ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট

প্রযুক্তি উদ্ভাবনে ৬ কোটি টাকার সহায়তা

প্রকাশিত: ১৮:০৭, ২৮ মার্চ ২০২৩

প্রযুক্তি উদ্ভাবনে ৬ কোটি টাকার সহায়তা

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিরা

দেশে তরুণদের মধ্যে নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনের মাধ্যমে উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্যে তৃতীয় বারের মতো বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট প্রদান করা হচ্ছে। এতে সেরা স্টার্টআপকে ১ কোটি এবং আরো ৫০টি উদ্ভাবনী আইডিয়াকে ১০ লাখ করে মোট ৬ কোটি টাকার সহায়তা প্রদান করা হবে। তাছাড়া সেরাদের মধ্যে থেকে বাছাইকৃত কিছু প্রতিষ্ঠানকে কোটি টাকার বিনিয়োগ দিবে বাংলাদেশ স্টার্টআপ কোম্পানি।

মঙ্গলবার রাজধানী ঢাকার আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারে স্টার্টআপদের জন্য সর্ববৃহৎ এই উদ্যোগ বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট (বিগ) আয়োজনের উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক এমপি।

এবার শুধু দেশের মধ্য থেকে তরুণ উদ্যোক্তাদের আবেদনসমূহের মধ্য থেকে ৩০০ টি উদ্ভাবনী স্টার্টআপকে প্রাথমিক পর্যায়ে নির্বাচন করা হবে। পরবর্তীতে নির্বাচিত সেরা স্টার্টআপদের নিয়ে একটি ৩ দিনব্যাপী বুটক্যাম্প আয়োজন করা হবে। এ বুটক্যাম্পে স্টার্টআপদের নিয়ে দিনব্যাপী ওয়ার্কশপ রয়েছে। বুটক্যাম্পের সেরা স্টার্টআপদের থেকে নির্বাচন করা হবে “বিগ ২০২৩” এর সেরা ৫১ স্টার্টআপ যাদের মধ্য থেকে নির্বাচিত সেরা ৫টি স্টার্টআপকে নিয়ে আয়োজিত হবে বিগ এর চূড়ান্ত রাউন্ড। এই চূড়ান্ত পর্ব থেকে অভিজ্ঞ বিচারকদের সমন্বয়ে গঠিত একটি সিলেকশন প্যানেলের মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে এই আয়োজনের চূড়ান্ত ফলাফল। ২২ এপ্রিল পর্যন্ত প্রতিযোগীতায় আবেদনের সুযোগ থাকবে। আর চ’ড়ান্ত আসর বসবে জুন মাসে। 

এ আয়োজনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক বলেন, গত বছর আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এ আয়োজন করা হলেও এবার শুধু দেশের মধ্যেই আবেদনের সুযোগ রাখা হয়েছে। করোনায় প্রযুক্তির মাধ্যমে বিভিন্ন সেবা নিশ্চিত করার বিষয়টি উল্লেখ করে  সামনে বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সংকট মোকবেলায় নতুন নতুন প্রযুক্তিগত সমাধান উদ্ভাবনের আহ্বান জানান তিনি। 

দেশে এখন আড়াই হাজার স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান ১৫ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে জানান প্রতিমন্ত্রী। ২০২৫ সাল নাগাদ ৫ হাজার স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে ৩০ লাখ লোকের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যের কথা জানান তিনি। আর প্রযুক্তি খাতে জামানত ছাড়াই ঋণপ্রাপ্তির সুযোগের বিষয়টি তরুণদের সামনে তুলে ধরেন প্রতিমন্ত্রী। এখানে বিনিয়োগে লস হলেও কোন দায় থাকে না ঋণ গ্রহণকারীরর। বিভিন্ন স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানে এরই মধ্যে ৮০০ মিলিয়ন ডলার বিদেশি বিনিয়োগ এসেছে বলেও জানান জুনাইদ আহ্মেদ পলক।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব শামসুল আরেফিন বলেন, স্মার্ট দেশ গড়তে অনেক উদ্ভাবনী আইডিয়া দরকার হবে। সামনে জ্বালানী, খাদ্য, পরিবেশ ও পানি ব্যবহার নিয়ে নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনের আহ্বান জানান তরুণদের।
এরআগে বিগ সর্বপ্রথম ২০১৯ সালে স্টার্টআপদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাওয়ার পর ২০২১ সালে সফলভাবে দ্বিতীয়বারের মত অনুষ্ঠিত হয়। এরই প্রেক্ষিতে, ২০২৩ সালে উক্ত জনপ্রিয় আয়োজনটি ৩য় বারের মত আয়োজন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ। এবারের আয়োজনের প্রতিপাদ্য বিষয় হল- ডেয়ার টু স্টোন্ড বিগ।

উল্লেখ্য, দেশের এ সরকারি সহায়তা পেয়ে অনেক প্রতিষ্ঠান পরবর্তীতে সিলিকন ভ্যালি থেকেও বিনিয়োগ পেয়েছে। বর্তমানে বিকাশ ও নগদ দুটি বিরিয়ন ডলারের স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান রয়েছে দেশে। সামনে আরো এমন প্রতিষ্ঠান তৈরি হবে বলে আশা করছে আয়োজকরা। 
 
 

ইয়াহইয়া নকিব

×