তবু বিশ্বকাপ দলে তার জায়গা হয়েছে আর কোনো বিকল্প না থাকায়। শুরু থেকেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) অনেক কর্মকর্তা বলছিলেন যে, তামিমের সঙ্গে অনেক সাদৃশ্য রয়েছে তানজিদের।

ক্যারিয়ারের শুরুতে যে আক্রমণাত্মক মেজাজে ব্যাট করেছেন তামিম, একই মনোভাব জুনিয়র তামিমেরও। 
সেই প্রমাণটা পাওয়ার বাকি ছিল। অপেক্ষার প্রহর কেটেছে ৫ ওয়ানডেতে তানজিদ ব্যর্থ হওয়ার পর। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপানোর পর এই প্রথম তিনি ভালো একটি ইনিংস খেলেছেন। যদিও সেটি প্রস্তুতি ম্যাচে। কিন্তু বাংলাদেশ দলের হয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৮৪ রানের ইনিংসটি খেলে এখন স্বস্তি ফিরিয়েছেন। কারণ এই বিশ্বকাপে বিকল্প কোনো ওপেনার রাখা হয়নি বাংলাদেশ দলে। মেক শিফট ওপেনার হিসেবে সম্ভবত বেশ কিছু ম্যাচে খেলবেন মেহেদি হাসান মিরাজ। কিন্তু তার আগে ভালো একটি ইনিংস খেলে অন্তত তানজিদ এটি বোঝাতে পেরেছেন যে, তাকে নিয়ে যে আস্থা কিংবা বিশ্বাস তৈরি হয়েছে সেটি একেবারেই অমূলক নয়। তার মধ্যে যথেষ্ট সামর্থ্য ও দক্ষতা আছে ভালো কিছু উপহার দেওয়ার। কিন্তু সেই কাজটি মূল মঞ্চে কি করতে পারবেন এই তরুণ? অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের অন্যতম সদস্য ছিলেন তানজিদ। 
৩ বছরের মধ্যে এবার বড়দের মর্যাদার বিশ্বকাপ খেলবেন তিনি। তার যেমন স্বপ্ন রয়েছে, তেমনি সবাই এখন তামিমের পরিবর্তে আরেক তামিমকে পেয়ে প্রত্যাশা করছে বড় কিছুর। অভিজ্ঞ তামিমের অভাব কি পূরণ করতে পারবেন এই নতুন ‘তামিম’- বাংলাদেশের অগুণতি ক্রিকেটপ্রেমীরা সবাই আশা নিয়ে তাকিয়ে আছে। এখন সেই প্রত্যাশার চাপ, বিশ্বকাপের মতো বড় মঞ্চে খেলার উত্তেজনা নিয়ন্ত্রণ করে ভালো কিছু করার চ্যালেঞ্জ তানজিদের। সেটি যদি তিনি করতে পারেন, তামিম না থাকার আক্ষেপ কিংবা অভাব দুটোই হয়তো ভুলতে পারবেন বাংলাদেশের ক্রিকেট পাগল মানুষেরা।

×