ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ০২ মার্চ ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০

মেটার নতুন অ্যাপ ’থ্রেডস! ইতিমধ্যে এক কোটি সাইন-আপ

প্রকাশিত: ১৬:৪৯, ৬ জুলাই ২০২৩

মেটার নতুন অ্যাপ ’থ্রেডস! ইতিমধ্যে এক কোটি সাইন-আপ

মোবাইলে থ্রেডস অ্যাপ। ছবি: সংগৃহীত

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আরও এক নতুন এক সংযোজন শুরু করলেন মার্ক জুকারবার্গ। টুইটারের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে লঞ্চ হলো নতুন- থ্রেডস অ্যাপ। মাত্র দুই ঘণ্টাতেই ২০ লাখ সাইন-আপ হয় এই প্ল্যাটফর্মে। সময় যত গড়াচ্ছে ততই ইউজারের সংখ্যা বাড়ছে এই অ্যাপে। ইতিমধ্যে এক কোটি মানুষ নথিভুক্ত হয়েছেন থ্রেডসে।

২০০৪ সালে ফেসবুক আবিষ্কার করে সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন মার্ক জুকারবার্গ। আজ যা ছাড়া কল্পনাও করতে পারে না সাধারণ মানুষ। এরপর একে একে ঝুলিতে যোগ হয় হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইনস্টাগ্রাম। তিন প্ল্যাটফর্মেই রয়েছে কোটি কোটি অ্যাক্টিভ ইউজার।

জানা গেছে, এই থ্রেডস অ্যাপ বানিয়েছে মেটা মালিকাধীন ইনস্টাগ্রাম। সামাজিক মাধ্যমের মতোই এখানে টেক্সট আপডেট করা যাবে। একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে।

থ্রেডস অ্যাপ
থ্রেডস অ্যাপে সর্বোচ্চ ৫০০ ক্যারেক্টার টেক্সট আপলোড করা যাবে (লিঙ্ক সহ)। ভিডিওর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সীমা রাখা হয়েছে ৫ মিনিট। ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট দিয়েই সাইন-আপ করা যাবে এই অ্যাপে। এখানে টেক্সটের পাশাপাশি শেয়ার করা যাবে ছবি ও ভিডিও।

যে সব ইউজারের বয়স ১৬ বছরের নিচে (কোনো কোনো দেশে ১৮ বছর) তাদের থ্রেডস অ্যাকাউন্ট ডিফল্ট অপশন হিসাবে প্রাইভেট রাখা হবে বলে জানানো হয়েছে। নিজের প্রোফাইলের ফিড কাস্টমাইজ করতে পারবেন ইউজাররা।

পাশাপাশি থ্রি লাইন ডটে ক্লিক করে আনফলো, ব্লক ও রিপোর্টও করা যাবে। বৃহস্পতিবার থেকেই ১০০টির বেশি দেশে থ্রেডস অ্যাপ চালু করতে চলেছে মেটা। অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস দুই ডিভাইসেই সাপোর্ট করবে এই অ্যাপ।

টুইটারকে চ্যালেঞ্জ
কোনো কিছুর ঘোষণা বা মন্তব্য ভাগ করার জন্য সেলেব্রিটি থেকে সাধারণ মানুষ টুইটার ব্যবহার করেন। এই প্ল্যাটফর্ম আরও গুছিয়ে তোলার জন্য সম্প্রতি নানান সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইলন মাস্ক। নিয়োগ দিয়েছেন নতুন সিইও লিন্ডা ইয়াক্কারিনো।

টুইটারের মতোই এবার প্রায় একই পরিষেবা দেবে থ্রেডস। এই অ্যাপেও ইউজাররা তাদের মতামত, ছবি, ভিডিও আকারে ভাগ করে নিতে পারবেন। অ্যাপে কাস্টমাইজেশনের সুবিধা এবং আকর্ষণীয় ইন্টারফেস রাখা হয়েছে। যাতে ইউজারের এক ঘেয়েমি না লাগে।

মেটার সিইও মার্ক জুকারবার্গ দাবি করেছেন, এতে কিছুটা সময় লাগবে। আমি মনে করি, ১০ কোটি মানুষের একটি পাবলিক কথোপকথন প্ল্যাটফর্ম থাকা দরকার। টুইটার এটি করার সুযোগ পেয়েছিল। আশা করি, আমরা করব।

 

এসআর

সম্পর্কিত বিষয়:

×