ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১

ঈদের ছুটিতে তীব্র যানজট যেসব রাস্তায়

প্রকাশিত: ১৫:৩০, ১৪ জুন ২০২৪

ঈদের ছুটিতে তীব্র যানজট যেসব রাস্তায়

যানজট

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) শুরু হয়েছে ঈদুল আজহার ছুটি। ছুটি পেয়ে ঘরে ফেরার জন্য ব্যকুল হয়ে রয়েছে মানুষজন। হুট করে বেড়েছে যাত্রীদের চাপ। এতে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে কিছু যায়গায়। 

শেষ সময়ে বাসের টিকেট জন্য ঘুরছেন যাত্রীরা। তবে সময় বাড়ার সঙ্গে বাস কাউন্টারে ভিড় বেড়েছে কয়েকগুণ। সেই সঙ্গে যাত্রীদের চাপ সামাল দিতে বেড়েছে গণপরিবহন সংখ্যা।

ঈদে ঘরমুখী যাত্রীদের চাপ বেড়ে যাওয়ায় অতিরিক্ত গাড়ির কারণে পদ্মা সেতুর মাওয়া টোলপ্লাজায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। আবার সাভারে ১৭ কিলোমিটার সড়কে যানবাহনের ধীরগতি সৃষ্টি হয়েছে। 

শুক্রবার (১৪ জুন) ভোররাত থেকে এ যানজট ছড়িয়ে পড়ে কয়েক কিলোমিটার দূরে শ্রীনগর উপজেলা পর্যন্ত। যাত্রীদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা টোল দেওয়ার অপেক্ষায় থেকে চরম ভোগান্তি শিকার হতে হয়। মাওয়া ট্রাফিক জোনের টিআই পরিদর্শক জিয়াউল হক জিয়া জানান, বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে সকাল থেকে দক্ষিণবঙ্গমুখী গাড়র চাপ বেড়েছে।

সেই সঙ্গে পদ্মা সেতু দিয়ে চলাচলরত ট্রাকগুলোর ওজন মাপা স্কেলে সমস্যা দেখা দিলে ট্রাকের দীর্ঘ সারি পড়ে যায় মহাসড়কে। ফলে যানজট ছড়িয়ে পড়ে কয়েক কিলোমিটার পর্যন্ত।  

জিয়াউল হক জিয়া জানান, ভোর থেকে এ যানজট শুরু হয়। যানজট অনেকটা কমে গেছে। টোলপ্লাজা থেকে এক কিলোমিটার দূরে দোগাছি পর্যন্ত এখন গাড়িগুলো টোল দেওয়ার অপেক্ষায় আছে। আশা করছি শিগগিরই এ যানজট নিরসন হবে।

দুপুর ১টার দিকে ঢাকা-আরিচা ও নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়ক ঘুরে দেখা যায়, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আমিনবাজার থেকে বলিয়ারপুর ৫ কিলোমিটার,  বিশমাইল থেকে নয়ারহাট পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার ও নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের পল্লিবিদ্যুৎ থেকে বাইপাইল ২ কিলোমিটার, শ্রীপুর-থেকে ইপিজেড দেড় কিলোমিটার ও বাড়ইপাড়া থেকে চন্দ্রা পর্যন্ত আড়াই কিলোমিটারসহ ১৭ কিলোমিটার সড়কে যানবাহনের ধীরগতি সৃষ্টি হয়েছে।

শ্যামলী পরিবহনের চালক আনোয়ার হোসেন বলেন, গাবতলী বাসস্ট্যান্ড থেকে বাড়ইপাড়া আসতে সময় লেগেছে চার ঘণ্টা। যেখানে অন্য সময়ে আসতে সময় লাগে ৩০ মিনিট। কিছু কিছু বাস যেখানে সেখানে দাঁড়িয়ে যাত্রী উঠানোয় গাড়ির গতি কমে যাচ্ছে। এছাড়া প্রতিটা পয়েন্টে পয়েন্টে ট্রাক পার্কিং করে যাত্রী উঠাচ্ছেন। ফলে গাড়ি স্বাভাবিক গতিতে চালানো যাচ্ছে না।

সাভার হাইওয়ে পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) আইয়ুব আলী বলেন, সকাল থেকে মানুষের চাপ বেড়েছে। এছাড়া কিছু বাস সড়কের ওপর দাঁড়িয়ে যাত্রী উঠাচ্ছে। এতে করে পেছনের গাড়ির গতি কমে যায়। এজন্য তৈরি হচ্ছে ধীর গতি। তবে পুলিশ কাজ করছে। ভোগান্তি ছাড়াই যাতে যাত্রীরা নিরাপদে বাড়ি পৌঁছতে পারে সেজন্য কাজ করছে পুলিশ।

শিলা

×