ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

বিশ্বকাপ স্কোয়াড

তামিমকে ঘিরে নাটকীয়তা

মো. মামুন রশীদ

প্রকাশিত: ০১:০২, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

তামিমকে ঘিরে নাটকীয়তা

তামিম ইকবাল

বুধবার বিকেলে বাংলাদেশ দল বিশ্বকাপ খেলার জন্য ভারত রওনা হবে। সেটি ৩ দিন আগে থেকেই জানা। কিন্তু বাংলাদেশের বিশ^কাপ স্কোয়াড ঘোষণা করা হয়নি। সফরকারী নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে নাজমুল হোসেন শান্তকে অধিনায়ক করা হয়। সেই ম্যাচের আগে শান্ত জানিয়ে দেন যারা বিশ^কাপ স্কোয়াডে থাকবেন তাদের আগেই বার্তা দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) প্রস্তুত থাকার জন্য। সেখানে নিশ্চিতভাবেই অভিজ্ঞ তামিম ইকবালের ফেরার কথা। কিন্তু নাটকীয়তার সূত্রপাত হয়েছে বিশ^কাপ স্কোয়াড ঘোষণার আগের রাতে। অর্থাৎ সোমবার মধ্যরাতে বিশ^কাপ স্কোয়াড নিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে তার বাসায় সাক্ষাৎ করেন প্রধান কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহে ও অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। বিষয়টি তামিমকে ঘিরেই।

তিনি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে খেলার পর ইনজুরি আক্রান্ত পিঠে অস্বস্তির কথা জানান এবং গুঞ্জন ওঠে তিনি শতভাগ ফিট নয় এ বিষয়টি বিবেচনায় রেখেই যেন বিশ^কাপের দল ঘোষণা করেন নির্বাচকরা। এরপরই নাটকীয়তা হয়েছে যার রেশ মঙ্গলবার পর্যন্ত থেকেছে। তাই এদিন মধ্যরাতে হয়েছে বিশ^কাপ স্কোয়াড ঘোষণা।
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজটি বিশ^কাপ স্কোয়াড ঘোষণার আগে বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়ায় বাংলাদেশের জন্য। কারণ এশিয়া কাপের যে স্কোয়াডটি নিয়ে বাংলাদেশ খেলেছে সেটিই বিশ^কাপ খেলবে এমনটা জানিয়ে রাখে বিসিবি। কিন্তু এশিয়া কাপে দলের চরম ব্যর্থতা এবং বিশেষ করে ব্যাটারদের ধারাবাহিকভাবে ব্যর্থতার পর সিদ্ধান্ত পাল্টাতে বাধ্য হয় বিসিবি এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) কাছে একটি ছায়া স্কোয়াড পাঠানো হলেও চূড়ান্ত দলে অনেক পরিবর্তন আসবে এমনটা জানিয়ে রাখা হয়।

বিশেষ করে যেহেতু তামিম ইনজুরির কারণে দীর্ঘ সময় বাইরে, সেজন্য আসলে তাকে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজটিতে পর্যবেক্ষণ করেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এ ছাড়া অন্যদের ব্যর্থতার কারণে ওপেনিং পজিশনে একজন বিকল্প, ৭ নম্বর পজিশনে একটি বিকল্প এবং এবাদত হোসেন চৌধুরী ছিটকে যাওয়ায় পঞ্চম পেসার হিসেবে আরেকটি বিকল্প চিন্তা করতে হয়েছে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্টকে। তাই অভিজ্ঞ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার, তানজিদ হাসান তামিম, খালেদ আহমেদ, তানজিম হাসান সাকিব, জাকির হাসানদের পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে। সেই পরীক্ষায় নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে খেলেই উতরে গেছেন অভিজ্ঞ ওপেনার তামিম ও মাহমুদুল্লাহ দুর্দান্ত পারফর্ম করে। তবে শনিবার অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচের পরই তামিম সংবাদ সম্মেলনে জানিয়ে দেন, পিঠের ব্যথাটা না থাকলেও বেশ অস্বস্তি বোধ করছেন তিনি। পরবর্তীতে এটাও জানা যায় তিনি নির্বাচকদেরও বিষয়টি বলেছেন যে, তাকে বিশ^কাপ দলে নেওয়ার ক্ষেত্রে যেন তার ফিটনেসের বিষয়টি চিন্তা করা হয়। আর এটি নিয়েই যত নাটকীয়তা। কোচ হাতুরুসিংহে ও অধিনায়ক সাকিবÑ দুজনের কেউই আনফিট তামিমকে বিশ^কাপে নিতে রাজি হননি। 
অবশ্য তামিমের পুরো বিষয়টি দেখভাল করেছে বিসিবির মেডিক্যাল টিম, পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার টিম এবং ফিজিওরা। তিনি লন্ডন থেকে গত ৩১ আগস্ট চিকিৎসা নিয়ে ফেরার পর থেকে নিজেকে ফিরে পেতে সেভাবেই অনুশীলন করেছেন এবং প্রয়োজনীয় ফিটনেস ট্রেনিং করেছেন। তবে ইনজেকশন নেওয়ার পর বলা হয়েছে, যে কোনো সময় আবার পিঠের নিচের অংশের যে ব্যথা সেটি ফিরতে পারে। ব্যথা, অস্বস্তি ফিরবে কিনা কিংবা কোনো সমস্যা হবে কিনা তা বোঝা যাবে ম্যাচ খেললেই। সেটিই হয়েছে কিউইদের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে শেষে নিজেই পিঠের সমস্যার কথা জানিয়েছেন এবং পরে নির্বাচকদেরও বলেছেন। বিষয়টি নিয়ে বিসিবি সভাপতি পাপন বোর্ড কর্মকর্তাসহ টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গেও আলোচনা করেছেন। কিন্তু সাকিব প্রথম থেকেই এ বিষয়ে রাজি ছিলেন না।

এর আগে ফিটনেস সমস্যার কারণে গত জুলাইয়ে অবসরও নিয়েছিলেন তামিম। পরে সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে অবসর থেকে ফিরে আসেন তিনি। সোমবার মধ্যরাতে যখন পাপন-হাতুরু-সাকিব ত্রিমুখী আলোচনা হয়েছে তখনো কোনো সমাধান আসেনি। এর মধ্যে অনেক গুঞ্জনই ছড়িয়ে পড়ে। এমনকি গুঞ্জন ওঠে তামিম ইস্যুতে বিরক্ত সাকিব বিশ^কাপে নেতৃত্বও দিতে চাইছেন না। তিনি এবং কোচ দুজনই চেয়েছেন আনফিট কাউকে না রাখতে বিশ^কাপ স্কোয়াডে। এটাই স্বাভাবিক, আনফিট কোনো ক্রিকেটার বিশ^কাপ মঞ্চে জায়গা পাবেন না।

শেষ পর্যন্ত মঙ্গলবার মাশরাফি আবার বিসিবি কার্যালয়ে আসেন এবং সাকিব-তামিমসহ সবার সঙ্গেই তিনি আলোচনা করে রাখেন। মাশরাফি এ সময় পাপন, বোর্ড কর্মকর্তা ও নির্বাচকদের সঙ্গে আলোচনা করলেও সমাধান আসেনি। নাটকীয়তার কারণে তাই বিশ^কাপ স্কোয়াড ঘোষণা বিলম্বিত হয়েছে। শেষ পর্যন্ত মঙ্গলবার বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড তৃতীয় ওয়ানডে শেষ হওয়ার পর বিশ^কাপ স্কোয়াড ঘোষণার সিদ্ধান্ত হয়।

×