ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ইফতার মাহফিলে মির্জা ফখরুল 

সরকার মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে 

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:২৩, ৭ এপ্রিল ২০২৪

সরকার মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে 

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

আওয়ামী লীগ সরকার দেশের মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শনিবার রাজধানীর ইস্কাটন লেডিস ক্লাবে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি আয়োজিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ অভিযোগ করেন। এতে ভার্চুয়ালি উপস্থিত থেকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বক্তব্য রাখেন। 
ফখরুল বলেন, ভয়ংকর ভয়াবহ দানবের আক্রমণ আমাদের ওপর চলছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের গুম করা হচ্ছে, পঙ্গু করা হচ্ছে, খুন করা হচ্ছে। বিচার বিভাগসহ রাষ্ট্রের সকল স্তম্ভ আজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার তাদের ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে চায়। এর আগেও তারা এই চেষ্টা করেছিল। তখন সফল হয়নি, এবারও সফল হবে না।
ফখরুল বলেন, রমজান মাস পবিত্র মাস। আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করছি আল্লাহ আমাদের ক্ষমা করে দেন। যে সরকার আমাদের বুকে চেপে বসেছে তা থেকে মুক্তি যেন দেন। এ সরকারকে সরাতে না পারলে দেশ ধ্বংস হয়ে যাবে। তাই এদের বিতাড়িত করে দেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। 
ফখরুল বলেন, প্রতিটি বড় বিজয়ের জন্য ত্যাগ স্বীকার করতে হয়। আমাদের নবীজীও একদিনে ইসলাম প্রতিষ্ঠা করতে পারেননি। তাই আমাদের অত্যাচারিত নিপীড়িত নেতাকর্মীরাও হতাশ নয়। তারা বলছে আপনারা যদি সঠিক দিকনির্দেশনা দেন, আন্দোলনের ডাক দেন, আমরা রাজপথে প্রাণ দিয়ে হলেও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করব।
মির্জা ফখরুল বলেন, কারাগারের ভেতরে ঢাকা মহানগরের হাজারও নেতাকর্মীদের আমি দেখেছি। পবিত্র রমজানেও তারা বিনাদোষে বন্দি জীবনযাপন করছেন।

আমাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রী খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে প্রতিনিয়ত মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে। বিএনপির ৬০ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে। গত বছর ২৮ ও ২৯ অক্টোবর দুদিনেই ৩৭ হাজার নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 
ঢাকা মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আগামীদিনে ঢাকাকে আন্দোলনের দুর্গ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। এর জন্য প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করতে হবে। 
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, রাজনীতিবিদদের জন্য জেলখানা সেকেন্ড হোম। আজকে গুম হওয়া পরিবারের সদস্যরা জানেন না তারা জীবিত নাকি মৃত। যার কারণে পারিবারিক সমস্যা আরও প্রকট হয়ে উঠছে। তিনি বলেন, আমরা স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব চাই। বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য কারও সঙ্গে আপোস করে না। স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব বিকিয়ে দিয়ে ক্ষমতায় আসতে চায় না বিএনপি। বিএনপির আপোসহীন নেত্রী যখন বন্দি, তখন গণতন্ত্রও বন্দি। আজকে অন্যায় না করে জেলে যেতে হয়, খুন হতে হয়, সিপাহিদের হাতে মার খেতে হয়। 
ইফতার মাহফিলে বিএনপির নিখোঁজ ও নিহত হওয়া নেতাকর্মীদের পরিবারের সদস্যদের মাঝে ঈদ উপহার তুলে দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে এবং ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের সদস্য সচিব আমিনুল হক ও  রফিকুল আলম মজনুর সঞ্চালনায় ইফতার মাহফিলে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, নিখোঁজ হওয়া বিএনপি নেতা চৌধুরী আলমের পুত্র আবু সাদাত চৌধুরী ইমন, বিএনপি নেতা পারভেজ হোসেনের মেয়ে রিমি, সাজেদুল হকের বোন তানজিদা ইসলাম তুলি এবং আনোয়ার হোসেনের মেয়ে রাইসা প্রমুখ।

ইফতার মাহফিলে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, নিখোঁজ হওয়া বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর সহধর্মিণী ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহমিনা রুশদীর লুনা, দলের যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মুজিবুর রহমান সারোয়ার, প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।

×