ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

অবশেষে বাসায় ফিরে গেলেন মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত: ২১:৫১, ৭ ডিসেম্বর ২০২২; আপডেট: ১১:৪৯, ৮ ডিসেম্বর ২০২২

অবশেষে বাসায় ফিরে গেলেন মির্জা ফখরুল

মির্জা ফখরুল ইসলাম

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ১০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় বিএনপির সমাবেশ পণ্ড করতে সশস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। বিএনপি কার্যালয়ে পুলিশের অভিযান এখনও অব্যাহত রয়েছে। পুলিশের দাবি জনগণের নিরাপত্তার স্বার্থে ও পুলিশের ওপর হামলা হওয়ায় এই অভিযান চালানো হয়েছে৷  

বুধবার (৭ ডিসেম্বর) বিএনপির কার্যালয় থেকে একাধিকবার পুলিশের ওপর বোমা নিক্ষেপের অভিযোগে বিকাল ৪টা থেকে এই অভিযান চালানো হয়। 

অভিযান সম্পর্কে পুলিশ কর্মকর্তা বিপ্লব কুমার সরকার বলেন, আমরা মনে করি মানুষের জান-মালের ক্ষতি করার জন্য, আমাদের পুলিশ সদস্যদের আক্রমণ বা হত্যা করার জন্য এখান থেকে পরিকল্পনা হচ্ছে। 

সাধারণ মানুষ যখন হুমকির মুখে পড়েছে, মানুষ যখন আতঙ্কিত হয়েছে আর আমরা যখন হামলার শিকার হয়েছি তখন আমরা অভিযান পরিচালনা করতে বাধ্য হয়েছি৷ আমাদের অসংখ্য সদস্য বোমা হামলায় আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

বিএনপির নেতাকর্মীদের আটকের বিষয়ে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, 'অনেককেই আটক করেছি আমরা। কিন্তু অভিযান পরিচালনা করাকালে মাথাগোনা সম্ভব না। কিন্তু অনেক সন্ত্রাসী আমরা আটক করেছি এবং সন্ত্রাসীদের উসকানিদাতাদের গ্রেফতার করেছি। এখান থেকে নাশকতা করার জন্য অনেক বোমা উদ্ধার করা হয়েছে।' অভিযান এখনও চলমান বলেও উল্লেখ করেন বিপ্লব কুমার সরকার। 

এদিকে কার্যালয়ে পুলিশের অভিযানের কথা শুনে ছুটে আসেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিরাপত্তার স্বার্থে তাকে ভেতরে প্রবেশ করতে দেননি। কার্যালয়ে ঢুকতে বাধা পেয়ে তিনি গেটের সামনে সড়কে বসে পড়েন। সন্ধ্যার দিকে তিনি কার্যালয়ের সামনে থেকে চলে যান। যাবার সময় মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের বলেন, 'পুলিশ সবচেয়ে হীন কাজটা করেছে, তারা নিজেরাই এখানে কিছু বিস্ফোরক নিয়ে এসেছে এবং সেগুলো ভিতরে রেখে বিএনপির ওপর দায় চাপাচ্ছে।'

তিনি বলেন, আমরা খুব পরিষ্কার করে বলতে চাই বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল এবং সম্পূর্ণভাবে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে বিশ্বাস করে।'

তিনি আরও বলেন, ঢাকায় আমাদের সমাবেশকে কেন্দ্র করে, সরকারের মন্ত্রী, নেত্রীবর্গ উসকানিমূলক বক্তব্য রাখতে থাকেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পরিষ্কার করেই বলেছিলেন খেলা হবে। আরেকজন বলেছিলেন, হেফাজতের মতো সাফ করে দেওয়া হবে। এই যে ভয়াবহ কথা তখন থেকেই আমরা আশঙ্কা করছিলাম ২০১৩-১৪-এর মতো আরেকটি নীলনকশা তারা করছে।

 

এমএস

monarchmart
monarchmart